গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

গল্পেরঝুড়িতে স্বাগতম ...

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

মজার গল্প

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Md:Sajid Al Masik (০ পয়েন্ট)



কলেজে যাব এমন সময় পিছন থেকে কে জানি ডাকছে নীল ওই নীল পিছনে তাকাই দেখি বাধন কিরে মামা কি বল ! মামা আজকা চিন্তা করেছি তুই আমি সজিব-তপু মিলে খেজুর রস চুরি করবো রাতে । কি বলিস রাতে থাকবি তো ? হুম থাকবো ! কিন্তু আমার শর্ত আছে রাতে নীলাদের বাড়ির উপর দিয়ে যাবো খেজুর বাগানে । তাহলে যাব চান্দু না হলে যাবো না ! কিন্তু তুমি চান্দু আগের বারের মতো ভুতের ভয়ে পালাবা নাতো । আরে না পালাবো না তখন ছোট ছিলাম এখন বড়ো হইছি না এখন আর ভয় পাই না ! ওহ তাই মামা ! সে তো রাতে দেখা যাবে আপনি বড়ো হইছেন না কি ? ওকে রাতে থাকবো বাই ! ওকে বাই মামা ! রাতে সবাইর সাথে খাওয়ার টেবিলে বসলাম এমন সময় সজিব এর ফোন ! ফোনটা রিসিভ করলাম কিরে নীল আসবি না নাকি আমরা অপেক্ষা করছি জলদি আয় সালা । কোন রকম ডিনার করে রোডে গেলাম । তপু- বাধন-সজিব আরে মামা না আসলেই পারতা ? আরে শোন যত রাত করে যাবি ততো ভালো বোকা ! আরে যতো রাত হবে ততো মজা হবে কি কস বাধন ? হুম মানে ! আমার সাথে- সাথে তপু বন্ধু তুই থাকিস ? তপুঃ কেন রে ? বাধন তুই না বড়ো হয়ে গেছোত ? সজিবঃ হি হি হি তাই তো ! বাধনঃ হুম অব্যশই বড়ো হইছি যা তোদের কাওকে আমার সাথে-সাথে থাকতে হবে না ! ওকে ! নীলঃ মামারা সবাই শোন যদি নীলাদের বাসার উপর দিয়ে গেজুর বাগানে যাও তাহলেই আমি যাব না হলে যাবো না ! তপু- সজিব-বাধন যা যা তোর যাওয়া লাগবে না ! লও ঠ্যালা ! কি করবো কি বলবো চিন্তা করছি! আইডিয়া ! সজিব এদিক আয় দোস্ত শুন হুম বল ! দোস্ত শুন নীলার একটা বান্ধবি আছে না সারা হুম তো ! ও না তোকে খুব লাইক করে এটা নীলাকে বলছিল অনেক-দিন আগে ! আজ ভাবছিলাম তোকে ব্যাপারটা বলতাম আর নীলার সাথে সারাকে তোর সাথে দেখা করাইতাম দূর থেকে ! থাক আরেক-দিন দেখা করাবো ওকে বাই ! সত্যি দোস্ত ! হুম সত্যি দোস্ত ! ওই তপু-বাধন সালার পো আয় নীলা ভাবীগো বাসার উপর দিয়া যাবো ! আমিও নীলাকে কল দিয়া পুকুরের ওপারে আসতে বললাম ! নীলা আসলো পুকুরের ওপারে ! সজির্বঃ মামা সারা কই ? মামা সারা তো বাসায় ঘুমাচ্ছে ! মানে ! মানে ঘুমাচ্ছে ! সালার পো ধারা তোর খবর আছে ! তপু আর বাধন হি হি করে হাসছে আর বলছে চান্দু যাও যাও নীলের কথা শুন আরো ! নীলের বক্ত্য আইছে ! হি হি হি লও ঠ্যালা সামলাওও ! খেজুর বাগানে ডোকলাম চুপি-চুপি ! খেজুর গাছের সামনে গেলাম চার-জনে তপু দোস্ত,ভাইয়া,মামা, গাছে ওঠ মামা ! ওঠবো কিন্তু আমার ভাগে বেশি রস দিতে হবে ? হুম হুম ওকে ! বাধন তুই গাছের গোরে থাকবি আর রসের হাড়ি নিবি ওকে ! আর আমরা দু- জনে পাহারা দিব ওকে ! ওকে ! তপু খেজুর গাছে ওঠলো । রসের হাড়ি পেরে তপু গাছের অর্ধেক নেমে বাধন ওই বাধন হাড়ি ধর ! সালা ! কিরে ধর ! মামা ওদিক দেখ এত্তো রাতে সাদা কাপড়ে ওটা কে আমাদের দিকে আসছে ! কি কস অবোল-তাবোল দেখি তো ! আরে সত্যি তো কে আসছে রে আগে হাড়ি ধর ! কে আসছে মানে ! পেত্নী !মামা! পেত্নী নীল সজিব ওই দেখ পেত্নী ! কই দেখি তো ! সত্যি ই তো এত্তো রাতে সাদা কাপড় পরে কে জানি আসছে ! তপু ভাই আর পারছি না হাড়িটা ধর ! আরে বাধন হাড়িটা ধর ! ওকে ধরছি ! ওরে লে হাত ফছকে হাড়িটা বাধানের মাথায় পরলো ও আর বাধন বেহুশ ! আরে কি কান্ড বাধন এই বাধন ওঠ ভাই । আরে পেত্নী আসছে তো ! হুম ! আরে সালা ওঠ পেত্নী আসছে আমাদের দিকে ! লও ঠ্যেলা একদিকে পেত্নী আরেক দিকে বাধন বেহুশ ! যাই হোক তিন-জনে মিলে ওকে নিয়ে একটা তাল-গাছের নিচে লও ঠ্যেলা আবার তাল গাছের নিচে ! কথায় আছে নাঃ . যেখানে বাঘের ভয় সেখানেই রাত হয় । সেটাকে একটু উল্টিয়ে বলছি এখনঃ . যেখানে পেত্নীর ভয় আজ দেখছি সেখানেই তাল গাছ হয় । যাই হোক ভয় নিয়েই তাল গাছের নিচে বসে রইলাম ! একটু পর দেখি সালায় খেজুর গাছের মালিক রহিম চাচা সাদা চাদরে ডাকা গাছের সামনে এসে ভাঙ্গা হাড়িটা দেখে এদিক-ওদিক লাইট মেরে চলে গেলো ! তখন বুঝতে পারলাম আসোলে বেপারটা কি ? যাক এত্তো বড়ো ঠ্যেলার পাওয়ার পর আমরা যা-যা পাইলাম আর কি ! অনেক মজা অনেক ভয় ও সবচেয়ে বড়ো জিনিস যেটা পাইছি সেটা হলো আমার বন্ধু বাধনের মাথায় হিয়া বড়ো একটা আলু হি হি হি! সত্যিই যদিও ব্যাপারটা ভৌতিক ছিল কিন্তু মজারই ও ছিল ।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৮৮ জন


এ জাতীয় গল্প

→ ছেলেবেলার সেহেরী ও রোজা রাখার গল্প
→ এক যুবকের গল্প
→ রাজকুমারী ও বুনোহাঁসের গল্প
→ একজন মহিলা ও তার জুতার গল্প
→ গম্ভীর রানীর গল্প
→ গল্প
→ একটি শিক্ষণীয় ইসলামিক গল্প
→ স্বামী স্ত্রীর এক মিষ্টি প্রেমের গল্প
→ নীল পরীর গল্প
→ রাজা ও রাজকন্যার গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...