বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

অনুভবে শুধু তুমি♥ (পর্ব-৬)

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Ariya Ibnat (০ পয়েন্ট)



X অনুভবে শুধু তুমি♥ part:6 writer:Tuba Rubaiyat ♦ সন্ধ্যা হয়ে আসছে।।তোহা নদীর তীরের বালুতে খালি পায়ে হাটছে।।তীব্র ও হাটছে ওর পাশে,,,,,হঠাৎ তোহা আহ! করে উঠে পা ধরে নিচে বসে পড়ে,,,,তীব্র তাড়াতাড়ি আসে,,,,, "কি হয়েছে??বসে পড়লে কেন??" "পায়ে কিছু একটা ঢুকেছে,,,,, আহ!!" "দেখি আমাকে দেখাও পা" খালি পায়ে হাটার কারনে তোহার পায়ে ভাঙা শামুকের টুকরো ঢুকে গিয়েছে,,তোহা ব্যাথায় কাতরাচ্ছে।।এটা দেখে তীব্রর রাগ উঠে গেল।। "তুমি এত কেয়ারলেস কেন??বারবার বলছি জুতো খুলোনা,,,, না তোমার জুতো খুলেই হাটতে হবে,,,তারপর বলেছি দেখে হাটো না তুমি লাফালাফি করা শুরু করেছো বাচ্চাদের মত,,,,আর এখন পায়ে কাটা গেথে বসে আছো!!!ইসস কত্তখানি কেটে গেছে,,,!!খুব ব্যথা করছে তাইনা???" তীব্রর কথা শুনে তোহা ভ্যা ভ্যা করে কেদে দিলো,,,,, "এ্যা আপনি একটা খারাপ লোক,,,,,, আমি পায়ে ব্যথা পেয়েছি আর আপনি আমাকে বকছেন!!!"(কেদে কেদে) "আরে আরে কাদছো কেন??এইতো এখন বাচ্চাদের মত কাদছে,,,ইসসস কাদেনা কাদেনা,,,,,,আমি কি সাধে তোমাকে বাচ্চা ডাকি??আর এখন কি করবো??ফার্স্ট এইড বক্স তো গাড়িতে আর গাড়িতো আসিফ রা নিয়ে গেছে।।এখন চুপচাপ বসো আমি দেখছি কি করা যায়!!" তীব্র তোহাকে বসিয়ে ওর পা থেকে শামুকের কনা টা খুলতে লাগল। খুব যত্ম সহকারে আস্তে আস্তে খোলার চেষ্টা করছে।।। এমন ভাবে খুলছে যেন শামুক টাও ওর হাতের জন্য ব্যথা পাবে,,,,,তোহা অবাক চোখে তীব্রর দিকে তাকিয়ে রইল।। তীব্রর কান্ড দেখে তোহার মনে হচ্ছে যেন ব্যাথা তোহা পায়নি তীব্র পেয়েছে।।আজ তীব্রর চোখে অন্য কিছু দেখতে পাচ্ছে তোহা,,,,,এটা কি শুধুই দায়িত্ববোধ???? ক্ষতস্থানে বেধে দেয়ার মত কিছু না থাকায় তীব্র ওর রুমাল দিয়ে তোহার পায়ে বেধে দেয়।।তারপর তোহাকে কোলে তুলে নেয়।। "আরে আরে কি করছেন??নামান আমাকে!!কোলে তুলেছেন কেন??" "বেশি কথা না বলে চুপ থাকো,,,,,তুমি এখন হাটতে পারবেনা,,,,!বেশি নাচানাচি করলে একেবারে ফেলে দেব।।"(ধমক দিয়ে) তীব্রর ধমক খেয়ে তোহা চুপ করে রইল।।না হলে যদি সত্যিই ফেলে দেয়??তখন??চারিদিকে সন্ধ্যা নেমে এসেছে।।হঠাত পাশে তাকিয়ে তোহার চোখ জুড়িয়ে গেল।।অনেক অনেক জোনাকি,,,,,তোহা জোনাকি দেখেই লাফিয়ে ঊঠলো।।ও ভুলেই গেছে যে ও তীব্রর কোলে আছে।।এদিকে হঠাৎ তোহার এভাবে লাফিয়ে ওঠায় তীব্র পড়তে পড়তে নিজেকে সামলে নিলো।। "কি এভাবে লাফাচ্ছো কেন??নিজে কোমড় ভেঙে পরে আমার টাও ভাঙতে চাও নাকি??" "ওই দেখুন কত্ত জোনাকি,,,,,aww ki সুন্দর!!!প্লিজ আমি কয়েকটা ধরবো,,,, প্লিজ প্লিজ,,,,,,," " তুমি কিভাবে ধরবে??পা কেটে গেছে,,,,এখন কি তুমি হাটতে পারবে??" "হুম কি করবো???"(ঠোট উলটে মন খারাপ করে) "ওহ আইডিয়া!!