বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

*শুধু তোমার জন্য*

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Prince (৩০ পয়েন্ট)



X আমি কাব্য,অনার্স ফার্স্ট ইয়ার স্টুডেন্ট, লেখাপড়ায় যদিও বেশি ইন্টারেস্ট নেই তারপরেও আমি স্টুডেন্ট খারাপ, যাকে বলে এভারেজ, বাবা মায়ের একমাত্র সন্তান আমি তাই আদরটাও বেশি, সবকিছু আমার ভালো লাগলেও আমার সবচেয়ে বড় শত্রু মেয়ে মানুষ। দুনিয়াতে এই একটা প্রানীকেই সবচেয়ে বেশি হেট করি, এর কারন কি সেটাও পরে জানতে পারবেন, এখন ক্লাশের সময় হয়েছে চলুন ক্লাশে যাই, আমি রেডি হয়ে ক্লাশের দিকে বের হলাম, কলেজের দিকে যাচ্ছি এমন সময় আমার ফোনটা বেজে উঠলো, ফোনটা বের করে দেখি মিনহাজের ফোন, ও হ্যা, মিনহাজ হলো আমার বেস্ট ফ্রেন্ড, সেই কলেজ লাইফ থেকেই আমরা একসাথেই পড়ি, খারান আগে কথা বলি দেখি কি বলে, ' => হ্যা মিনহাজ বল। => এই কাব্য কোথায় তুই? => এইতো কলেজের সামনে কেনো? => আসতে কতোক্ষন লাগবে তোর? => কেনো বলতো? => আসলেই জানতে পারবি, তারাতারি চলে আয়। => আচ্ছা ঠিক আছে যাচ্ছি। ' আমি ফোন রেখে ভাবতে ভাবতে যাচ্ছি আসলে কি এমন কথা যেটা শুনে আমি খুশি হবো, দেখাই যাক আগে ক্যাম্পাসে যাই তারপর দেখি কি বলে, আমি এসব কথা ভাবতে ভাবতে যাচ্ছি হঠাৎ কিসের সাথে যেনো ধাক্কা খেয়ে মাটিতে পরে গেলাম, হায় আল্লাহ কিসের সাথে আবার ধাক্কা খেলাম, আমি সামনে তাকিয়ে দেখি একটা মেয়ে মানুষ, হায় আল্লাহ এই মাইয়ার সাথেই ধাক্কা খাইছি? মেয়েটা আমার দিকে রাগি দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে, আমি মাটি থেকে উঠে দাড়ালাম, ' => সরি আমি দেখতে পাইনি। (আমি) => দেখতে পাননি আপনি? না কি এতো সুন্দর একটা মেয়ে দেখে টাচ করার ইচ্ছে হয়েছে তাই ধাক্কা দিলেন? => ও হ্যালো? আমার কি খেয়ে দেয়ে আর কোনো কাজ নেই যে আমি আপনাকে ধাক্কা দিতে যাবো? => আমি ভালো করেই জানি আপনাদের কি কাজ, সারাদিন মেয়ে মানুষের পেছনে পেছনে ঘুরে বেরানো আর তাদের ইভটিজিং করা। => এই দেখুন আপনি কিন্তু বেশি বেশি বলছেন, আর আমি ভুল না করেও আপনাকে সরি বলছি তারপরেও আপনি আমায় কথা শুনিয়েই যাচ্ছেন? => আপনি ভুল করেননিতো কে ভুল করেছে আমি? আমি কি ইচ্ছে করে আপনাকে ধাক্কা দিয়েছি? => আমি কি সেটা একবারো বলেছি? আর আপনার মনে কি আছে আমি কিভাবে জানবো? => এই মাইন্ড ইয়োর ল্যাংগুয়েজ, আপনাদের মতো ফালতু ছেলেদের আমার ভালো করেই জানা আছে, যত্তসব ফালতু ছেলে। => এই মাইয়া তখন থেকে যা মুখে আসছে বলেই যাচ্ছিস? আমি কিছু বলতেছিনা কারন আমি মেয়েদের সাথে কথা বলিনা তাই বলে এটা ভাবিস না যে আমি কিছু বলতে জানিনা। এই তুই নিজেকে কি ভাবিস রে? এই তুই যে নিজেকে সুন্দর বলছিস কখনো নিজের মুখটা আয়নায় দেখেছিস? আরে তোকে দেখেতো উগান্ডার মানুষেরাও ভয়ে পালিয়ে যাবে, নিজেকে সুন্দর ভাবলেই যে সে সুন্দর হয়ে যায় এটা মনে করিসনা, আর দুইজনকে জিজ্ঞাসা কর যে তুই কিরকম, আর তুই এমন কোনো ক্যাটরিনা