গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !
নোটিসঃ কর্টেসি ছাড়া গল্প পাবলিশ করা হবেনা । আপনারা গল্পের ঝুড়ির নিয়ম পড়ে নেন ।

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান ... গল্পেরঝুড়ি একটি অনলাইন ভিত্তিক গল্প পড়ার সাইট হলেও বাস্তবে বই কিনে পড়ার ব্যাপারে উৎসাহ প্রদান করে... স্বয়ং জিজের স্বপ্নদ্রষ্টার নিজের বড় একটি লাইব্রেরী আছে... তাই জিজেতে নতুন ক্যাটেগরি খোলা হয়েছে বুক রিভিউ নামে ... এখানে আপনারা নতুন বই এর রিভিও দিয়ে বই প্রেমিক দের বই কিনতে উৎসাহিত করুন... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান ... গল্পেরঝুড়ি একটি অনলাইন ভিত্তিক গল্প পড়ার সাইট হলেও বাস্তবে বই কিনে পড়ার ব্যাপারে উৎসাহ প্রদান করে... স্বয়ং জিজের স্বপ্নদ্রষ্টার নিজের বড় একটি লাইব্রেরী আছে... তাই জিজেতে নতুন ক্যাটেগরি খোলা হয়েছে বুক রিভিউ নামে ... এখানে আপনারা নতুন বই এর রিভিও দিয়ে বই প্রেমিক দের বই কিনতে উৎসাহিত করুন... ধন্যবাদ...

হৃদয়ের মাঝখানে-৩

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ♥Imran khan♥ (০ পয়েন্ট)



