বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

প্রেম কি প্রতিশোধ?

"জীবনের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান আঁখি (০ পয়েন্ট)



X নাম : আঁখি এক সুন্দরী মেয়ে মায়া। বাবার একমাত্র মেয়ে। সে ঢাকার একটা মোটামুটি ধনী পরিবারেরই মেয়ে। ভালো স্কুল, কলেজে পড়াশোনা করেছে। কারো সাথে তাঁর ঘন্টার পর ঘন্টা গল্প করতে ভালো লাগে না! ফেসবুকে কারো সাথে ৩মিনিটের বেশি কথা বলে না। আর এজন্যই হয়তো ওকে প্রেমের জালে আটকাতে পারেনি কেউই! আর মায়ার সাথে প্রেম মানে তো এক রাজকুমারী আর অর্ধেক রাজত্বই বটে! অনেক বন্ধু, বান্ধবীর সাথে মায়া দুস্টুমি করত মাঝে মাঝে। এমনি একজন ছিল রাজ। রাজ নামের ছেলেটা প্রায়ই দেখতো মায়াকে। ৬মাস ধরে অনুনয় বিনয় করে রাজি করিয়েছিলো শুধু নিয়মিত কথা বলার জন্য। কেনো যেন,মায়াও রাজি হয়ে গিয়েছিলো। কিন্তু এই নিয়মিত কথা মানেই প্রেমের ফাঁদে ফেলা -এটা যখন মায়া বুঝলো, তখন ই শুরু হলো ঝামেলা! মায়া কথা বলা বন্ধ করে দিলো! রাজের এক ধরনের মানসিক বিকৃতি দেখা গেলো। রাজের মনে একটা জেদ উঠল, "মায়ার সাথে প্রেম করতে পারে নি? কী এমন মেয়ে ও? ওর আশেপাশের সব মেয়েদের সাথে অনেক বেশি রোমান্টিক অভিনয় শুরু করবে, তারপরে মায়া প্রেম করতে চাইলে ওকে ইচ্ছেমতো কাঁদাবে ! এতেই মায়ার মনে পড়বে, রাজের সাথে ও গল্প না করে খুব বড় ভুল করেছে! ওর কোনো রোমান্টিক স্মৃতি তৈরি হতে পারেনি শুধু রাজের সাথে কথা না বলার জন্য!" এই প্রতিশোধপরায়ণ মনোভাবের প্রথম শিকার হলো মনিকা নামের এক মেয়ে, যে কি না মায়ার সাথে একই ডিপার্টমেন্টে পড়ত! অর্থাৎ রাজের ইচ্ছে অনুযায়ী মায়ার চোখে পড়বে, কাহিনী শুনতে পারবে, এমন মেয়ের সন্ধান পেতে রাজ সফল হয়ে গেলো! কিন্তু সমস্যা হলো, মায়া সব জানলেও নির্বিকার। প্রেমের মধ্যে স্বার্থবোধ, অসুন্দর, অকল্যাণ কেনো থাকে? অমুক মেয়ে, তমুক মেয়ে রাজের প্রেমের ফাঁদে পড়েই যাচ্ছে, আর মেয়েগুলোর মানসিক অশান্তিতে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় শেষ! কিন্তু যাকে বিচ্ছিরিভাবে প্রেমরুপি প্রতিশোধ নেয়ার বিষয় বোঝানোর কথা, সে যদি নির্বিকার থাকে, তাহলে রাজের দেনা-পাওনার খাতায় শুধু মন ভাঙার অপরাধগুলোই বাড়তে থাকে! না সে ওই শত শত মেয়েদের যন্ত্রনা, অভিশাপ থেকে মুক্তি পেলো, না "মায়া" নামক দেবীর সান্নিধ্য পেলো! রাজের হয়তো বা এখন মায়া দেবীর দেখা না পেলেও অনেক অনেক মেয়ের সাথে প্রেম করার স্বভাবটা স্থায়ী হয়ে গিয়েছে। কে জানে, এই প্রতিশোধরুপী পৈশাচিক প্রেম কতটুকু আনন্দ দেয়?


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৭০ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...