না যে আমি তোকে ইচ্ছা করে ধাক্কা দেবো, তোদের মতো বেহায়া মেয়েদের থেকে আমি সবসময় দুরে থাকি যারা গায়ে পড়ে ঝগড়া করে, ছেলেদের হাতের খেলনা ভাবে, এই নিজেকে এতো মহান ভাবিস না, আর তোর বাবা মা কি তোকে ভদ্রতা শেখায়নি, কার সাথে কিভাবে কথা বলতে হয় শেখায়নি তোকে? => কি তোর এত্তবড় সাহস তুই আমাকে তুই করে বলিস, এই তুই জানিস আমি কে? আমার বাবা কে? => এই তোর বাবা না হয় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হোক আমি কি জানতে চেয়েছি? আসলে মানুষ বলেনা ছেলে মেয়েদের কাছেই তার বাবা মায়ের পরিচয় পাওয়া যায় তোকে দেখেই সেটা বোঝা যায়। => তোর বাবা মা মনে হয় তোকে অনেক ভদ্রতা শিখিয়েছে, মেয়েদের সাথে কিভাবে কথা বলতে হয় সেটাওতো শেখায়নি তোর বাবা মা তোকে, => এই আমার বাবা মাকে নিয়ে কোনো কথা বলবি না, আমার বাবা মা আমাকে যথেষ্ট শিক্ষা দিয়েছে তাই ভুল না করেও তোকে সরি বলেছি, তুই নিজেরটা ভাব। => এই আমি কি ভাববো আমারটা আমি ভালো করেই ভেবেছি, তুই তোরটা নিয়ে ভাব। => ধুর যতোসব ফালতু মেয়ে, তোর মতো মেয়েদের সাথে কথা বলা মানে নিজের ইমেজ নিজেই খারাপ করা, যা ভাগ এখান থেকে, ' আমি মেয়েটাকে কথাটা বলেই ভার্সিটির দিকে হাটতে শুরু করছি, পেছন থেকে মেয়েটা বলছে, ' => তোকে আমি এই অপমানের জবাব ভালো করেই দেবো, আর তোকে আমি বুঝিয়ে দেবো আমি কে আর কি করতে পারি, এটা মনে রাখিস। ' আমি ওই মেয়ের কথায় কান না দিয়েই চলে গেলাম, এসব মেয়ের সাথে ঝগড়া করার কোনো ইচ্ছাই আমার নেই, এসব ফালতু মেয়ের থেকে যতো দুরে থাকা যায় ততোই ভালো, ধুর মুডটাই খারাপ হয়ে গেলো, আমি ভার্সিটি গিয়ে বন্ধুদের সাথে আড্ডায় যোগ দিলাম, ' => কিরে নীল এরকম রাগি লুক নিয়ে আছিস কেনো কি হয়েছে? => আর বলিসনা আসার সময় একটা ফালতু মেয়ের সাথে ঝামেলা হয়েছে। => ঝামেলা হয়েছে মানে? কি হয়েছে বলতো? => আরে দুজন দুজনের সাথে ধাক্কা খেয়েছি, এমনোতো হতে পারে দুজনের ভুলেই ধাক্কাটা খেয়েছি, আমি ভুল না করা সত্তেও সেই মেয়েকে সরি বললাম কিন্তু সেই মেয়ে পার্ট দেখিয়ে আমায় কথা বলা শুরু করেছে, আমিও বলেছি ভালো করে। => তুই মেয়ের সাথে ঝগড়া করেছিস? => আরে অনেক রাগ উঠেছিলো তাই বলে দিয়েছি, বাদ দে ওসব কথা ভেবে লাভ নেই, তুই যে আমায় ফোনে বললি কি যেনো একটা খুশির খবর আছে? => ও হ্যা তোকেতো বলাই হয়নি, আমাদের সিংগেল সমিতিতে আর একজন সদস্য বেড়ে গেছে, => তাই? এটাতো অনেক খুশির খবর তো কে সেই ভাগ্যবান ব্যক্তি যে আমাদের সিংগেল সমিতির সদস্য? => আমাদের ইমরান, => হোয়াট? ইমরান ছ্যাকা খেয়েছে? => হ্যা কাল ইমরান ছ্যাকা খেয়েছে, => আরে এটাতো অনেক খুশির খবর, আজকে তাহলে ব্রেকাপ পার্টি হচ্ছে? => সালা তোরা ফ্রেন্ড? আমার এই সিচুয়েশনে তোরা মজা নিচ্ছিস? => দেখ ইমরান, মেয়েরা হলো রংধনুর মতো, কখন কোন রং ধারন করবে তুই নিজেও জানবি না, ওরা সবসময় ছেলেদের নিয়ে মজাই করে, তোর ক্ষেত্রেই দেখ, তুইতো রাইসাকে অনেক ভালোবাসতি, ওর