গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !
নোটিসঃ কর্টেসি ছাড়া গল্প পাবলিশ করা হবেনা । আপনারা গল্পের ঝুড়ির নিয়ম পড়ে নেন ।

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান গন আপনারা শুধু মাত্র কৌতুক এবং হাদিস পোস্ট করবেন না.. যদি হাদিস /কৌতুক ঘটনা মুলক হয় এবং কৌতুক টি মজার গল্প শ্রেণি তে পরে তবে সমস্যা নেই অন্যথা পোস্ট টি পাবলিশ করা হবে না....আর ভিন্ন খবর শ্রেনিতে শুধুমাত্র সাধারন জ্ঞান গ্রহণযোগ্য নয়.. ভিন্ন ধরনের একটি বিশেষ খবর গ্রহণযোগ্যতা পাবে

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান গন আপনারা শুধু মাত্র কৌতুক এবং হাদিস পোস্ট করবেন না.. যদি হাদিস /কৌতুক ঘটনা মুলক হয় এবং কৌতুক টি মজার গল্প শ্রেণি তে পরে তবে সমস্যা নেই অন্যথা পোস্ট টি পাবলিশ করা হবে না....আর ভিন্ন খবর শ্রেনিতে শুধুমাত্র সাধারন জ্ঞান গ্রহণযোগ্য নয়.. ভিন্ন ধরনের একটি বিশেষ খবর গ্রহণযোগ্যতা পাবে

ঈমানের স্বাদ মোছা যায় না

"ইসলামিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান জাহিদ হোসাইন (জয়) (৯৫৩ পয়েন্ট)



