বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

নতুন জামা

"শিক্ষণীয় গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Md Raz Khan (০ পয়েন্ট)



X র্গামেন্টস কর্মী,, মাসিক বেতন দিয়ে নিজের জীবনটা কোন মতে কাটিয়ে দেয়,,এই নিষ্ঠুর পৃথীবিতে কে তার আপন আর কে তার পর তা সে জানে না।জ্ঞান হওয়ার পর থেকে শুধু রাস্তাই দেখে যাচ্ছে আর ব্যস্তময় একটা শহর,,কে তার বাবা আর কে তার মা তা সে জানে না,,ছোট সময় একটা বুড়ি তাকে পালত সেও তাকে ছেড়ে অজানায় পাড়ি দিয়েছে,,এখন সেই বুড়ির ছোট ঘড়টাতেই সোহাগ থাকে,,আর ব্যস্তময় শহরে খাওয়ার জন্য আর চলার জন্য র্গামেন্টসে চাকুরি করছে,,মাসিক বেতন দিয়ে পুরো মাসটা ভালোই কেটে যায় তার,,রমাজান মাস চলছে কিন্ত সে রোজা রাখতে পারছে না,,,এত কষ্ট করে কেউ রোযা রাখতে পারে নাকি,,মাঝেমাঝে সে রাতে আকাশের দিকে তাকিয়ে ভাবে হয়ত বাবা মা থাকলে তাকে এত কষ্ট করতে হত না আর সবার মতো রোযাও রাখতে পারত।আবার মাঝেমাঝে আকাশের ঔ চাঁদটাকে হাজারো প্রশ্ন ছুড়ে মারে কিন্তু কোন উওর মেলে না,, আর তাই সোহাগ মনে করে চাঁদ টাও বুঝি তার মতো,,এমন করেই তার দিন কেটে যায় সোহাগের,,ব্যস্তময় শহরটা আরও ব্যস্ত হয়ে উঠেছে কারন ঈদ এর বাকি আর মাএ তিন দিন তাই,,,সোহাগ এবার ঈদে একটা পান্জাবি আর একটা শার্ট কিনবে,,, আজ সোহাগ র্গামেন্টস থেকে ছুটি দিয়েছে ,,আর বোনাস টাকা ও পেয়েছে,, সেই খুশিতে সোহাগ এখন কেনাকাটা করতে যাবে,, সন্ধায় কেনাকাটা করতে বের হয়েছে সোহাগ বড় কোন দোকান থেকে তো আর কিনতে পারবে না তাই এই ফুটপাত তার কাছে অনেক কিছু,,,যেতে যেতে হঠাৎ দেখতে পেল একটা বাচ্চা একটা লোকের কাছে ভিক্ষা চাচ্ছে লোকটাকে দেখে অনেক টাকা ওয়ালা মনে হচ্ছে সোহাগের,,লোকটা এক র্পযায়ে বাচ্চাটিকে জিজ্ঞেস করছে কি করবি টাকা দিয়ে বাচ্চাটি বলল একটা জামা কিনব ঈদের জন্য বলার সাথে সাথে লোকটি বাচ্চা টিকে ধাক্কা মেরে বলল গরিবের আবার শখ কত নতুন জামা কিনবে এই বলে চলে গ্যাল,,,বাচ্চাটি রাস্তার এক কোনে গিয়ে চুপচাপ বসে রইল আর চোখ থেকে মনের আজান্তেই বুঝি অশ্রু পড়ছে,, সোহাগ বাচ্চা ছেলেটির পাশে গিয়ে বসল এবং বাচ্চাটির কাধে হাত রেখে বলছে শোন ওরা হচ্ছে কোটি টাকার ফকির,,, ফাও ওদের কাছে হাত পেতে মুখ নষ্ট করিস কেন,,বাচ্চাটি কিছু না বলে চুপ করে রইল কাঁদছিস কেন??আমি তো আছি চল আমি তোকে নতুন জামা কিনে দেব,,, শোন আমি কিন্তু তোকে নামি দামি কোন দোকান থেকে কিনে দিতে পারব না,,, কারন আমার ওত টাকা নেই বুঝলি,,বাচ্চাটি অবাক হয়ে তার দিকে তাকিয়ে রইল,,, কিরে এমন করে তাকিয়ে আছিস কেনো,চল বাচ্চাটিকে দোকানে নিয়ে জামা কাপর কিনে দেয়,,, হঠাৎ বাচ্চাটি জিজ্ঞেস করল ভাইয়া আপনি কিছু কিনবেন না,,, সোহাগ এক কথায় বলল আমাকে নিয়ে তোর ভাবতে হবে না,,, বাচ্চাটিকে জামা কাপর কিনে দেওয়ার পর বাচ্চটি খুশিতে কেঁদে দেয়,, সোহাগ বাচ্চাটির হাসি মুখ দেখে সোহাগ ও খুব খুশি হয়,, বাচ্চাটিকে কিনে দিয়ে বাসায় আসে সোহাগ আর ভাবে যা হয়েছে ভলোই হয়েছে,,, আমি কিনতে পারি নাই তো কী হয়েছে বাচ্চাটির মুখে তো হাসি ফোটাতে পেরেছি তাতেই আমার নতুন জমা পড়া হয়েছে,,,,,,"""সবাইকে রইল ঈদের শুভেচ্ছা"""


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২০০ জন


এ জাতীয় গল্প

→ নতুন জামা

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...