বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

বোরকাওয়ালি পিচ্চি বউ ১

"ইসলামিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান PRINCE FAHAD (২ পয়েন্ট)



X লেখকঃ কাকার ভাতিজির জামাই ঘরের দরজার সামনে দাড়িয়ে আছি । আর চোখ দিয়ে শুধু অঝরে অশ্র পড়ছিলো । . কারন রুমের ভেতরে আমার মা অসুস্থ ...। পৃথিবী তে আমার আপন বলতে শুধু একমাত্র আমার মা । . ছোট বেলায় বাবা হার্টএ্যাটাক মারা যান । আমি শুধু তার একমাত্র ছেলে । আজ আমার কারনে আমার মা অসুস্থ হয়ে পরেছেন । হঠাৎ করে রুম থেকে ডাক্তার মেডাম বের হলেন । আমি কান্না থামিয়ে । ডাক্তার মেডামকে জিজ্ঞেস করলাম .. -- কেমন আছে আমার মা (আমি) -- ভয়ের কোনো কারন এমনি একটু মাথা ঘুরে গিয়েছিলো আর তাছারা ওনার এখন রেস্ট এর প্রয়োজন । এই বয়সে এখন ঘরের কাজ কর্ম গুলো যত কম করবে তত ভালো । আমি কিছু ঔষধ লেখে দিচ্ছি আপনি সময় মতো ওনাকে খায়িয়ে দিয়েন দেখবেন দুই তিনদিনের মধ্যে ভালো হয়ে যাবে । (ডাক্তার মেডাম ) -- ঠিক আছে মেডাম (আমি) তারপর ডাক্তার মেডাম চলে গেলেন । আর আমি তাড়াতারি করে আম্মুর রুমে গেলাম । গিয়ে আম্মুর হাত ধরে কাদতে কাদতে বলল‌াম -- মা তুমি যাকে বিয়ে করতে বলবে আমি তাকে বিয়ে করতে রাজি । তবুও তুমি এভাবে নিজেকে কষ্ট দিয়ো না । আমি সইতে পারবো না । (আমি)(কেদে কেদে) আম্মু আমার মাথায় হাত বুলিয়ে বলে । -- সত্যি তুই‌ পছন্দের মেয়েকে বিয়ে করবি ।(আম্মু) -- হ্যা আম্মু করবো তুমি যাকে বলবে আমি তাকেই বিয়ে করবো (আমি) আম্মু একটু হেসে আমার চোখের জল মুছে দিয়ে বললেন ‌ -- এই তো আমার লক্ষী ছেলে (আম্মু) আমার কপালে একটা চুমু দিয়ে বললেন । -- আজকে আর অফিসে যেতে হবেনা । বিকালে আমাদের গ্রামের বাড়ি যাবো (আম্মু) -- আচ্ছা (আমি) তারপর আমি আম্মুকে নিজ হাতে সুপ বানিয়ে খাওয়ালাম । আর ঔষধ খায়িয়ে দিলাম । আম্মু এখন ঘুমাচ্ছে । আর আমি ওনার পাশে ওনার হাত ধরে বসে আছি । আর নিজেকে নিজেই গালাগালি করছি । কারন আমি যখন অফিসে যাচ্ছিলাম সকালে তখন আম্মু আমাকে বলে -- এভাবে আর কতদিন থাকবি এবার একটা বিয়ে করে নে না (আম্মু ). -- দেখো আম্মু আমি এখন বিয়ে টিয়ের সম্পকে জরাতে চাইনা । আর তাড়াছা এখন বিয়ে করে সংসার জিবনে দায়ীত্ব নিতে পারবো না । (আমি) -- কেনো পারবি না ..! প্রতিদিন তো তুই অফিস চলে যাস সারাদিন বাসায় কত কাজ একা একা করতে হয় আমাকে । এই বয়সে এসেও কি একটু বিশ্রাম করতে পারবো না ..!(আম্মু) -- তাহলে কাজের লোক রেখে দাও কিন্ত আমি এখন বিয়ে করতে পারবো না ব্যাস (আমি) যখন ঘর থেকে বের হচ্ছি তখন কিছু একটা আওয়াজ হলো । পিছন ফিরে তাকিয়ে দেখি আম্মু মেজেতে পরে আছে । জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছে । আম্মুকে মেজেতে পরে থাকতে দেখে আমার পুরো পৃথিবী কয়েকমূহুতের জন্য থমকে জায়গায় । দৌড়ে গিয়ে আম্মুকে কোলে তুলে রুমে নিয়ে যাই । তারপর অনেক ডাকাডাকি করার পর ও জ্ঞান ফিরছিলো না মনের মধ্যে একটা অজানা ভয় ঝেকে বসলো । আর দেরি না করে আমাদের ফ্যামিলি ডাক্তার করে কল করে বললাম বাসায় চলে আসতে তারপর তিনি আসার পর কি কি হলো তা তো জানেনই । মনের মধ্যে সেই ভয়টা মুহুতেই উধাও হয়ে গেলো মায়ের মুখের হাসি দেখে । যার ঘরে মা আছে তার একটি জান্নাত আছে । . আর আমি সেই মাকে আজ কষ্ট দিছি জানি না আল্লাহ আমাকে ক্ষমা করবে ন কিনা । এসব ভাবতে ভাবতে আমি ও আম্মুর কোলের কাছে ঘুমিয়ে পরলাম। হঠাৎ করে আম্মুর ডাকে ঘুম ভেঙে গেলো । চোখ খুলে দেখি আম্মু সামনে দাড়িয়ে আছে । আমি কিছুটা অবাক হয়ে বললাম । -- আম্মু তুমি উটলে কেনো তোমার এখন বিশ্রাম দরকার পিল্জ তুমি শুয়ে থাকো ।