বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

আমার স্বপ্নের গল্পে তুমি(পর্ব৯)

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ESHRAT JAHAN (৪১৩ পয়েন্ট)



X ইসরাত চুপচাপ বসে রনির কথা ভাবছে।ভাবতে লাগলো কি থেকে কি হয়ে গেল।রনি তার মার কাছে গেল।মা বিছনায় বসে আছেন।রনি মার কোলে মাথা রেখে শুয়ে পড়লো।মার দিকে তাকিয়ে আছে।মা বললেন,"কি হলো এভাবে তাকিয়ে আছিস কেন?" "মা।" মা মাথায় হাত বুলাতে বুলাতে বললেন,"কি হয়েছে রে?" রনি বলল,"মা কি করে বলি আমার লজ্জা করছে।" "লজ্জা কিসের বলে ফেল।" "মা ইসরাত বিয়েতে রাজি হয়েছে।তাকে আংটি পরিয়ে দিয়েছি।" রনি উঠে বসলো।মা বললেন,"তাই নাকি বাবা?আমার কিন্তু ওই মেয়েটা ভীষণ পছন্দ।" মা রনির বাবাকে ডাকতে লাগলেন।বাবা এসে বললেন,"কি হয়েছে ডাকছো কেন?" "ওই মেয়েটা বিয়েতে রাজি হয়েছে।রনি তাকে আংটি পরিয়ে দিয়েছে।" "তাই নাকি?মেয়েটা কিন্তু আমার ভীষণ পছন্দ।" "শুধু তোমার একলার পছন্দ না সবারি।" রনি নিজের রুমে এলো।ফোনে ইসরাতের ফটো বের করলো। "এই তুমি শেষ পর্যন্ত তো রাজি হলে।দেখো বিয়ের পর তোমাকে কেমন রাজরানী করে রাখি।রানীর মতো করে রাখবো।আচ্ছা তুমি বগুড়া থেকে আসবে কবে?কথা বলতে ইচ্ছে করছে তোমার সাথে।" রনি ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে গেলো।ইসরাত তিনদিন পর ঢাকায় আসলো।ইসরাত পার্কে গেল।দেখলো রনি বসে আছে।ইসরাত চুপচাও রনির পিছনে দাঁড়ালো।তারপর রনির কানের কাছে চুরি দিয়ে শব্দ করতে লাগলো।চুরির শব্দে রনি পিছনে তাকালো।রনি পিছনে তাকাতেই ইসরাত শব্দ করা বন্ধ করলো।তারপর রনির পাশে বসলো।রনি বলল,"বগুড়া থেকে কখন এসেছো?" "কাল রাতে এসেছি।খুব মিস করছিলে আমায়?" "হুমম।" "আমিও তোমায় মিস করছিলাম।" "আজকে তোমাকে খুব সুন্দর লাগছে রাত।" "তোমার কাছে আমাকে তো সবসময়ই সুন্দর লাগে।" "এই তোমাকে আমার কাছে সুন্দর লাগবে নাতো কাকে লাগবে?" "সেটাই তো।আচ্ছা তুমি চোখ বন্ধ করো।" "কেন?" "বন্ধ করো।" রনি চোখ বন্ধ করলো।ইসরাত একটা কাগজ বের করে রনির হাতে দিলো।রনি চোখ খুলে দেখলো ইসরাত তার ছবি আকিয়েছে।রনি বলল,"বাহ একদম আমার চেহারার মতো হয়েছে রাত।" "এই তোমাকে আকিয়েছি তো তোমার মত হবে নাতো কার মতো হবে।" "অনেক সুন্দর হয়েছে রাত।" রনি ইসরাতের দিকে তাকিয়ে বলল,"রাত আমি যদি তোমার সাথে দুস্টুমি করি তাহলে তুমি কি করবে?" "কি করবো শুনবে?" "হুমম।" "এইযে লম্বা লম্বা চুল দেখছো এই চুলে বেনি গাঁথবো তারপর সেই বেনি দিয়ে তোমাকে বেঁধে রাখবো হিহিহিহিহি।" "ওহ।" "আর আমি যদি দুস্টুমি করি?" "তাহলে আমিও তোমার এই চুলে বেনি গাঁথবো তারপর এই চুল তোমাকেই বেঁধে রাখবো।