আপনি ধরে এনে দেবেন,,,,,প্লিজ প্লিজ দিন না!!!"(আদুরে গলায়) তোহার এভাবে আদুরে গলায় বলাতে তীব্র না করলো না।।তোহাকে নামিয়ে দিয়ে বলল,,,, "আচ্ছা তুমি এখানে দাড়াও আমি এনে দিচ্ছি।।" ,তীব্র কয়েকটা জোনাকি ধরে মুঠো করে নিয়ে তোহার কাছে এলো,,,,,,, "তোহাপাখি হাতটা দাও তো,,,,," "তোহা দুহাত আজলা করে বাড়িয়ে দিলো।।তীব্র তোহার হাতে কয়েকটা জোনাকি দিলো।।জোনাকি গুলো তোহার হাতে কিচ্ছুক্ষন থেকে উড়ে চলে গেল।।তীব্র তোহাকে কোলে নিয়ে আবার জোনাকি গুলোর কাছে নিয়ে গেল।।।তীব্রর কোলে থেকেই তোহা হাত বাড়িয়ে জোনাকি ধরার চেষ্টা করছে,,,,আর হাসছে।।তোহার গালের টোল টা খুব স্পষ্ট ভাবে বোঝা যাচ্ছে,, জোনাকির আলোতে তোহার মুখ আরো মায়াবী দেখাচ্ছে।।।।।।ওরা কিছুক্ষন পর বাড়ি চলে আসে।।। বাড়িতে এসেই তীব্র আবার তোহাকে কোলে তুলে নেয়।।রোহান আর আসিফ এভাবে তোহাকে কোলে তোলায় অবাক হয়ে যায়।। "কিরে ওকে কোলে নিয়ে ঘুরছিস কেন??কি হয়েছে ওর??"(আসিফ) "কিছুনা ওই খালি পায়ে হাটতে গিয়ে পায়ে শামুক ঢুকে গেছে!"(তীব্র) "ইজ সী ওকে??" (রোহান) "ইয়াহ!!সী ইজ ওকে,,,,,,, আর আসিফ ফার্স্ট এইড বক্স টা নিয়ে আয় তো,,,,,ড্রেসিং করে দিতে হবে!!"(তীব্র) "আচ্ছা আমি এক্ষুনি নিয়ে আসছি!" তীব্র সুন্দর করে তোহার পা ড্রেসিং করে ব্যান্ডেজ করে দিলো।।তারপর ওকে রুমে দিয়ে এল।।। "একদম হাটাহাটি করবেনা।।পা এখনো ঠিক হয়নি।কিছু লাগলে কাউকে বলবে।ওকে??"(তীব্র) "আচ্ছা!" তীব্র যেতেই নাফিসা এসে ভ্রূ নাচিয়ে বলল,,,,,,,, "কি ব্যাপার কি জানু??এত কেয়ার,,হুম??তলে তলে কি চক্কর চলে??" "কি চলবে মানে??নাথিং ,,,,,, আর যেহেতু ডাক্তার সেহেতু রোগীর প্রতি কেয়ার তো করবেই,,,,,,জাস্ট এটাই আর কিছুনা,,,," "হুম তুই যে একটা বলদ সে ব্যাপারে এত দিন একটু সন্দেহ থাকলেও এখন আর নেই।।এত কেয়ার এসব কিছুই রোগী হিসেবে দায়িত্ব??আমি ১০০%শিওর তীব্র ভাইয়া তোকে লাভ করে,,,,,,ওনার চোখে আমি তোর জন্য ফিলিংস দেখেছি,,,,,আর তুই এটা বলছিস??" "আরে পাগল নাকি??কোথায় আমি আর কোথায় উনি??" "দেখিস আমার কথা মিলিয়ে,,,,," নাফিসা চলে যাওয়ার পর তোহা নাফিসার কথা গুলো ভাবছে,,,,নাফিসা যা বলছিল তা কি সত্যি??তীব্রর এই কয়েকদিনের কান্ড মনে পড়তেই তোহা আনমনেই হেসে দিলো,,ওর সাথে খেলা,,চুড়ি পড়ানো,,লুঙ্গী কান্ড,,সবকিছুই।।আর কেন যেন তীব্র আশেপাশে থাকলে তোহার কাছেও খুব ভালো লাগে।।তীব্রর কথা বার্তা,,চলাফেরা সবকিছুই তোহার ভালোলাগে,।।।,,আজ যখন ওর পায়ে ব্যাথা পেয়েছিলো তখন তীব্রকে দেখে মনে হয়েছিলো তোহার চেয়ে তীব্র বেশি কষ্ট পেয়েছে।।আজ ওর চোখে সত্যিই অন্যকিছু ছিলো,,,,,,!!আচ্ছা সত্যিই কি তীব্র তোহাকে ভালোবাসে??যদি এটাই হয় তাহলে তোহা??তোহাও কি?? যেহেতু পায়ে ব্যাথা তাই তোহা এখন হাটাহাটি করতে পারছেনা,,,বসে বসে বোর হচ্ছিল,,তাই ফোন নিয়ে ঘাটাঘাটি করছিলো।।