(আমি) -- সারাদিন কি শুয়েই‌ থাকবো সকাল ঘরিয়ে দুপুর হয়ে গেলো খাবি না আয় খেতে আয় (আম্মু) আর কোনো কথা বললাম না ঘরির দিকে তাকিয়ে দেখি 2 টা বেজে গেছে । আমি উঠে ফ্রেশ হয়ে মেনেজার সাহেব কে ফোন করে বলে দিলাম আজ আর অফিসে আসবো না । বাবার রেখে যাওয়া সম্পত্তি পুরোটাই একা দেখাশোনা করতে হয় । সেগুলোর জন্যই সময় পাইনা । এখন আবার বিয়ে করলে সংসারে কিভাবে সময় দিবো তাই ভাবছি । আর বিয়ে না করেও উপায় নেই । মায়ের এখন বিশ্রাম এর দরকার । একা হাতে সারাদিন ঘরের কাজ গুলো আর কতদিন ই বা করবে । আর কিছু না ভেবে খাবার টেবিলে বসলাম। তারপর আম্মু ভাত বেড়ে দিলো । তারপর আম্মু নিজে হাতে তুলে খায়িয়ে দিতে লাগলো । প্রতিদিন ই দেয় । খাওয়াতে খাওয়াতে আম্মু বলল -- এবার একটা বিয়ে হয়ে গেলেই আমি বাচি প্রতিদিন আর তোকে তুলে খায়িয়ে দিতে হবে না বউ এসে খায়িয়ে দিবে ..(আম্মু)(হাসিমুখে) -- হু আমি তোমার হাতে ছাড়া খাবোই‌ না (আমি) আম্মু আমার কথা শুনে হাসতে লাগলো তারপর আম্মু ও খেয়ে নিলো । আমি গিয়ে রেডি হয়ে নিলাম । এখন যাবো গ্রামের বাড়ি । কিন্ত কেনো তা জানিনা । তারপর আম্মু ও তৈরি হয়ে বের হলেন । আমি গাড়ি বের করলাম । আম্মু গাড়িতে বসলেন । তারপর আমি আম্মুকে বললাম। আম্মু গ্রামের বাড়ি কেনো যাবে আর কোথায় উঠবে । (আমি) -- সোজা তোর খালাদের বাসায় উঠবো ।(আম্মু) -- কেনো (আমি) -- গেলেই বুজে যাবি এখন চল (আম্মু) তারপর আর কোনো কথা না বলে গাড়িতে চালাতে লাগলাম আপন মনে । দেড় ঘন্টার মধ্যে খালাদের বাড়ি পৌছে গেলাম । আম্মু নেমে ভেতরে গেলো আর আমি গাড়ি পার্ক করলাম। তারপর আমি ও ভেতরে গেলাম । গিয়ে তো আমি অবাক সবাই দেখি এক জোট হয়ে বসে আছে । আমি প্রথমেই খালা আর খালু কে সালাম দিলাম । তারপর খালা আমাকে বসতে বললেন । আমি আম্মুর পাশে গিয়ে বসলাম। . আমার এখন একটু লজ্জা লাগতে শুরু করলো । কারন বাড়ির সবাই এক জায়গায় । আর আমার দিকে কেমন ভাবে জানি তাকিয়ে ছিলো । কি করবো বুজতে পারছিলাম না । আম্মুকে কানে কানে জিজ্ঞেস করলাম । -- আম্মু ওনারা সবাই এভাবে তাকিয়ে আছেন কেনো (আমি) আম্মু হেসে জবাব দিলো -- নতুন জামাই দেখছে (আম্মু) কথাটা শুনা মাত্রই চমকে গেলাম । বুজতে বাকি রইলো না আম্মু কেনো এখানে এসেছে । নিশ্চয়ই খালামনির মেয়ের সাথে আমার বিয়ে দেওয়ার জন্য এখানে এনেছেন । কিন্ত এটা কি করে সম্ভব । ওই পেত্নি টাকে বিয়ে করলে আমার জিবন নরক বানিয়ে ছারবে । আর তাছারা আমার থেকে বয়সে কম করে হলে 7 বছরের ছোট হবে .. তাই আম্মু কে কানে কানে বললাম,,,,,,,,,, চলবে,,,,,,,


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৩৩৭ জন


এ জাতীয় গল্প

→ বোরকাওয়ালি পিচ্চি বউ শেষ পর্ব
→ বোরকাওয়ালি পিচ্চি বউ ৪
→ বোরকাওয়ালি পিচ্চি বউ ৩
→ বোরকাওয়ালি পিচ্চি বউ ২

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...