বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্ববারস ৮

"জীবনের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ESHRAT JAHAN (০ পয়েন্ট)



X মোজাহিদ এলো সাথে তামিম আর মাহমুদ।এসেই মোজাহিদ বললো,"কই ইসরাত?" রুবাইয়া আপু বলল,"ঘরে।" মোজাহিদ ,তামিম আর মাহমুদ আমার কাছে এলো।এসেই আমার বাধন খুলতে যাচ্ছে।এমন সময় রেহনুমা আপু বলল,"না না আগে টাকা তারপর ওকে ছাড়িয়ে দিতে হবে।" একটু পরে দেখি ফাহাদ এলো।আমি বললাম,"এই তুমি এখানে কেন?" ফাহাদ বললো,"এরা তো আমাকে এখানে আসতে বললো।তা এই অবস্থা কেন তোমার?" "টাকা না দিলে ছেড়ে দিবে না।" "ওহ huh আচ্ছা আমি ছাড়িয়ে দিচ্ছি।" লাকি আপু ফাহাদের চুল চেপে ধরে বলল,"এই ওকে একদম ছেড়ে দিবি না।নইলে তোর চুল কেটে দিবো cool pirate রুবাইয়া আপু বলল,"৩০ মিনিটের মধ্যে টাকা বের কর।" লাকি আপু এই রুমের গেট বন্ধ করে দিলো। মাহমুদ বললো,"ভাই টাকা দেন ২ হাজার।" ফাহাদ বললো,"কি আমি দিমু মানে gj মোজাহিদ বললো,"হ দেন।আপনাকে তো দুলাভাই বলে ডাকি দেন ভাই grin তাহলে আমার বান্ধবী বেঁচে যাবে।আর ইসরাত তো আপনার ব্রেস্ট ফ্রেন্ড।ফ্রেন্ডের জন্য এইটুকু করতে পারবেন না!আর আমরা না হয় বারান্দা এই সেই দিয়ে বের হয়ে পালিয়ে থাকতে পারবো।কিন্তু ইসরাত আর যাবে কোথায়!ওর বাড়িই তো এটা।" আমি বললাম,"ফাহাদ,তোমার কাছে যদি টাকা থাকে তাহলে দেও।" মোজাহিদ বললো,"হ ভাইয়া দেন।" ফাহাদ টাকা বের করে বললো,"আচ্ছা নাও।ফ্রেন্ডের বিপদে তো ফ্রেন্ডই আসবে।এইযে টাকা ২ হাজার।" আমার বাধন খুলে দিল।ওরা সবাই চলে গেল।আমি দরজার নিচ দিয়ে টাকা দিয়ে বললাম,"ওই আপুরা আমাকে বের করে দাও এইযে টাকা দিসি।" দরজা খুলে দিলেই আমি সাথে সাথে বের হলাম।লাকি আপু ভেতরে ঢুকে বললো,"ওরা সবাই কোথায় গেল unsure আমি বললাম,"চলে গেসে সবাই।" রুবাইয়া আপু বলল,"কোন দিক বের হলো!গেট তো একটা।" আমি বললাম,"বারান্দা দিয়ে।" রেহনুমা আপু বলল,"বারান্দা দিয়ে কেমনে বের হলো unsure এটা তো নিচতলা না যে বের হবে।" আমি বললাম,"আপু ওরা গাছ বেয়ে নীচে নামছে।" রুবাইয়া বললো,"ওহ।" লাকি আপু আর রেহনুমা আপু বের হয়ে গেল টাকা নিয়ে।পরদিন আমি বের হলাম।আঃ দেখি সামনে তানিম ভাই।আমি পিছন ফিরে যেতে থাকলাম আরেকদিকে।তাও দেখি তালহা ভাইয়া gj আমি বাম দিকে যাওয়া শুরু করেছিলাম আর দেখি রনি।এখন আমি কোনদিকে যাই gj তানিম ভাই বললো,"কি বোন টাকা দেও।" আমি বললাম,"ভাইয়া আমরা টাকা দিয়ে দিয়েছি রেহনুমা আপু ,লাকি আপু আর রুবাইয়া আপুরটা।আর ছোটদের থেকে আপনিরা টাকা নেন।" তালহা ভাইয়া বললো,"তাহলে চলো ওদের বাসায়।" আমি রিদিদের বাসায় গেলাম।রিদি গেট খুলে চমকে গেল।সবাই এসেছে কেন! আমরা সবাই ভেতরে ঢুকলাম


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৩১ জন


এ জাতীয় গল্প

→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্ববারস (শেষ পর্ব)
→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্ববারস৭
→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্ববারস (পর্ব৬)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...