বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

বড় আপুর বান্ধবি ৪

"ফ্যান্টাসি" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান PRINCE FAHAD (০ পয়েন্ট)



X আমি আর কিছু বললাম না চলে আসলাম মার্কেটে। মার্কেটে এসে নিধী আপু কে নিয়ে ভিতরে গেলাম সে একটা শাড়ির দোকানে গেলো। তারপর কিছু শাড়ি দেখাতে বললো নিধীঃ দেখোতো নীল কোন টা নিবো আমিঃ আপনার ইচ্ছা নিধীঃ তোমাকে বলতে বলছি বলো আমিঃ নীল শাড়িটা নেন। আপনাকে অনেক মানাবে। কারন নিধী আপু অনেক ফর্সা নীল শাড়িটাই তাকে অনেক সুন্দর দেখাবে।। তারপড় নিধী আপু দোকান্দারকে নীল শাড়িটা পেক করে দিতে বললো। তারপর মার্কেট শেষে বাইকে আগের মতোই জরিয়ে দরলো। তারপর বললো নিধীঃ একটা রেস্টুরেন্টে চলো আমিঃ ওকে তারপর একটা রেস্টুরেন্টের সামনে বাইক ব্রেক করলাম, তারপর নেমে আমরা রেস্টুরেন্টে আসলাম তারপর আমাকে বললো নিধীঃ কি খাবা। আমিঃ কফি তারপর নিধী ২ টা কফি অর্ডার করলো কফি খেয়ে যেয় বের হতে যাবো,, ওমনি আমার স্কুল লাইফের একটা বান্ধবীর সাথে দেখা হলো। বান্দবীর নাম হলো অধরা। অধরাঃ এই নীল কেমন আছো? কতোদিন পর দেখা হলো। আমিঃ আলহামদুলিল্লাহ। তুমি কেমন আছো? অধরাঃ ভালো আমিঃ তা এতোদিন কয় ছিলা, অধরাঃ নানুর বাসায় ছিলাম। এখন একবারে আইসা পড়ছি এখানের একটা কলেজে ভর্তি হয়ছি। আমিঃ ওহ্ আচ্ছা। তারপর অধরার সাথে কিছু কথা বলে নিধী আপুর কাছে আসলাম। নিধী আপুর চোখ লাল হয়ে আছে মনে হয় অনেক রেগে আছে।কিন্তুু আমি কিছু বুজলাম না হঠাত করে এতো রেগে গেলো কেনো। আমিঃ কি হয়েছে আপু নিধীঃ একদম আপু বলবি না নাম ধরে ডাকবি আমিঃ কি বলেন এইগুলা আপনি আমার সিনিয়র তার উপর আবার আপুর বান্ধবী। নিধীঃ এতো কথা শুনতে চায় না নাম ধরে ডাকতে বলেছি ব্যস নাম ডরে ডকাবি। আমিঃ এ হয়না আপু এটা কি করে সম্ভব। নিধীঃ দেখ এখন রাগ উঠাবি না আমিঃ আমার কিছু করার নেই আপু। নিধীঃ আরেকবার শুধু আপু বলে দেখই। আমিঃ দেখেন আ,,আর বলতে পরলাম না তার আগেই কমল ঠোটের স্পর্শ পেলাম আমার ঠোঁটে। আমি তো অবাক এই প্রথম কোনো মেয়ে আমাকে কিস করলো তাও আবার সিনিয়র। নিধীঃ আরো বলবি আপু? আমিঃ নাহ্। নিধীঃ গুড বয়। তারপর আর কথা না বারিয়ে আমি বাইক স্টার্ট করলাম। নিধী আপু ও এসে বসলো আগের মতোই জরিয়ে দরলো। তারপর কলেজে চলে আসলাম। আমি আমার ফ্রেন্ডদের কাছে আসলাম । নিধী আপু ও তার ক্লাসে চলে গেলো। এভাবেই চলে গেলো এক মাস। এই এক মাসে নিধী আপু অনেক অত্যাচার করেছে। যখন ইচ্ছা গুরতে যেতে হবে।আর যখন ই আপু বলছি কিছ তো আছেই। কোনো মেয়ের সাথে কথা বলতে দেয় নায়। সব সময় নিজের সাথে সাথে রেখেছে। নিধী আপুকে আমাকে ভালোবাসে এটা অনেক ভাবে বুজাতে চেয়েছে।বাট আমি সবসময় এরিয়ে চলেছি। কারন এটা পরিবার সমাজ কখনো মেনে নেবে না। আমি যে তাকে ভালোবাসি না তা না। নিধী আপুকে আগে থেকেই ভালো লাগতো আর একসাথে চলতে চলতে কখন যে ভালো বেসে ফেলেছি তা নিজেও জানি না । সকালে গুমিয়ে আছি গুম ভাংলো নিধী আপুর ফোনে। আমিঃ হ্যলো আপু বলো? নিধীঃ কি বললা। আমিঃ স্যরি,, নিধী বলো? নিধীঃ এখনি আমার সাথে দেখা করবা কলেজে এসে। ৪০ মিনিট সময় দিলাম। আমিঃ ওকে। আমি আর দেরি না করে গুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে কলেজে চলে গেলাম। দেখি নিধী আপু কেম্পাসে বসে আছে। আমিঃ হাই কেমন আছো? নিধীঃ এইতো ভালো। তুমি? আমিঃ হুম ভালো। নিধীঃ যার জন্য ডাকা শুনো। কালকে আমার বার্ডে বাড়িতে একটা পার্টির আয়োজন আছে। কালকে সন্ধায় বাসায় চলে আসবা। আমিঃ ওকে। নিধীঃ এখন চলো সবাইকে ইনভাইট করতে হবে। তারপর সবাইকে ইনভাইট করলো আমার বাসার সবাইকে ইনভাইট করলো। তারপর নিধী কে নিয়ে শপিং এ গেলাম ও একটা নীল শাড়ি করলো,,ও জেনে গেছে আমার পছন্দের রং নীল। আমাকে একটা নীল পান্জাবী গিফ্ট করলো। ও বললো এটা পড়ে কালকে পার্টিতে যেতে হবে। তারপর বাসায় চলে গেলাম। কালকে পার্টিতে যা হলো তার জন্যে আমি মোটেও প্রস্তত ছিলাম না। # চলবে


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২৫৭ জন


এ জাতীয় গল্প

→ বড় আপুর বান্ধবি ৫ (শেষ পর্ব)
→ বড় আপুর বান্ধবি ৩
→ বড় আপুর বান্ধবি ২
→ বড় আপুর বান্ধবি ১

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...