বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস (পর্ব৩)

"জীবনের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ESHRAT JAHAN (২২৮ পয়েন্ট)



X এরই মধ্যে হৃদয় ভাইয়া ঢুকে পড়লো।সবাইকে এই অবস্থায় দেখে বললো,"কি ব্যাপার এরা নেশাপানি করছে নাকি gj" আমি বললাম,"না ভাইয়া এরা একজন আরেকজনের সাথে ধাক্কাধাক্কি কামড়াকামড়ি করে বেহুশ হয়ে উল্টে গেসে।" হৃদয় ভাইয়া বললো,"ওহ উল্টে পড়ে আছে তাই ভাবলাম নেশাপানি করছে নাকি laugh রাকিব আস্তে আস্তে মাথা তুললো।মাথা হাত দিয়ে বললো,"আমার মাথা দিয়ে কি রক্ত বের হয়েছে নাকি।" ফারহান উঠে বসে বললো,"উহু কি ধাক্কা খেলাম মাথায়।" শাহরিয়ার ঘাড়ে হাত দিয়ে বললো,"ইস এখনো ব্যাথা করছে।এত জোরে কামড় দেয় নাকি?বাঘের কামড় দিসে।" আমি বললাম,"বড়দের সামনে এমন ভাব নিলে এমনই হয়।" রাকিব আমার দিকে তাকিয়ে বলল,"তারমানে আপু তুমি আমাকে বদদোয়া দিয়েছ weep " আমি বললাম ,"ছোটদের বদদোয়া দিতে নেই।আল্লাহ নারাজ হন।" শাহরিয়ার বললো,"আমার গা পুরো ভিজে গেসে।পানির মধ্যে চুবিয়ে দিসিল নাকি।" ফাহাদ বললো,"ওহ বালতির পানি ঢেলে দিয়েছি।না হলে তোমরা উঠো না।" রিশু ,রিদি ,তারিন এইসব কাহিনী দেখে মজা নিচ্ছিল।হাসতে হাসতে শেষ।আমি বললাম,"হাসিছ কেন?rant নখ দিয়ে খামছি দিমুনি তখন দেখিস হাসি বের হয় নাকি!দেখছিস নখ আমার !" তারিন বললো,"দেখছি তো নখ gj রিদি বললো,"চক্কা নখ।কাটিং ডিজাইন সুন্দর lovely আমি বললাম ,"পছন্দ হয় এই কাটিং!" রিশু বললো,"হয় তো পছন্দ gj আমি বললাম,"এই নখ দিয়ে খামছি দিয়ে রক্ত বের করা কোনো ব্যাপার না।অনেকে বলে মানুষও খুন করা যাবে।" তারিন বললো,"ওহ ভালো যুদ্ধ করতে পারবে।" আমি বললাম,"হুম।আমি যাই তালে।হৃদয় ভাই তোরা চলে যাবি নাকি?" হৃদয় ভাইয়া বললো,"হুমম যাবো।" বের হওয়ার আগে বেহুশ তিনজনকে ডাক দিলাম,"এই বেহুশরা থাক গেলাম।সাবধানে থাকিস।" শাহরিয়ার বললো,"আচ্ছা আপু wacko সকালে মোজাহিদের কল আসলো।আমি কল ধরে বললাম,"কই তুই?" "এই আমি তোর বাড়িতে যাচ্ছি।তুই তাড়াতাড়ি রেডি হয়ে বের হ।" "আচ্ছা আমি রেডি হচ্ছি।" আমি রেডি হয়ে বের হলাম।আমি বললাম,"শোন টাকা তো আমরা দিমু না।ভাইয়াকে বলবো যে বড় ভাই হয়ে যদি না দেন আপনার তো মানসমান থাকলো না এই সেই বলে বিল দিয়ে নিবো" "হুমম চল।" রেস্টুরেন্ট ঢুকে দেখি তালহা ভাইয়া আগেই এসে বসে আছে।আমরা বসে পড়লাম। আমি বললাম,"কি খাবি মোজাহিদ?" "কাচ্চি বিরিয়ানি।" "ওহ আমিও খাবো।ভাইয়া অর্ডার দেন।"


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৬০ জন


এ জাতীয় গল্প

→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস (পর্ব৫)
→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস (পর্ব৪)
→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস(পর্ব২)
→ আমাদের জীবনটাই অন্যরকম এবং জিজে মেম্বারস (পর্ব১)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...