এফবিতে ঢুকে কি মনে করে রাদিফ আবরার তীব্র দিয়ে সার্চ করল,,,প্রথমেই তীব্রর আইডি পেয়ে গেল।।প্রোফাইলে তীব্রর হাস্যোজ্জল একটা ছবি,,,,,মেরুন কালার শার্ট, কালো প্যান্ট,সিল্কি চুল গুলো কয়েকটা কপালে এসে পড়েছে,মুখে সেই চিরচেনা হাসি।।।ছবিটা দেখেই তোহা একদফা ক্রাশ খেয়ে নিলোwow।।।জুম করে দেখল তীব্রর থুতনির নিচে একটা তীল রয়েছে ,, এটা তো তোহা আগে খেয়াল করেনি।।মেরুন কালার টা খুব মানিয়েছে এমনিতেও মেরুন কালার শার্ট এ ফর্সা ছেলেদেরকে খুব মানায়।।আরেকটা ছবি দেখলো রোহান আর তীব্র কালো শার্ট পড়ে হাসিমুখে দাঁড়িয়ে আছে,,এখানেও দুজনকে খুব হ্যান্ডসাম লাগছে।।কমেন্ট গুলো দেখে তোহার মাথা গরম হয়ে গেল।।মেয়েরা সব পিকে লাভ রিয়েক্ট দিয়েছে,,,,আর কমেন্টের সে কি শ্রী!!!তোহার খুব রাগ লাগছে মেয়েগুলোর উপর।।তবে তীব্র কোন কমেন্টের রিপ্লে দেয়নি দেখে মনে মনে খুশি হয়ে গেল।। রোহান বিকেলে তোলা তোহা আর তীব্রর ছবিগুলো তীব্রর ফোনে পাঠিয়ে দিলো,,,,,,তীব্র শুয়ে শুয়ে সেগুলো দেখছিলো,,,,,,তোহাকে অনলাইনে দেখে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট দিলো,,,,,তোহা এক্সেপ্ট করলে মেসেজ দিলো,,,, "পায়ের কি অবস্থা এখন?? ব্যাথা করছে??"(তীব্র) "বেশি নেই,,,,অল্প অল্প ব্যাথা আছে।"(তোহা) "আমি আসিফের কাছে ওষুধ পাঠিয়ে দিয়েছি,,,,,খেয়ে নিও।। ব্যাথা সেরে যাবে ইনশাআল্লাহ,!!! " "আচ্ছা খাবো।" "ওকে অনেক রাত হয়েছে ঘুমিয়ে পড়।" "গুড নাইট।" "ওকে গুড নাইট। " **---------*****---*-----*----***---- মাঝরাতে,, নাফিসার ঘুম ভেঙে যায়।।পানির তৃষ্ঞা পেয়েছে।।পাশের জগে পানি ছিলনা,, তাই পানি খেতে নিচে আসে,,,,,,কিচেনে যাবে এমন সময় দেখে কে যেন ঘরে হাটছে।।কালো হুডি পড়া,,,চেহারা বোঝা যাচ্ছেনা।।সে ধীরে ধীরে আসিফের ঘরের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে,,,,,,,নাফিসা ভাবলো,,,, "আরে এটা কে??চোর নয়তো??নিশ্চই চোর হবে!না হলে এত রাতে এভাবে হুডি পড়ে মুখ ঢেকে হাটবে কেন??এখন তো চিল্লানো ও যাবেনা।।যদি আমাকে এসে মেরে দেয় তো!!!কি করা যায়??ইয়াহ!আইডিয়া!!! এবার যাবে কোথায় চান্দু??নাফিসার হাত থেকে পালানো এত সোজা না।।আমাদের বাড়িতে চুরি??? দাড়াও দেখাচ্ছি মজা।।(মনে মনে) নাফিসা পাশ থেকে ওর দাদুভাইয়ের লাঠিটা নিয়ে লোকটার দিকে এগিয়ে গেল।।তারপর হঠাত মাথায় বাড়ি দিয়ে উরাধুরা পেটাতে শুরু করলো।।আর জোরে জোরে চিৎকার শুরু করলো,,,,,,,, "ওরে ধরছিরেএএএএ!!চোর ধরছিইইই!!আম্মু,আব্বু, ভাইয়া সবাই ওঠোওওওওও!!!চোওওওওওওর!!" নাফিসার চিতকারে সবাই ধরফরিয়ে জেগে উঠল।।।সবাই এসে তাড়াতাড়ি লাইট জ্বালালো।।।লাইট জ্বালিয়ে সবার চোখ কপালে!!!! আর বেচারা চোর,,,,,,,,,,,,,,,!!! (চলবে) strongstrongstrong


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১২৭৯ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...