বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

অন্তরালে - ৩

"জীবনের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান মোঃ আনিছুর রহমান লিখন (৫৫ পয়েন্ট)



X আমার বন্ধু, আমি সিএনজি চালাই। আজো রোজকার দিনের মতো সিএনজি নিয়ে বের হয়েছি। দেখলাম সেই বৃদ্ধ লোকটাকে। খুউউব ক্লান্ত। আমি বললাম, - চাচা আমাকে চিনতে পারছেন কি? - হ বাবা, কিন্তু এখন কথা বলতে পারছি না। - আমি কি সাহায্য করতে পারি? - হ বাবা, একটু সাহায্য করো। - দেন আমাকে দেন, আর আপনি সিএনজি তে বসে থাকেন। উনার কাছে জানলাম বিকেলে উনার মেয়ের বিয়ে। কাজ করার মতো কেউ নাই। তাই বাধ্য হয়ে বৃদ্ধ বয়সে নিজেই কাজ করছেন। আমিও তাই কাজ করে দিলাম। উনাকে বাড়িতে পৌঁছে চলে এলাম। হঠাৎ দেখি তিনভরী স্বর্ণ আমার সিএনজি তে। খুউউব চিন্তা পড়ে গেলাম। তড়িঘড়ি করে সিএনজি নিয়ে রওনা দিলাম। ঘন্টা দেড়েক রাস্তা। যখন পৌঁছি, দেখি সব শেষ। আমাকে দেখে বৃদ্ধ কাঁদতে লাগল। বাবা একটু আগে আসলে মনে হয় এ পরিস্থিতি হতো না। জানতে পারলাম বিয়ে ভেঙে গেছে। যাহোক, আমি ওখানে কিছুক্ষণ থাকলাম। হঠাৎ কারে চাচীর আর্তনাদ শুনতে পেলাম। বিয়ে ভেঙে যাবার কারণে চাচীর কথা শুনে অভিমানে তার মেয়ে আত্মহত্যা করতে যাচ্ছিল। অনেক চেষ্টায় ওকে থামাতে সচেষ্ট হলাম। - কি করছেন? এটাই কি সমাধান? - কি করতাম আমি? - একবার আপনার বৃদ্ধ বাবা মার কথা মনে হলো না। আপনার কিছু হলে উনারা কি করতেন, ভেবে দেখেছেন কি? - এই নিয়ে ৫ বার আমার বিয়ে ভেঙে গেল। আমি মরে গেলে বাবা মার ভালই হতো। - না। এটা কোন সমাধান নয়। আপনি দেখতে সুন্দরী। হয়ত সময় লাগবে। - এই সুন্দরই আমার অভিশাপ। সবাই লোলোপ দৃষ্টিতে আমাকে প্রতিনিয়ত মেরে ফেলে। - দোষ তো আপনারই! পর্দা করুন। - আপনি এত কথা বলছেন কেন? - না, আর বলব না। আপনার জীবন আপনার হাতে। আমার কি আসে যায়? - এতই যখন মমতা দেখাচ্ছেন, পারবেন কি আমাকে বিবাহ করতে? - পারব, তবে তোমাকে পর্দা করতে হবে কিন্তু। তুমি কি রাজী হবে? একটা কথা শুনো আমি কিন্তু সিএনজি চালাই। পাশাপাশি পড়াশুনা করছি জাবিতে। - যার মনটা এত সুন্দর, তাকে বিবাহ করলে দোষ কি? - তোমার নাম কি? - আরিফা আনজুম অপরাজিতা। - আপনার? - মোঃ আনিছুর রহমান লিখন। চাচা ও চাচীর সম্মতে বিয়ে করে ফেললাম। যতটা ভেবেছিলাম, অপরাজিতা তার চেয়েও মধুর ও পবিত্রা। যাকে জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত ভালবেসে যেতে চাই। তবে আমার অতীত ছিল। কোন একটি মেয়েকে ভালবাসতাম। কিন্তু তার চাহিদা বেশি ছিল। আমার অবস্থা দেখে আমাকে অপমান করে তাড়িয়ে দিয়েছিল। আর এ ঘটনাটি অপরাজিতা জানালাম। সে আমাকে আরো বেশি বেশি ভালবাসতে শুরু করল। আর জানালো অল্পতে সুখ আছে, বেশিতে নয়। ....চলবে... -


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৭৪ জন


এ জাতীয় গল্প

→ #অন্তরালেও_তুমি_আমার
→ #অন্তরালেও_তুমি_আমার
→ অন্তরালে - ৪
→ অন্তরালে ভালোবাসা
→ ♥ অন্তরালে - ২♥
→ ♥ অন্তরালে - ১♥
→ অমানিশার অন্তরালে
→ গল্প : হৃদয়ের অন্তরালে
→ অনূভূতির অন্তরালে ....
→ গহীন অন্তরালে
→ বিশ্বাসের অন্তরালে

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...