♥হৃদয়ের মাঝখানে♥ . পার্ট-০৩ . আদি রেস্টুরেন্টে ডুকেই উপমাকে দেখে তার মাথায় 100 ভোল্ডেজ এর বাতি জলে উঠলো,,,, রাগে মাথা পুরো গরম হই গেছে,,, আদি :আজকে ওকে আমি এমন কিছু করবো যে আদি চৌধুরীকে Insalt. করার নামই মুখে আসবে না,,,, উপমা :নিলু তোর হিরো সালম চলে আসছে,, থুক্কু হিরো আলম,,, নিলা :ওই এভাবে বলছ কেন আমার কষ্ট লাগে,,, উপমা :বাবারে যেভাবে আসতেছে,,, আর রাগে তো মুখটা পুরো মরিচের মতো লাল হই গেছে,,, আমার মনে হয় কালকের কথাগুলো,,, বানুর পোলার গায়ে লাগছে,,,, নিশ্চয়ই আমারে আজকে কিছু একটা করবে,, কিছু করতে আসলে,,, আমি কি কম নাকি,, মাথায় শয়তানি বুদ্ধির অভাব নাই,,,, আমি ও দেখাই দিতে পারবো,, আদি :Bro,, ওই মেয়েটা এখানে কি করে? (অন্তরকে উদেশ্যে করে) অন্তর :ভাই ওরা দুই জনই আমার সালি……… আর শুন কালকের সব কিছু মিটে গেছে কোনো বেজাল করিস না প্লিজ,, আদি :হুম, ঠিক আছে,,, হাই ভাবিজি,,, HOW ARE YOU? WHAT’S YOUR NAME? নিঝুম :হুম ভালো,, আমার নাম নিঝুম,, আপনি? আদি : very fine,, Am Adi Chowdury,, নিঝুম :হু…..হ,,, আদি :আচ্ছা, আপনার দুজন কথা বলেন আমি আসি,, নিঝুম :আরে কই যান বসেন? আদি :এই তো পাশের টেবিলেই আছি,,,, আদি :Hi, two in Baby? (নিলা আর উপমার সামনের চেয়ারে বসে) উপমা :Hlw Fafa,,,,(একটা হাসি দিয়ে) আদি :What nonsense,, আমি আপনার পাপা হলাম কবে? নিঝুম অন্তর ও আশে পাশে যারা ছিল তারা হেসে দিল,,,, উপমা :কেন পাপা,, আমরা আপনার বেবি হলে আপনি তো আমাদের পাপাই হবেন? Am I right Sweetheart,, (নিলাকে চোখ টিপ দিয়ে) নিলা :কথাটা কিন্তু তুই ঠিক বলছচ,, আদি :গাইয়া মেয়ে গুলো কোথাকার,, বেবি কাকে বলে সেটাও এখনো মা-বাবা শিখায় নি,, শুধু শিখিয়েছে মানুষের সাথে রাস্তায় কিভাবে ঝগড়া করতে হয়! Rabish,, এইগুলার সাথে কথা বলে আমার মুখটাইই নস্ট করলাম,, হু……………হ নিঝুম :আপনার বন্ধুকে বারন করেন,, না হলে আজকে ওনার অশেষ দুঃখ আছে কপালে,,, উপমা একবার খেপলে কিন্তু,,, অন্তর :Wait আমি দেখছি,,,, উপমা :ওই কি কইলি তুই কি কইলি,, আমরা গাইয়া মাইয়া,,, হো আমরা গাইয়া মাইয়া তোর কোনো সমস্যা,, যাস না যা যারা English বলে তাদের সাথে গিয়া কথা বল,,, আমগো মতো গাইয়ার কাছে কি? এহ…..হ Australia থাহছ বইলা,, যে তোদের মতো 3rd class. এর পোলাগো মতো ইংলিশ বলবো,, সেটা না,, ১৯৫২. সালে,,, রফিক, জব্বার, ইত্যাদি যারা আছে ভাষা শহীদ তারা কেন মরছে,, কেন বলতো,, শুধু মাএ এই বাংলা ভাষার জন্য! একটা কথা বলে দেই আমাদের বাংলাদেশের ভাষারে যদি গাইয়া বলছ তো,, আপনার জিব টেনে ছিড়ে দিবো ছিনিস,, তখন রাস্তায় দেখবো,, মানুষ আর বলবো,, জিব কাটা মোল্লা,, দেখমো তখন কেমন লাগে! ওই নিলু একটু পানি দেতো গলা শুকাই গেছে! (বসা থেকে উঠে দাড়িয়ে) অন্তর gjmg,,, উপমা কি মেয়ে নাকি অন্য কিছু,, আমি শুনে তো অবাক হইলাম,, আদি এই আদি,, চল বাসায় চল,, এখানে আর এক মূহূত তোর থাকা চলবে না! Let’s go? আদি :Just a minutes,, এই মেয়ের সাহস দেখে তো আমি অবাক হচ্ছি,, কার সাথে পাঙা নিতে আসে সে,,, এতোগুলো মানুষের সামনে আমাকে,, এই আদি চৌধুরীকে অপমান করা,, Wait এই মেয়েকে তো আমি পুলিশে দিবোই,, এখনি আমি ফোন করছি পুলিশ কে,, অন্তর :আদি তুই এসব কি পাগলামি করছিস সামান্য একটা কিছুর জন্য পুলিশকে ফোন,, আদি থাম বলছি,, আর বাসায় চল,, উপমা :না জিজু ওনি পুলিশকে ডাকুক সমস্যা কি কে কার পাঙায় পরছে তা এখনি দেখা যাবে! অন্তর :শালি সাহেবা আপনিও,, নিঝুম :উপমা তুই এসব আবার শুরু করলি,, তোর আগের সেই কথাগুলো মনে নাই! অন্তর :মানে কি কথাগুলো,, উপমা :চুপ একদম চুপ,, তোরা এমন কেন বন্ধুর একটু সুখ দেখতে পারছ না আবার সেই কথাগুলো কেনো মনে করাই দেস………………… বলেই কান্না করতে করতে দৌড়ে গিয়ে গাড়িতে বসলো,, এবং কান্না জুরে দিলো! অন্তর :আরে ওর কি হইছে চলে গেল যে,, উপমা এই উপমা,, নিঝুম :ডাকবে না ও কান্না করুক করে শান্তি পাক,, মনের সব কষ্ট দূর হোক! কিছুক্ষণ পর………………. নিলা :চল নিঝুম উপমার কাছে যাই! নিঝুম :হুম চল………… আমরা আসি হে কালকে দেখা হবে, অন্তর :আমি কি তোমকে নিতে ভার্সিটিতে যাবো! নিঝুম :সেটা আপনার ইচ্ছে (একটা মুছকি হাসি দিয়ে) দুজনেই চলে গেল ………………… NEXT DAY………………… আদি :Bro এই মেয়ে তো দেখি আস্তো গুন্ডী,, . দেখ কীভাবে ওই ছেলেটাকে দমকাচ্চে,,, অন্তর :এই তোর আর কোনো কাজ ওর পিছে এমন পরে থাকছ কেন,,, সেই প্রথম দিন থেকেই তোকে দেখছি ওর সাথে খারাপ ব্যবহার,,, আর কথা বলে যাচ্ছিস ….. একটু সুন্দর করে কথা বলতে পারিস না। । আদি :সুন্দর করে কথা বলব,,, তাও এই গাইয়া মেয়েদের সাথে,, No way bro, no way,, ওদের মতো মেয়েদের সাথে এই রকম ভাবে কথা বলাই উচিত,,,, রাস্তার মেয়ে কোথাকার,,, অন্তর :আদি মনে রাখিস এটা তোর শহর না,,, এটা বাংলাদেশ,,, আর ওকে যখন চিনবি তখন বুঝবি,,,, । । অন্তর বলেই মোবাইল টিপতে টিপতে ভার্সিটির ভিতরে দরজা দিয়ে চলে গেল। আদি :ও কি বলে গেল আমাকে? দেত আমার মাথায় নেওয়ার দরকার নেই,,,(বলেই গাড়ির উপর সামনের দিকে উঠে বসে পরলো) অন্যদিকে ……… উপমা :কিরে টন্টু,, ও সরি মন্টু,, তুই নাকি ওরে রোজ ডিস্টার্ব করছ,, ওর ওরনা ধরে টান দেছ রাস্তায়,, কথা কি সত্যি,,(নিধির কাদে হাত দিয়ে হেলান দিয়ে) . মন্টু :হ….. সত্যি,, তোমার কোনো সমস্যা, নাকি তোমারেও করতে হইবো! এমনিতেও যে পরিমাণ হট আছো! কোনো ছেলে দেখলে পাগল হই যাইবো,, উপমা :ও আচ্ছা তাই নাকি,, তুই কি পরচছ নাকি,, মন্টু :হো পরছি, একটা রাত দিবা নাকি জান,, উপমা :দিবো নিবি,, মন্টু উপমার দিকে এগিয়ে আসছে,, আদি :আরে এই মেয়ে ওর মতো খারাপ লোকের কাছে কি করছে,, যদি এখন উলটা পালটা কিছু করে দেয়,,দেত ওর কথা আমি ভাবছি কেন, । ।উপমা :নিধি দরতো আমার কেপ মোবাইল আর বেগটা ………. নিধির হাতে সবকিছু দিয়ে,, উপমা :একটা রাত যখন তোরে আমি দিবোই, তখন কিছুক্ষণ হাডুডু খেলে নেই কি বলছ,, মন্টু :তুমি যা বলবে তাই হবে জান,, একজন :বস এই মেয়ে যেই মারামারি পারে এখন কিন্তু আপনার অবস্থা পুরো খারাপ করে দিবে,, (মন্টুর কানে কানে, তারই একজন সাথের) . মন্টু :দেখা যাক কে কেমন পারে,, উপমার মারামারি শুরু,, উপমা যা কেরাটি পারে তা আজকে মন্টুর উপর প্রতিক্রিয়া করাচ্ছে উপমা,, আদি :Just wow মেয়েটা এতো সুন্দর কেরাটি পারে,, আমার তো ওর থেকে ক্লাস নেওয়া উচিত,, এই না না, দুর আমি কি সব আজে বাজে বকছি ওর মতো গাইয়া মেয়ের থেকে ক্লাস আমাকে পাগল পাইচে নাকি,,(গাড়ি থেকে লাফ দিয়ে নিছে নেমে দাড়িয়ে) উপমা So, মন্টু, Kase laga mere carati ………. নিধু ফোনটা দেতো ……… নিধি :এই নিন আপু,, উপমা পুলিশের কাছে ফোন করলো এবং পুলিশ আসতে,, মন্টু উপমার মার খেয়ে নিচে কাত্রাচ্চে,, । । কিছুক্ষণ পুলিশ আসলো ——————– ওখানে মানুষ জমেও গেছে,, আদি সেখানে গেলো,, আদি :আজকে এই মেয়েটার নামে আমি complain করবোই,, আমাকে কালকে মানুষের সামনে অপমান করছে Stupid, উপমা :এই তো আঙ্কেল চলে আসছে,, পুলিশ :কেন ডাকছো মামুনি? উপমা :আঙ্কেল, এই যে এই ছেলেটা (মন্টুকে উদেশ্যে করে) প্রতিদিন এই ভার্সিটির কোনো না কোনো মেয়েকে ডিস্টার্ব করছে,, তাদের মান সম্মান নিয়ে খেলা করছে,,, রাস্তায় তাদের পথ আটকিয়ে খারাপ কথা বলছে,, তাদের ওরনা ধরে