সাথে সবসময় থাকতি, কথা বলতি, আমরা যে তোর ফ্রেন্ড আমাদেরকেও বেশি সময় দিতি না, কিন্তু শেষে ফল কি হলো? কষ্ট ছাড়া আর কিছুই পেলিনা, দেখ একটা মেয়ে তোর সাথে রিলেশন করবে ঠিক আছে কিন্তু যখন তোর চেয়ে একটা ভালো ছেলে পাবে তখন তোকে ইগনোর করতে শুরু করবে আর কিছুদিন পর শুনবি তোর গার্লফ্রেন্ড অন্য কারো হাত ধরে ঘুরে বেড়াচ্ছে আর তুই সবখান থেকে পাবি শুধু ব্লোক আর কষ্ট, তুই এটা বলতে পারিস যে আমরা ফ্রেন্ড হয়ে কেনো তোকে হেল্প করছি না, দেখ মামা একজন ছেলের বিপদে আপদে সর্বপ্রথম কিন্তু ওর ফ্রেন্ড আসে আমরাও আসবো কিন্তু প্রেম বিষয়ে না,কারন আমরা চাইবো না আমাদের একটা ফ্রেন্ডকে জেনেশুনে বিপদের মুখে ঠেলে দিতে, হ্যা যদি তোর প্রেম করতে ইচ্ছাই করে তাহলে তুই নিজে প্রপোজ করবি,কিন্তু সে বিষয়ে আমরা যাবোনা। কি বলো ফ্রেন্ড? => হুম, কাব্য একদম ঠিক বলেছে। => তো ইমরান এখন কি করবি ভেবেছিস? => ওই মেয়েকেতো আমি ভুলেই যাবো আর আজকে থেকে মেয়েদের বিশ্বাস করতেও ভুলে যাবো, তোর কথাই ঠিক কাব্য, আসলেই মেয়েরা রংধনু, => তো আজকে কি পার্টি হচ্ছে? => অবশ্যই। ' আমরা সবাই কিছুক্ষন আড্ডা দিয়ে ক্লাশের দিকে গেলাম। আমি ক্লাশের কাছে যাচ্ছি আর একটু একটু অবাক হচ্ছি, সেই লুচ্ছা মেয়েটার মতো একটা মেয়েকে দেখা যাচ্ছে, আমি ধীরে ধীরে এগিয়ে গেলাম ক্লাশের দিকে, আরে আমার সন্দেহ ঠিকি ছিলো, এটা সেই মেয়েটাই, কিন্তু এই মেয়ে এখানে কেনো, একেতো কখনো দেখিনি আমাদের ক্লাশে, এ আবার কোথা থেকে উড়ে এসে জুড়ে বসলো, ' => কিরে কাব্য তুই আবার দাড়িয়ে গেলি কেনো? (মিনহাজ) => আমি আসলে কনফিউজ হয়ে আছি। => কিসের কনফিউশন? => এই মেয়েটা কে? আগেতো একে আমাদের ক্লাশে কখনো দেখিনি? => আরে সে যাই হোক আমাদের তাতে কি, হয়তোবা অন্য কলেজ থেকে ট্রান্সফার হয়ে আমাদের ক্লাশে জয়েন করেছে, বাদ দে তুই চল ক্লাশে। => এই মিনহাজ? => বল কি বলবি? => তোকে একটু আগে যে বললাম একটা মেয়ের সাথে ঝামেলা হয়েছে? => হ্যা? => এই সেই মেয়ে। => কি বলিস এই মেয়ের সাথে তোর ঝগড়া হয়েছে? => হ্যা এই মেয়ের সাথেই। =>আরে হয়েছে তাতে কি হয়েছে, তোরতো আর কোনো দোষ ছিলোনা আর কে এই মেয়ে আমাদের সাথে কথা বলার সাহস হবেনা ওর চল এখন। => আচ্ছা ঠিক আছে চল। ' সেটাইতো, আমি এই মেয়েকে নিয়ে ভাবছি কেনো, এই মেয়ের কি সাহস আছে নাকি আমায় কিছু বলার, আমায় কিছু বললে আমিও এর উচিত জবাব দিতে পারবো। আমি ওসব কিছু না ভেবে ক্লাশের ভেতর গিয়ে বসলাম, একটু পর মেয়েটা আমায় দেখে ফেললো, আমায় দেখেই আমার দিকে কেমনভাবে যেনো তাকিয়ে আছে, মনে হচ্ছে চোখ দিয়ে আমায় গিলে খাবে, আমি কম কিসে, আমায় খেয়ে ফেললে আমিও পেটের ভেতর গিয়ে খামচি দেবো তখন মজা বুঝবে কি রকম, যাইহোক আমি মেয়েটার দিকে না তাকিয়ে অন্যদিকে তাকালাম, একটু পর ক্লাশে স্যার চলে আসলো.......... *


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৬৭ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...