হিহিহি।" দুজনেই হেসে উঠলো।ইসরাত ঘড়ির দিকে তাকিয়ে বলল,"আমাকে এখন চলে যেতে হবে।দেখো টাইম হয়ে গেছে।" রনির ইসরাতের হাত ধরলো।বলল,"আবার কখন দেখা হবে?" "জানি না।আর শোনো প্রিয় মানুষদের এত দেখতে নেই।" "এতো দেখলে কি হবে?" "একটা আপু ইয়ার্কি করে বলেছিল প্রিয় মানুষদের এত দেখলে জ্বর আসে।" "জ্বর?" "হুমম হিহিহি।এখন যদি তোমার জ্বর আসে।" "আমার মনে হয় তোমাকে না দেখলেই আমার জ্বর আসবে।" "হাত ছেড়ে দাও চলে যাবো।", "ছাড়তে তো ইচ্ছে করে না।" "রনি।" রনি ইসরাতের হাত ছেড়ে দিলো।ইসরাত বললো,"ও হ্যা তোমার তো ফোন নাম্বার নেওয়ায় হয়নি।" "হ্যা তাই তো।" ইসরাত ফোন নাম্বার নিয়ে চলে গেলো। রাতের বেলা ইসরাত রনিকে এসএমএস দিলো "কি করছো?" রনির রিপ্লাই আসলো।,"কি আর করি?তুমি তো আমার হৃদয়ে এমনভাবে গেধে গেছো যে খালি তোমার কথায় ভাবতে ইচ্ছে করে।তোমার কথা ভাবছিলাম।" "আমারও তোমার কথা ভাবতে ইচ্ছে করে।তোমাকে খুব দেখতে ইচ্ছে করছে।" ",আমারও।" ইসরাত রনির এসএমএসের অপেক্ষায় আছে।কিন্তু এসএমএসের রিপ্লাই দিচ্ছে না কেন।ইসরাতের ফোনে কল আসলো।রনি কল দিয়েছে। "রাত।" "বলো।" "একটু বারান্দায় আসো।" ইসরাত বারান্দায় গেলো।দেখলো রনি।ইসরাত বললো"তুমি এত রাতে?থামো আমি নিচে আসছি।" ইসরাত ফোন কেটে দিয়ে নীচে গেল।রিফাহ বারান্দায় গেলো তারা কি করছে সেটা দেখার জন্য।ইসরাত রনির কাছে গেল।ইসরাত বলল,"তুমি এই রাত ১২টায় এখানে কেন?" "আমারও তোমাকে দেখতে ইচ্ছে করছে তোমারও আমাকে দেখতে ইচ্ছে তাই ভাবলাম তোমার সাথে দেখা করে আসি।" পাগল নাকি তুমি?এই রাতে দেখা করতে আসার কি দরকার।কাল সকালেই তো দেখা করতে পারতে।" "হুমম পারতাম।তবুও।" "আমাকে দেখা হয়েছে?" "না হয়নি।" "এখন বাড়ি যাও।" "হ্যা যাবো।" "আরে যাও।" ইসরাত ওপরে আসলো।রনি চলে গেল।ইসরাত ভেতরে ঢুকতেই রিফাহ বলল,"ভালোই তো চলছে তোদের প্রেম ভালোবাসা।" "এই তুই চুপ কর।তোর বিয়ের জন্য ছেলে খুঁজতে হবে।" "হুমম তা বাবা মা খুঁজবে।তোর পড়ালেখা কবে যে শেষ হবে।আমার খালাতো ভাইয়ে বিয়া খাবো।তুই হলো আমার ভাবি।" "চুপ।"


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৫২৬ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...