বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

এই গল্পের নাম নাই

"মজার গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান শাহারিয়ার(guest) (১৫৮৪ পয়েন্ট)



X আমার ইমন মামার সাথে আমার সম্পর্ক একেবারে বন্ধুর মতো। মামা আমার থেকে মাত্র ২ বছরে বড়। ৪ দিন পর মামার বিয়ে। তাই আমি আজ নানার বাড়ি যাচ্ছি। গত চার বছরে আমি নানা বাড়ি যাই নি। আমি নানাবাড়ি খুব কম যাই। তাই সেখানকার অনেক মানুষকেই আমি চিনি না। সব কিছুই কেমন যেন অচেনা অচেনা লাগছে। যেহেতু বিয়ে বাড়ি অনেক লোকের আনাগোনা আছে। তার ভিতরে কয়েকটা সুন্দরী মেয়েও আছে। স্বভাবগতভাবেই আমার দৃষ্টি সব সময় মেয়েদের প্রতি থাকে। এর ভিতরে একটা মেয়েকে আমার খুব ভাল লাগল। . মেয়েটার বাড়ি মনে হয় আশে পাশে কোন বাড়ি হবে কারণ একটু পর পরই মেয়েটাকে দেখা যায়। বিয়ে বাড়ির বিভিন্ন কাজ ঘুরে ঘুরে দেখছে মেয়েটা । আমিও তাঁকে বার বার ফলো করছি। যদি একটু সুযোগ পাওয়া যায় একা কথা বলার। কয়েকবার সুযোগ পেয়েও আমি কথা বলার সাহস পাই নি। আমি লক্ষ্য করছি মেয়েটাও আমাকে দেখে হাসে আবার আমার পাশা পাশি থাকে। আমি বিভিন্ন আকার ইঙ্গিতে তাকে বুঝাই যে আমি তারসাথে কথা বলতে চাচ্ছি। আর মেয়েটা শুধু হাসে। . আমার কেন জানি মনে হচ্ছিল মেয়েটা মনে হয় আমার মনের কথা বুঝতে পারে কিন্তু ধরা দেয় না । অবশেষে অনেক সাহস করে হাতে একটা গোলাপ ফুল নিয়ে মেয়েটাকে প্রপোজ করতে যাই। গোলাপটা মেয়েটার দিকে এগিয়ে দেই। আমার ঠোঁট কাপছে। কিছুতেই কথা বলতে পাচ্ছি না। আমি কিছু বলার আগেই মেয়েটা বলল – মামা কিছু বলবেন? প্রথমে আমি কিছুই বুঝতে পারি নি। বুঝতে পারার পরে একটা ভৌদৌড় দিয়ে পালিয়ে যাই। আর মেয়েটা হাসতে থাকে। আমি ভুলেই গিয়েছিলাম যে আমি নানাবাড়িতে আছি। আর এখানকার বেশিরভাগ মেয়েরাই আমার খালা হয়। . পরে খোঁজ নিয়ে জানতে পারি মেয়েটা লাতায় পাতায় আমার এক ধরণের খালা হয়। এর পর থেকে আমি মেয়েটার থেকে পালিয়ে পালিয়ে বেড়াতাম। মেয়েটা আমাকে দেখেই শুধু বলে – মামা ভাল আছেন? কি জানি বলবেন বলেছিলেন? বিয়ে বাড়ি এখন আমার কাছে বিসাদ লাগে। প্রেম করার আগেই এত বড় ছেকা খেয়েছি এটা মানতে পারছি না। . এর ৬ বছর পড়ের কথা……… . আমি আবার নানা বাড়ি গিয়েছিলাম। সেইখানে আবার মেয়েটার সাথে আমার দেখা হয়। মেয়েটা আমাকে জিজ্ঞাস করে – মামা কেমন আছেন? অনেক দিন পরে দেখা। আমি বললাম – হু ভাল। তবে এইবার মেয়েটার কোলে একটা ৩ বছরের বাচ্চা ছিল। বাচ্চাটা খুব দুষ্ট। আমি ভদ্রতার খাতিরে বললাম – বাচ্চা টা তো অনেক কিউট। – আর বলবেন না মামা অনেক জ্বালাতন করে। আমি বুঝতে পারলাম মেয়েটা বার বার ইচ্ছা করে আমাকে মামা মামা বলছে । আমি আর কি করব? মেয়েটার কথা শুনে বোকার মত হাসার চেষ্টা করলাম। . বাচ্চাটা বলে উঠে – মামা মামা দোকানে যাব মেয়েটা বাচ্চাটাকে শুধরিয়ে দেয় – এইটা তোমার মামা না তোমার ভাইয়া হবে আর আমার মামা। বাচ্চাটা বলে – আচ্ছা ভাইয়া দোকানে চলো । আমি ভদ্রতার খাতিরে বাচ্চাটাকে দোকানে নিয়ে যাই। আর মনে মনে বলি "তোর মায় যেমন বদের ভাইস প্রিন্সিপাল তুই হবি প্রিন্সিপ্যাল।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২০৪ জন


এ জাতীয় গল্প

→ গল্পের নাম- ব্রেকআপ
→ গল্পেরঝুড়ি, আমি বলছি !
→ গল্পের ঝুড়িতে ২০১৮ থেকে ২০২১ পর্যন্ত আমার অবস্থা
→ কে হবে এই মাসের টপ গল্পের ঝুরিয়ান!
→ গল্পের নাম দুজন দুজনার
→ কেন আমার গল্পের নায়কের নাম রনি
→ গল্পের ঝুড়ি ফ্রিতে ব্রাউজ করুন!
→ গল্পেরঝুড়ির নতুন সব ইমোজি
→ গল্পেরঝুরি
→ গল্পের ঝুড়ির খবর
→ বিলাসী গল্পের রিভিউ
→ গল্পের নাম? জানি না।:p
→ গল্পের কোনো নাম নেই
→ ♥গল্পেরঝুরিতে কিছু বাণী♥

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...