বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস (পর্ব৪)

"জীবনের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ESHRAT JAHAN (০ পয়েন্ট)



X আমি খেতে খেতে বললাম,"দারুন টেস্টি হয়েছে!" মোহাজিদ বললো,"হুমম রে।" খাওয়া শেষে আমি বললাম,"ভাইয়া আপনার খাওয়া শেষ হলে সব বিল দিয়ে দিবেন।" তালহা ভাইয়া আমাদের দিকে তাকিয়ে বলল,"কি সব বিল আমি দিবো gj মোজাহিদ বললো,"হ্যা আপনি তো দিবেন।আর আমরা দিলে আপনার মানসম্মান থাকবে না।আপনার মানসম্মান শেষ।" আমি বললাম,"সব শেষ।" তালহা ভাইয়া বললো,"কেন? gj আমি বললাম,"বড় ভাই থাকতে যদি ছোট ভাইবোনের যদি বিল দিতে হয় তাহলে বড় ভাইয়ের মানসম্মান আর থাকে কি করে?" মোজাহিদ বললো,"সেটাই তো।" তালহা ভাইয়া বললো,"ওহ এই কথা ঠিকই তো।যাও তোমরা।" আমি আর মোজাহিদ বেরিয়ে এলাম। আমি বললাম,"এরকম মাঝে মাঝে খেতে হবে।" "তোর তো খাওয়ার সময় বন্ধুর কথা মনে থাকে না।" "আরে এখন থেকে তোকেই সাথে করে নিয়ে খাবো।" "আচ্ছা।" রিশু,তারিন,রিদি,শাহরিয়ার আর ফারহান আমাদের সামনে এসে হাজির হলো।আমি বললাম,"কিরে তোরা?" শাহরিয়ার ইশারায় খাওয়ার কথা বললো।আমি ঐরকম করে বললাম,"কি?" রিশু বললো,"তোমরা আমাদের খাওয়াবে রেস্টুরেন্টে।" সবাই একসাথে বললো,"হ্যা আপু, ভাইয়া চলো।" আমি মোজাহিদকে ফিসফিস করে বললাম,"দেখছিস আমরাই খাই বড়দের থেকে এখন এরা খাবে আমাদের থেকে।" "হরে।" তারিন বললো,"কি ফিসফিস করছো!খাওয়াতে হবে।" আমি বললাম,"আমার কোনো টাকা নেই।" মোজাহিদ বললে উঠলো,"তুই ফোন বের করার সময় তোর ব্যাগে ৫০০ টাকা দেখেছি।" রিদি বললো,"ওয়াও তাহলে চলো wow আমি বললাম,"আর আমি তোর পকেটে ১ হাজার টাকার নোট দেখেছি।যা তুই খাওয়া।" রিশু খুশিতে নাচতে নাচতে বললো,"চলো ভাইয়া চলো wow মোজাহিদ বললো,"আমার দরকার আছে ওই টাকা।" আমি বললাম,"আমারও দরকার আছে।" শাহরিয়ার বললো,"না আপু তোমার কোনো দরকার নাই।" আমি বললাম,"এই দেখ দেখ ওই গাছের ওখানে ,আমি এরকম পাখি তো দেখিনি।কি সুন্দর।আহা দারুন।দেখ তোরা। ফারহান এতক্ষন চুপ করে ছিল।এখন বললো,"কই আপু কি! unsure সবাই ঐদিকে তাকালে আমি মোজাহিদের হাতে এক টান মেরে দৌড় দিলাম।মোজাহিদও দৌড় দিল আমার সাথে সাথে।ফারহান চিৎকার করে বললো,"ওই দেখ ওরা গেল আমাদের ফাঁকি দিয়ে।" তারা সবাই আমাদের পিছে পিছে দৌড়াচ্ছে।মোহাজিদ রনি ভাইয়ের সাথে ধাক্কা খেয়ে পড়ে গেল।আমি বললাম,"উঠ তাড়াতাড়ি।রনি ভাই পালান আপনি।" মোজাহিদ উঠে আবার দৌড় দিল। রনি ভাই বললো,"কেন?gj "পরে বলছি ভাইয়া পালান।" রনি ভাই কিছু না বুঝে দৌড় দিলো।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৯৪ জন


এ জাতীয় গল্প

→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস (পর্ব৫)
→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস (পর্ব৩)
→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস(পর্ব২)
→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস (পর্ব১)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...