রাস্তার মানুষের সামনে টান দিচ্ছে,, তাই আমি আজকে ওকে উচিত শিক্ষা দিয়েছি যেন ২য় বার কোনো মেয়ের সাথে এমন না করে,, . পুলিশ :great মামুনি Great,, তোমার মতো এখন কার যুগে মেয়ে ধরকার যারা অন্যায়ের প্রতিবাদ করবে,,(উপমার দুকাদে হাত দিয়ে ঝাকিয়ে) যারা এমন মানুষকে কোনো ভয় না করে চলবে! তোমার কি দরকার ছিল ওকে মারার, আমাকে ফোন করলেই তো পারতে,, তোমার বাবা যদি এখন যানে আমাকে বকা দিবে না! বলবে আমি থাকতে তুমি কেন ওরে মারতে গেছো,, আর তোমার কিছু হয় নাই তো! । । উপমা :আমার কিছু হয়নি আঙ্কেল, আর বাবা যেন এই সব একদম না জানে ঠিক আছে,, পুলিশ :ঠিক আছে মামুনি,, এই ওটাকে উঠা গাড়িতে সালাকে আজকে রাম দোলাই দিবো,, উপমা :wait আঙ্কেল, শুন মন্টু এইসব কাজ ছেড়ে দে কি লাভ এইসব করে, তোর বাসায় কি তোর মা বোন নাই, ওদের কথা একবার ভাব আমাদের কথা না হয় বাদ ই দিলাম,, তোর মা কিংবা বোনকে যদি কেউ এই রকম ভাবে রাস্তায় ডিস্টার্ব করে,, তখন তোর কাছে কেমন লাগবো,,, খুব খারাপ লাগবে ঠিক না! ঠিক তেমনি আমাদের বাবা ভাইদের কাছেও লাগবে! Next time যদি কাউকে এইরকম কিছু করার কথা ভাবিস তাহলে এখন যা দিসি না তার ডাবল খাইবি,,, আঙ্কেল এখানের সব কটাকে নিয়ে যান,, যতদিন না ওরা ভালো হয় ততোদিন আটকে রাখবেন,,, । মন্টু ও তার সাথে যারা ছিল কিছু ভেগেছে, আর কিছু পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে,,,, নিধি :Thank you so much আপ্পি,, (উপমার গালে একটা কিস করে) আপ্পি তুমি আমার এতো বড় একটা কাজ করে দিছো, সত্যি আমি তোমার কাছে চির ক্রিতজ্ঞ,, উপমা :এই এভাবে বলিস কেন, তোদের বড় আপ্পি হিসেবে এটা আমার দায়িত্ব,,, এখানের সব কটা মেয়েকে বলে দিচ্ছি,, অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে শিখো, ভয় পেলে চলবে না। কেউ তোমাদের সাথে অন্যায় করে আর তুমি তা মুখ ভুজে মেনে নিবে,,, তখন তোমাকে সে আরো অত্যাচার করতে শুরু করবে,, আমাদের এখন অনেক ক্ষমতা আছে,,, আর কারো কোনো সমস্যা হলে এই আপ্পির কাছে আসবা সমাধান করে দিবো,,,, । ।বলেই ভার্সিটির ভিতরে চলে গেল। আদি অভাক দৃষ্টিতে উপমার যাওয়ার দিকে তাকিয়ে রইলো,,,, আদি :এই মেয়ে এতো সতিলক্ষী আমার জানা ছিল না,,,, কতো ভালো মেয়েটা! নিধি :ভাইয়া মুখ বন্ধ করুন মশা ডুকবে,,,, আদি লজ্জা পেয়ে মুখ বন্ধ করলো,, নিধি চলে যেতে নিলেই,,,, আদি :আপু শুনেন,, নিধি :জি বলেন? আদি :ওই কেপটা আমাকে দিবেন? নিধি :এটা তো উপমা আপুর কেপ আপনি নিয়ে কি করবেন,,, আদি :এখানে যে একটু আগে এইসব করলো তার নাম কি? নিধি :আপুর নাম উপমা খান,, কিন্তু আপু উপমা খান না বলে উপমা রাহমান বলে,, মা-বাবার অনেক আদরের একটি মাএ মেয়ে,, সব কিছুতে Expart,, । । আদি :উপমা রাহমান কেনো লাগায় নামের শেষে? আর আমাকে ওটা দিয়ে যান প্লিজ,, নিধি :আমি আসলে ওতো কিছু জানিনা,,, আপনি যখন এতো করে কেপটা চাইছেন এই নিন,, আমি আপুকে বলে দিবো এটা আপনি নিয়েছেন,,, আদি :এই না না আমার নাম বলতে হবে না,, বলবেন এটা আপনি কোথাও রেখেছেন মনে নাই,,, নিধি :আচ্ছা ঠিক আছে,, নিধি চলে গেল,, কিছুক্ষণ পর আদি উপমার ক্লাসে হাজির,,, । । চলবে …………………..


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৯৭০ জন


এ জাতীয় গল্প

→ গল্পঃ হৃদয়ের কথা
→ হৃদয়ের ব্যাধি দূরীকরণ
→ চিরকুমার হৃদয়ের প্রেম
→ হৃদয়ের স্পন্দন (part 7)
→ হৃদয়ের স্পন্দন (part 6)
→ হৃদয়ের মাঝখানে-১০
→ হৃদয়ের মাঝখানে-৯
→ হৃদয়ের মাঝখানে-৮
→ হৃদয়ের মাঝখানে-৭
→ হৃদয়ের মাঝখানে-৬

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...