ঈমানের স্বাদ মোছা যায় না January 6, 2017 মুহাম্মদ বশির উল্লাহ মাআলিমুত তানযিল কিতাবে বর্ণিত আছে, মাশেতা নামক একজন মহিলা ফেরাউন কন্যার চুল আঁচড়ানোর কাজে নিয়োজিত ছিলো। একদিন ফেরাউনের কন্যার চুল আঁচড়ানোর সময় চিরুণিটি হাত থেকে মাটিতে পড়ে যায়। তা উঠাতে যেয়ে তার মুখ থেকে বের হয়ে গেল, হে খোদা! তোমাকে অমান্যকারী ধ্বংস হোক। এ কথা শুনে ফেরাউনের কন্যা জিজ্ঞেস করলো, ফেরাউন ছাড়াও তোমার কোনো খোদা আছে নাকি? দাসী জবাবে বললো, আমার খোদা সেই খোদা যে ফেরাউনেরও খোদা। শুধু ফেরাউনের নয় আসমান জমিনেরও খোদা। তিনি একক, তার কোনো শরিক নেই। একথা শুনে সে রাগে অগ্নিশর্মা হয়ে পিতার কাছে গিয়ে বললো, আব্বা আমার চুল বিন্যাসকারিণী বলে, আমার খোদা সেই খোদা যে ফেরাউনেরও খোদা, আসমান জমিনেরও খোদা। তিনি একক, তার কোনো শরিক নেই। ফেরাউন বললো, তাকে এক্ষুণি হাজির করো। সাথে সাথে তাকে হাজির করা হলো। সেও নির্ভয়ে হাজির হলো। আজ তার আল্লাহ’র প্রতি ভালোবাসার ঈমানী পরীক্ষার দিন। এতে প্রাণ দিতে হলেও দিবে। তার ভালোবাসায় যদি জীবন দেয়া যায় তবেই তো ধন্য। ফেরাউন জিজ্ঞেস করলো, তুমি আমাকে ছাড়া অন্য কারও ইবাদত করো? সে বললো, হ্যাঁ। ফেরাউন বললো, সে খোদাকে ছেড়ে এখনই আমার সামনে আমার খোদায়ী স্বীকার কর। মাসেতা বললো, কিয়ামত পর্যন্ত তা আমারা দ্বারা সম্ভব হবে না। নির্দেশ দেয়া হলো, তাকে পেরেক মার। তৎক্ষণাৎ তাকে শুইয়ে হাতে ও পায়ে পেরেক মারা হলো। বিষাক্ত সাপ ও বিচ্ছু এনে তার উপর ছেড়ে দেয়া হলো। বলা হলো, এখনও সময় আছে তোমার খোদাকে ছাড় নতুবা ২ মাস পর্যন্ত তোমাকে লাগাতার এ শাস্তি দেওয়া হবে। মাশেতা বললো, তুমি আমাকে দুই মাসের শাস্তির ভয় দেখাচ্ছো ৭০ মাস পর্যন্ত আমাকে শাস্তি দিয়ে দেখ, আল্লাহ’র ভালোবাসা এক বিন্দুও কমবে না, বরং বাড়বে। হে ফেরাউন শুনে রাখ, তুমি যদি বছরের পর বছর আমাকে শাস্তি দিতে থাকো তবুও আমি আমার মহান প্রভুকে পরিহার করবো না। এ নেক মহিলার দু’টি সন্তান ছিলো। একটি পাঁচ বছরের, আরেকটি দুগ্ধপোষ্য। ফেরাউন উভয় সন্তানকে তার মায়ের সামনে এনে প্রথমে বড় সন্তানকে মায়ের বুকের উপর রেখে জবাই করলো। তারপর বললো, এখনও সুযোগ আছে না হয় তোমার দুগ্ধপোষ্য এ শিশুটিকেও হত্যা করা হবে। মাশেতা বললো, যদি তুমি সমগ্র পৃথিবীকে আমার বুকের উপর এনে জবাই কর তবুও আমি আমার প্রিয়তম খোদাকে ভুলতে পারবো না। একথা শুনে হুকুম দেয়া হলো, এ শিশুটিকেও তার ভুকের উপর রেখে জবাই করো। ওই শিশু সন্তান যে বুকের উপর চড়ে দুধ পান করতো আজ সেখানে রেখে তাকে জবাই করা হবে এ অবস্থা দেখে মায়ের চোখে পানি এলো। ৬ মাসের এ শিশুর মুখ থেকে তখন বের হলো, মা কেন কাঁদো? জান্নাত তোমার জন্য সুসজ্জিত করা হচ্ছে। মা জান্নাতে পৌঁছে খোদার দীদার হাসিল হবে। এখনো কথা বলতে পারে না এমন শিশুর মুখ থেকে একথা শুনে মা অবাক হলেন। তাঁর ঈমান আরো মজবুত হলো। জালিমরা শিশুটিকে হত্যা করলো। মা প্রভুর ডাকে সাড়া দিয়ে চির জান্নাত বাসিনী হলেন। তাফসিরে দুররে মানসুরে আছে, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন মেরাজে যাচ্ছিলেন, বোরাক মিসরের কাছাকাছি এসে ময়দানে পৌঁছল, তখন জান্নাতের খুশবু তিনি অনুভব করলেন। বললেন, খুব সুন্দর সুঘ্রাণ পাচ্ছি, মনে হয় এটা জান্নাতের সুঘ্রাণ। জিবরাইল বললেন, জান্নাততো অনেক দূরে। মনে হয় ফেরাউন কন্যার কেশ বিন্যাসকারিণী মহিলা মাশেতার কবর থেকে এ সুঘ্রাণ আসছে। মন্তব্য:সংগ্রহিত so friends (no news is absolutely good news)


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৭১ জন


এ জাতীয় গল্প

→ নার্গিসকে লেখা অমর প্রেমপত্র
→ ন্যায়বিচার ভ্রাতৃত্ব ও ক্ষমা
→ হযরত মূসা (আঃ) জন্মের ঘটনা
→ ইমাম আবু হানিফা ও এক নাস্তিক
→ শেখ সাদির শিক্ষামূলক গল্প: অন্যায়ের উৎস
→ মুসলিম বিজ্ঞানীদের সংক্ষিপ্ত জীবনীঃ ইবনুন নাফিস
→ ভালোলাগা নাকি ভালোবাসা [পর্ব ৫]
→ "" ভাবিয়া করিও কাজ,করিয়া ভাবিওনা""
→ শিশু হারা মায়ের আর্তনাদ চিঠিতে!

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...