বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

হৃদয়ের নীলপরী ১৮

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ESHRAT JAHAN (০ পয়েন্ট)



X রনি দরজা লাগিয়ে রুমের এক কোনে ফ্লোরে বসে আছে।সবসময় যেন মনে হয় ইসরাত তাকে কাছে ডাকছে।কিন্তু ইসরাত কিছুই বলে না।আর পিঙ্কির ওপর রনির অনেক রাগ হচ্ছে। রনির আজকেও ঘুম ধরলো না ।সারারাত ফ্লোরে বসে কাটিয়ে দিলো।এইভাবে আর কিছুদিন চললে রনির শরীর অনেক বেশি ভেঙে পড়বে।অন্তত ঘুমটা তো প্রয়োজন।তাই শান্ত আর নীরব সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেললো রনিকে স্পে করিয়ে ঘুম দিয়ে দিবে। সকাল বেলা শান্ত আর নীরব এলো রনির বাসায়।রনির মা গেট খুলে দিল।ভেতরে ঢুকে শান্ত বললো,"আন্টি রনি বাসায় নেই?" "আছে ওর রুমে।ওকে ডাক দাও।" "আচ্ছা আন্টি।রনি কি ঘুমিয়েছে আজকে!" "কি করে বলি রুমের তো গেট লাগিয়েছে।তোমরা ওকে ডাক দেও।" শান্ত আর নীরব রনির গেটে এসে নক করলো।একটু পরে রনি গেট খুলল।রনির গেট খোলার সাথে সাথে স্প্রে মেরে দিলো।তারপর রনিকে বিছানায় সুন্দর করে শুয়ে দিয়ে গায়ে চাদর দিয়ে দিল।এরপর শান্ত আর নীরব রুম থেকে বেরিয়ে এলো।রনির মা বললেন,"রনি কি করে?" নীরব বললো,"ঘুমোচ্ছে।" "ওহ এখন উঠবে।" "না আন্টি ৬-৭ ঘন্টা ঘুমাবে স্প্রে মেরে দিয়েছি।ঘুম থেকে উঠলে খায়ে দিবেন।এখন আমরা যাই।" বিকেলে রনি ঘুম থেকে উঠলো।রনির মা খাবার রেডি করে আনলেন রনির জন্য। রনি বললো,"মা ইসরাত কি আমার কথা আমাকে বুঝবে না?" মা খাবার মুখে দিয়ে বললেন,"হ্যা বাবা ঐতো বলেছে আসবে।তোকে সারপ্রাইস দিবে।এখন খেয়ে নে।না খেলে ওর সামনে দাঁড়াবি কি করে!চেহেরার যে অবস্থা হয়েছে মরা মরা।তাজা তাজা চেহেরা কর ভালো হবে।" "আচ্ছা রিফাহ একা আসে কেন?ইসরাতকে সাথে করে নিয়ে আসলেই তো পারতো।" "হুমম আজকে।নে খা।" "খাচ্ছি তো।অনেক খেয়েছি আজকে।পানি দাও।" "আর একটু খা।" এই সময় রিফার রনির রুমে ঢুকলো।রিফাহকে দেখে রনি বললো,"এই ইসরাত কোথায়?কিরে চুপ কেন বল।মা রিফাহ কিছু বলছে না কেন?" রিফাহ বললো,"ভাইয়া ইসরাত তোমার কথা শুনতেই পারে না।রেগে যায়।আর তাহলে আসবে কি করে?কয়েকদিন ধরে তো দেখছ।" "মা রিফাহ এইসব কি বলে!ইসরাতকে আনেনি কেন?আর তুমি মিথ্যুক আমাকে মিথ্যা বলো।সবসময় বলো তোমরা কেউ ভালো না।ইসরাতের কাছে যেতে দাও না।তোমরা অনেক খারাপ।" রনি প্লেট ফেলে দিলো ফ্লোরে।এই কয়েকদিন অনেক কিছু ভেঙে ফেলেছে। চিৎকার করে বললো,"আমি কিছু জানি না আমার ইসরাতকে চাই।আর তুই যা বের হ আগে ইসরাতকে নিয়ে আসবি যা বের হ।" রনি রিফাহর হাত ধরে টেনে নিয়ে যেয়ে বের করে দিল।রনি এখন সবকিছু চিৎকার করে বলছে।রিফাহ বললো,"ভাইয়া ইসরাত না আসলে কি করবো!" "কেন আসবে না?সে আজকে আসতে চেয়েছে তুই জানিসনি।যা আন বলছি।" "ভাইয়া বোঝার চেষ্টা কর।" "না বুঝি না।তুই যাবি না আমি যাবো।" রনি বের হলো।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৯৯ জন


এ জাতীয় গল্প

→ হৃদয়ের নীলপরী (শেষ পর্ব)
→ হৃদয়ের নীলপরী ১৯
→ হৃদয়ের নীলপরী ১৭
→ হৃদয়ের নীলপরী পর্ব ১৫
→ হৃদয়ের নীলপরী পর্ব ১৬
→ হৃদয়ের নীলপরী পর্ব ১৪
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব১৩)
→ হৃদয়ের নীলপরী পর্ব ১৫
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব১২)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব ১১)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব১০)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব ৯)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব ৮)
→ হৃদয়ের নীলপরী (পর্ব৭)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...