বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

#একদিন_তো_মরেই_যাবো

"মজার গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান PRINCE FAHAD (০ পয়েন্ট)



X মাঝরাতে বফ কল দিয়ে বেশ উৎকণ্ঠা গলায় বলে উঠলো,"তনু, তাড়াতাড়ি অনলাইনে আসো তো, তোমার সাথে খুবই গুরুত্বপূর্ণ কথা আছে। জলদি আসো।" আমি ঘুমঘুম গলায় হতাশ কণ্ঠে বললাম," অনলাইনে গিয়ে আর কী হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" হাড়কিপ্টা বফ "আসো" বলেই কলটা ঠাস করে কাটলো। মেজাজের উপর দিয়ে এমন বুলডোজারটা চালাইলো! থামো বাবা, তোমারে দেখাচ্ছি মজা। কিপ্টামি ছুটাচ্ছি আজ তোমার। আধঘন্টা হয়ে গেল অনলাইনে গেলাম না, বসে থাক কিপ্টাটা। একটু পর কল দিল, ওমা ধরতে গিয়েই দেখি মিসড কল। মেজাজের আরো রফাদফা! শালা এত কিপ্টা কেন?! যাই হোক, অনলাইনে গেলাম। যেতেই দেখি তার মেসেজ। -"তনু শোনো।" -"শুনে আর কী হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" -"আরে শুনবা তো, শুনলে লাফাইবা দেখো।" -"লাফায়া আর কী হবে একদিন তো মরেই যাবো।" -"শোন না বইন, গালি খাস না এখন আমার।" -"গালি খেয়ে আর কী হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" -"থাম আমিই মেরে ফেলবো তোকে।" -"মেরে ফেলে আর কী হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" অতঃপর সে টেক্সটখানা সিন করিয়া অফলাইনে চলিয়া গেল, এদিকে আমি হেসে কুটিকুটি। দেখ কেমন লাগে! সকাল সকাল উঠে অনলাইনে এসে দেখি তিনি এখনো অফলাইন। কাল রাতের ডোজ একটু বেশিই হইছে ভেবে ভার্সিটির জন্য রেডি হলাম। যেতে ধরছি এমন টাইমে আব্বুর থেকে জরুরি তলব আসলো যে এখনি তাকে দর্শন দিতে হবে। ব্যাগটা রেখে আব্বুর ঘরে ঢুকলাম। বেশ তটস্থ কণ্ঠে তিনি বলে উঠলেন, -"আমি তোমার বিয়ে ঠিক করে ফেলছি।" -"আব্বা এইডা কি কন? আমি তো এহনো বাচ্চা আছি।" -"এই সাতসকালে ন্যাকামি করবিনা তনু। ছেলে খুব ভালো আর ঐ ছেলের সাথেই তোর বিয়ে হবে।" -"আব্বু আমি কিন্তু সিরিয়াস। আমি বিয়ে করবোনা, আমি পড়াশোনা শেষ করবো।" -"পড়াশোনা শেষ করে আর কী করবি? একদিন তো মরেই যাবি।" বলেই আব্বু ঘর থেকে বের করে দিয়ে মুখের উপর দরজাটা দিল লাগিয়ে। বুঝলাম না বফকে দেওয়া বাঁশটা নিউটনের কোন সূত্র অনুযায়ী আমার কাছে ফেরত আসলো। তাড়াহুড়ো করে বাড়ি থেকে বের হয়েই বফকে কল দিলাম। -"হ্যালো তূর্য। বাবা আমার বিয়ে ঠিক করছে, তুমি প্লিজ কিছু করো।" -"করে আর কি হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" -"বাবা আমার বিয়ে দিচ্ছে আর তুই ফাজলামো করতেছিস?" -"ফাজলামি করে আর কী হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" -"তুই এখনি মর শালা।" -"এখনি মরে কী হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" -"আল্লাহ্ গো দড়ি ফালাও, আমি উঠে যাই।" -"উঠে গিয়ে আর কী হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" -"কল কাট শয়তান।" -"কল কেটে আর কী হবে? একদিন তো মরেই... টুট টুট টুট।" কলটা কেটে দিলাম। বাঁশ যখন আসে সবদিক দিয়েই আসে। আমি কি করবো ভাবতে ভাবতে আবার মনে হলো,"এত ভেবে কী হবে? একদিন তো মরেই যাবো।" সাথে সাথে নিজের গালে দুটো কষে থাপ্পড় লাগালাম। রিকশাওয়ালা মামা পাগল ভেবে একবার পিছনে তাকালো। আমার এখন কান্না পাচ্ছে, কী এক ঝামেলা! এমন সময় টুং করে একটা মেসেজ আসলো বফের নম্বর থেকে, -"গাধার বাচ্চা, আমি কাল চাকরী পাইছি। তোর বাপরে বিয়ের জন্য রাজি করাইছি এই বলে যে আংকেল দেখেন আপনার মেয়ে পাগল হইছে। খালি মরার কথা বলে। অতঃপর আংকেল থেকে শ্বশুরমশাই।" মেসেজ পড়ার পর আমি বি লাইক, ইয়ে দুনিয়া ধোকেবাজ হ্যায়! কিসিপে ইয়াকিন মাত কারনাgj। সমাপ্ত || (collected)


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৩১৩ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...