বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

হৃদয়ের নীলপরী ১৯

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ESHRAT JAHAN (০ পয়েন্ট)



X ইসরাতের বাসার সামনে যেয়ে জোরে জোরে ইসরাতকে ডাকতে লাগলো।ইসরাত বারান্দায় এসে বললো,"কি হয়েছে এমন চিল্লাচিল্লি করছো?" "আমি তোমাকে ভালোবাসি ইসরাত।আমি শুধু তোমাকেই চাই।তোমাকে চাই শুধু তোমাকেই চাই আর কিছু জীবনে পাই না পাই।" "ওরে সালমান শাহ রে তোমাকে চিনি আমি।" "কতটুকু চিনো আমাকে!দুইদিনে কি চিনেছ আমাকে?তুমি আমার লাইফ হিস্ট্রি সম্পর্কেই ঠিকভাবে জানো না।" "যাও বলছি যাও।" "আমি যাবো তোমাকে সাথে করেই নিয়ে যাবো।আমি এখান দাঁড়ালাম এখানেই দাঁড়িয়ে থাকবো।" বিকেল থেকে রাত হয়ে গেল আকাশে প্রচুর মেঘ।যেকোন মুহূর্তে বৃষ্টি নামবে।রনি বাসায় গেল না।দাঁড়িয়ে আছে বাসার সামনে।রাত ১০ টার পর বৃষ্টি নামলো।রনি তারপরে কোথাও গেল না।ভিজতে লাগলো।সারারাত বৃষ্টি হলো।সারাটা রাত রনি ভিজলো ওখানে।সকালে বৃষ্টি থামল।রনি ভেজা কাপড়ে দাঁড়িয়ে আছে ইসরাতকে পাওয়ার জন্য।তবুও ইসরাত এলো না।খুব ক্লান্তবোধ করছিল রনি।শান্ত বাজারে যাচ্ছিল।রনিকে দেখে থেমে গেলো।শান্ত বললো,"কিরে তুই তো পুরা ভিজে গেসিছ।চল বাসায়।" "আমি যাবো না।ইসরাতকে না নিয়ে আমি যাবো না।" "দেখ তোর তো কাপড় সব ভিজে গেসে।" "যাক গে ভিজে আমি তাও যাবো না।আমি ইসরাতকে নিয়েই যাবো।" শান্ত আর কিছু বললো না।দাঁড়িয়ে থাকলো রনির পাশে।রনির মাথা ঘুরছে।চোখ অন্ধকার দিয়ে আসছে। রনির জ্ঞান ফিরলো।প্রচন্ড জ্বর এসেছে রনির।চোখ না খুলেই বিড়বিড় করে কি যেন বলতে লাগলো।কাছে না গেলে বোঝা যায় না কি বলছে।রিফাহ কাছে যেয়ে শুনতে লাগলো রনি কি বলছে।রনি বিড়বিড় করে বলছে,"আমি ইসরাতকে ভালোবাসি তাকেই চাই।তাকে কেউ বোঝাও আমি ভালোবাসি।অনেক ভালোবাসি।আমি আর পারছি না।আমার ভালো লাগে না কিছু।রিফাহ,এই রিফাহ।" "ভাইয়া বলো।" "সে কি এসেছে?" "আসবে।" "সেই কবে থেকে বলিস আসবে আসবে।আসে নাতো।কাল সারারাত ভিজে ভিজে অপেক্ষা করলাম তাও তো এলো না।" "ভাইয়া এখন তুমি খাও।" "সে খাইয়ে দিলে খাবো।তা না হলে আমি খাবো না।খালি ভেঙে ফেলবো।" রিফাহ আর কিছু না বলে বাসায় গেল।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২২৮ জন


এ জাতীয় গল্প

→ হৃদয়ের নীলপরী (শেষ পর্ব)
→ হৃদয়ের নীলপরী ১৮
→ হৃদয়ের নীলপরী ১৭
→ হৃদয়ের নীলপরী পর্ব ১৫
→ হৃদয়ের নীলপরী পর্ব ১৬
→ হৃদয়ের নীলপরী পর্ব ১৪
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব১৩)
→ হৃদয়ের নীলপরী পর্ব ১৫
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব১২)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব ১১)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব১০)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব ৯)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব ৮)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব৭)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...