বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

জিজেদের ঢাকা চিড়িয়াখানা ভ্রমণ

"ভ্রমণ কাহিনী" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Radiyah Ridhi (৩৫ পয়েন্ট)



X পার্ট ১☺️☺️☺️☺️☺️ আমরা সব জিজেরা মিলে প্লেন করলাম কোথায় ঘুরতে যাওয়া যাক ৷ রিদা আপু বলল, পার্কে যাওয়া যাক। তানিম ভাইয়া বলল, পার্কে গেলে তো জিজেদের সম্মান চলে যাবে। আমি বললাম, জিজেদের সম্মান নিয়ে কথা তাহলে ঢাকা চিড়িয়া খানায় যাওয়া যাক । সবাই বলল, হ্যাঁ হ্যাঁ। আমি আর বন্ধুরা মিলে কি করলাম সোামবারে যাওয়া হবে । আমি আর রিদা আপু যারা যারা যাবে তাদের নামে লিস্ট করলাম । লিস্টের মধ্যে যাদের নাম রয়েছে তা হলো। তানিম ভাইয়া, পিচ্চি হুজুর ভাইয়া,মফিজুল ভাইয়া,হৃদয় ভাইয়া,ইকবাল ভাইয়া,মেহেদী ভাইয়া,জাম ভর্তা ভাইয়া,আকিল,সারাফ ভাইয়া, রিদা আপু,তারিন আপু,দোয়া আপু,সামিয়া আপু,ইসরাত আপু। আমরা ১৪টি টিকেট নিয়ে নিলাম।আমরা রাজশাহী থেকে ঢাকা রওনা দিব। আজ আমরা সবাই বাস স্টপে এসে বসে আছি। শুধু জাম ভর্তা ভাইয়া ছাড়া। তানিম ভাইয়া জাম ভর্তা ভাইয়াকে ফোন করে বলল, কখন আসবেন জাইম। জাম ভর্তা ভাইয়া বলল, দশ মিনিটের মধ্যে চলে আসবে। এদিকে আবার বাস চলে এসেছে। সব লোকেরা বাসে হুড়মুড় করে ঢুকে পড়ল। তারপর ইকবাল ভাইয়া বাস ড্রাইভারকে বলল, ভাই একটু সময় থামেন আমাদের একটি লোক আছে। বাস ড্রাইভার বলল, বাসে তো দাঁড়ানোর মত জায়গাও নেই। এদিকে জাম ভর্তা ভাইয়া এসেছে এবং বাস ড্রাইভারকে বলল, আমরা সবাই বাসের ছাদে উঠে বসবো। বাস ড্রাইভার বলল, আচ্ছা বসেন। আমরা সবাই বাসের ছাদে উঠে বসলাম। বাস ড্রাইভার বাস ছাড়লেন। দোয়া আপু: আচ্ছা,জাইম ভাইয়া আপনি এতো দেরি করে আসলেন কেন?? জাম ভর্তা ভাইয়া: আমি সব জিজেদের জন্য জাম ভর্তা করে এনেছি। আমি: ওওও!! জাম ভর্তা। তারিন আপু: কোন জিজে কি কোন কিছু খাওয়ার জন্য এনেছেন? আমি সবার জন্য আপেল নিয়ে এসেছি। জাম ভর্তা ভাইয়া: আমি সবার জন্য জাম ভর্তা এনেছি। হৃদয় ভাইয়া: আমি সবার জন্য কলা এনেছি। দোয়া আপু: আমি সবার জন্য পানি এনেছি। আকিল: আমি সবার জন্য লেবু এনেছি। তারিন আপু: আকিল যেমন টক তেমন লেবু। হা হা হা। সামিয়া আপু: আমি সবার জন্য চিপস এনেছি। রিদা আপু: আমি সবার জন্য জুস এনেছি। ইসরাত আপু: আমি সবার জন্যই ললিপপ এনেছি। ইকবাল ভাইয়া: আমি সবার জন্য লিচু পানি এনেছি। মেহেদি ভাইয়া: আমি সবার জন্য দই এনেছি। মফিজুল ভাইয়া: আমি সবার জন্য মিষ্টি এনেছি। তানিম ভাইয়া: আমি সবার জন্য করলার জুসyuckyএনেছি। আমি: আমি করলার জুস খাব না। রিদা আপু: করলার জুস!!!!!! আমি: আমি সবার জন্য বিরিয়ানি নিয়ে এসেছি। আর পিচ্চি হুজুর ভাইয়াকে বলেছিলাম, প্লেট নিয়ে আসতে। এনছে নাকি জানিনা। পিচ্চি হুজুর ভাইয়া: হ্যাঁ রিধি এনেছি। কিন্তু প্লেট নিয়ে আসিনি। আমি: তাহলে কি ইঁদুর মারার বিষ নিয়ে এসেছেন। আমাদের খাবারে মিশিয়ে আমাদের কী মেরে ফেলতে চান? পিচ্চি হুজুর ভাইয়া: না রিধি আমি কলাপাতা এনেছি। আমি: কলাপাতা! আকিল: আমার পেটের ইঁদুর গুলোকে বিরিয়ানি দাও রিধি। আমি: হ্যাঁ আকিল শুধু তোমাকে না সবাই কে বিরিয়ানি দিব। আকিল: বিরিয়ানি টা খুব ইয়ামিন হইছে। আমি: ইয়ামিন না ইয়াম্মি। আমরা সব জিজেদের খাবার খেলাম। শুধু তানিম ভাইয়ার খাবার বাদে। করলার জুস কে খাবে। জাম ভর্তা ভাইয়ার জাম ভর্তাটা খুব মজা হয়েছে। তানিম ভাইয়া: সামিয়া দেখো আমি তোমার জন্য জুস নিয়ে এসেছি। সামিয়া আপু: দেখি তো জুস। তামিম ভাইয়া: এই নাও। সামিয়া আপু জুসটি খেয়ে বমি করে দিল।yucky সামিয়া আপু: জুসটির মধ্যে এমন কি আছে তানিম ভাইয়া। তানিম ভাইয়া: ওটা আসলে করলার জুস।gjgjgjgjgj সামিয়া আপু: এএএএএএ!!!!!! কোন ভুল হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৬২ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...