বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

জুতা চোর ও রাজকন্যা

"শিক্ষণীয় গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ☯পিচ্চি হুজুরッ (১৩৮ পয়েন্ট)



X মসজিদ থেকে জুতা চুরি করেন এক চোর। কিন্তু একদিন সে ঘোষনা শোনলো যে তাকবীর ওয়ালার সাথে ৪০ দিন ৫ ওয়াক্ত নামাজ আল্লাহর খুশির জন্য মনোযোগ দিয়ে পড়বে তার কাছে বাদশা তার একমাএ মেয়ে বিয়ে দিবে। তাই, জুতা চোর, জুতা চুরি বাদ দিয়ে এখন থেকে প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত নামাজ সুন্দর করে আদায় শুরু করে। এভাবে চলতে চলতে বাদশা ৩৯ দিন খবর নিয়ে জানতে পারলো জুতা চোর যুবকটিই একটানা ৩৯ দিন এক টানা ৫ ওয়াক্ত নামাজ সময় মত আদায় করেছে। তাই বাদশা আগামিকাল এসে তাকে রাজ দরবারে এসে, বাদশার মেয়েকে বিয়ে করতে বলে। কিন্তু, যুবকের ৪০ দিন, ৪১,৪২ দিন যায় কিন্তু সে আর আসেনা। বাদশা তালাশ করতে করতে যুবককে খুজে বলতে লাগলো -তোমাকে জোর করে বিয়ে করতে বলছিনা, কেন আসলেনা তুমি যুবকবলতে লাগলো বাদশা :আপনি জানেননা! আমি ভাল মানুষ নই, জুতা চোর! বাদশা বলে :তবুও আমি তোমার কাছেই আমার মেয়ে বিয়ে দিব! এবার, যুবকের চোখ হতে পানি টপ টপ করে পড়ছে। সে বলতে শুরু করে :৪০ দিনের দিনও আমি রাজকুমারি আর রাজ্য হাসিল করার স্বপ্ন দেখছি কিন্তু বাদশা, ৪০ তম দিনের শেষ নামাজের শেষ রাকাতের শেষ সেজদায় আমি যেন জান্নাতের প্রশান্তি পেতে শুরু করলাম।আমার হৃদয় প্রশান্তিতে ভরে গেছে, জীবনের সব খুশি ভুলে গেলাম। আমার দয়াময় আল্লাহ যেন ভালবাসা ভরে দিয়েছে।। আমার হৃদয় পাল্টিয়ে গেছে। আজ আমি নারী চাই না, রাজ্য চাইনা, চাই শুধু নামাজের সেজদার সেই জান্নাতি প্রশান্তি।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৯৪ জন


এ জাতীয় গল্প

→ ইরা ও নীরা
→ বাবা ও ছেলের গল্প
→ তিন চোরের গল্প
→ ইউটিউব ভিডিওটি
→ ইরা ও নীরা
→ “প্রত্যাশা অনুযায়ী ফলাফল না পাওয়ার গল্প”
→ ঐতিহাসিক আসহাবে কাহাফের ঘটনা ও শিক্ষা
→ টুনটুনি ও ছোটাচ্চু
→ ইউনুস (আঃ)-এর কওম (পর্ব ১)
→ আঁখি ও আমরা ক'জন (১০)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...