বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

অপরূপা (পর্ব ২)

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ESHRAT JAHAN (৩০ পয়েন্ট)



X রনি আর শিকার করলো না।সে যেন নিজেই শিকার হয়েছে কোনো এক অপরূপা নারীর। মূর্তির চেয়েও দেখতে তুমি অনেক সুন্দরীকেউ যেন কভু চেয়ে না বসে,তাইতো সদা ডরি ৷ অন্তরে প্রেমকে জ্বালিয়ে হয়েছ আজ দীপা ৷ অপার্থিব সুন্দর যোগে তুমি অপরূপা ৷ পানির ভেতর মেয়েটিকে কল্পনা করতে করতে কবিতার একটু লাইন বললো। রনি খুঁজলো আনা।কিন্তু কোথাও পেলো না।পরদিন আবার গেলো ওই জায়গায়।কেমন যেন একটা গানের শব্দ হচ্ছে।কাছেই আসতে দেখলো সেই অচেনা মেয়েটি নাচছে।নীল বড় একটা জামা পরেছে।নীল ফুল দিয়ে তার মাথায়,গলায়, হাতে আর পায়ে সাজানো।সে যেন এক নীলপরী। গানের তালে তালে নাচছে এক সুন্দর রমণী।রমণীর চোখে যেন উদ্দীপ্ত আলোর ছায়া।যেন ছেলেটিকে কাছে ডাকছে।বলছে ছেলেটিকে কাছে এসে জড়িয়ে নাও আমায়।মুগ্ধ হয়ে তাকিয়ে দেখছে মেয়েটিকে।নীল যেন তাকে ঘেরে রেখেছে।সেই নীলের মাঝে আছে এক রমণী। মেয়েটি নাচ গান থেমে দিয়ে বললো,"কি দেখছেন?" "আপনি যা দেখাচ্ছেন।" "আনা কি পেয়েছেন?" "আমি সব জায়গায় খুঁজেছি কিন্তু পাইনি।এইযে মাটির ওপর দাঁড়িয়ে কসম খেয়ে বলছি আমি সত্যি খুঁজেছি পাইনি।" মেয়েটি হাসলো।হাসির কারণটা না বলে বললো,"নাচ দেখছিলেন এর বিনিময়ে তো কিছু দিতে হবে।" "কি দিবো?" "৫ আনা।" "আমার কাছে আনা নেই।তবে আমি একটা কবিতা বলে শোধ করতে পারি।" "বেশ, বলেন তবে।" কোকিলের ন্যায় কন্ঠ দিয়ে তুমি কহ কথা ৷ শুনে মম হৃদয়ের মুছে যায় ব্যথা ৷ শূন্য পায়ে কানন মাঝে তুমি যেও না ৷ বিঁধলে কাঁটা পদতলে সইতে পারব না ৷ মেয়েটি কবিতা শুনে বললো,"কবিতা তো দারুন!" "তাহলে আনা দিতে না?" "না।তবে আপনি অনেক ভালো মানুষ।এই যুগে আনা পাবেন না।আপনি তবুও খুঁজছেন।" "আপনার নাম যেন কি?" মেয়েটি হাসে শুধু হাসে।কিছুই বলে না।হাসতে হাসতে চলে গেল।ছেলেটি ভাবলো কালকে কি যেন বলেছিল।ভাবতে ভাবতে মনে পড়লো। বলেছিল ,"ইস কত যে রাত।" ছেলেটি খুঁজে পেল নামটি।নাম হলো ইসরাত।তখন ছেলেটির মন চঞ্চল হয়ে উঠলো।শিকার করার নামে যে ছেলেটি এসেছিল সে নিজেই কাল শিকার হয়েছে কোনো এক রমণীর। কোনো এক রমণী নারী করেছে আমার মন চুরি আমাকে ফেলে দিয়েছে ফাঁদে পড়েছি আমি বিপদে


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৮৫ জন


এ জাতীয় গল্প

→ অপরূপা (৬)
→ অপরূপা (পর্ব ৪)
→ অপরূপা (পর্ব ৫)
→ অপরূপা (পর্ব ৩)
→ অপরূপা (পর্ব ১)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...