বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

শেষ বিকেলের মায়াবতী♥ (শেষ পার্ট)

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Ariya Ibnat (০ পয়েন্ট)



X শেষ বিকেলের মায়াবতী♥ Part:25 and last writer:Tuba Rubaiyat(R.I.T) ♦♦ আজ অভি-শ্রুতির বিয়ে।।আজ থেকে শুরু হবে নতুন পথচলা।।সকাল থেকেই বিয়ের তোড়জোড় চলছে।।সবাই ব্যাস্ত।।কে কোন ড্রেস পড়বে,কিভাবে সাজবে এসব নিয়ে।।কিন্তু শ্রুতি মন খারাপ করে বসে আছে।।এতদিন অভিদের সাথে থাকলেও আজ কেন যেন কষ্ট হচ্ছে।। । দুপুরে পার্লারের মেয়েরা শ্রুতিকে সাজাতে চলে এসেছে।।আজ লাল বেনারসি, সারা শরীর ভর্তি গহনায় শ্রুতিকে পুরো বউ বউ লাগছে।।তিনা সুবাহ ওরা দুজনে ওকে নিয়ে হাসাহাসি করছে।।।শ্রুতিকে স্টেজে নিয়ে যাওয়া হলো।।।লাল এবং গোল্ডেন শেরওয়ানী তে অভিকেও কোন রাজপুত্রের চেয়ে কম লাগছেনা।।সবাই শুধু এটাই বলছে যে ""পার্ফেক্ট কাপল""।।ধুমধামের সাথেই ওদের বিয়েটা হয়ে গেল।।।বাধা পড়ে গেল সারা জীবনের জন্য।।। ♦♦ শ্রুতিকে সবাই অভির রুমে বসিয়ে রেখে গেল।।।শ্রুতি রুমে ঢুকে অবাক হয়ে গেল।।।দেয়ালে অভি আর শ্রুতির অনেক গুলো ছবি লাগানো।।।।চারপাশে তাকিয়ে আরো অবাক হয়ে গেল।।।চারপাশে শুধু ওর ছবি বড় বড় করে লাগানো।।।এই ছবিগুলো তো ও কখনো তুলেনি।।ওর সেই লাল ড্রেস পড়া ছবি,,বারান্দা দিয়ে হাত বাড়িয়ে যখন বৃষ্টি ধরছিলো,,,লেকের পাড়ে বাচ্চা টাকে জ্যাকেট পড়িয়ে দিচ্ছে,,,রিহার হলুদের দিন শ্রুতি দুগালে হলুদ নিয়ে রাগি চোখে তাকিয়ে আছে,,ও নদীর পানিতে পা ডুবিয়ে বসে আছে,,,সেদিন পাহাড়ে যখন সুর্যোদয় দেখছিলো অভি ওর কাধে থুতনি দিয়ে রেখেছে আর দুজনেই আকাশের দিকে তাকিয়ে আছে, ভোরের সূর্যের হলুদ আভা দুজনের মুখে আচড়ে পড়ছে সেই ছবিটা ও আছে।।এছাড়া ও এমন আরো অনেক ছবি আছে।।।একটা ছবি দেখে ওর চোখ আটকে গেল সেদিন কিচেনে ওর আর অভির মুখে আটা মাখা ছবি।।।দুজনকেই অসম্ভব কিউট লাগছে ছবিটাতে।।।ছবিটা বড় করে লাগানো।।।ও ছবিটা দেখে নিজের অজান্তেই হেসে দিলো।।।এর মধ্যে যে কখন অভি ওর পাশে এসে দাঁড়িয়ে আছে বুঝতেই পারেনি।।।অভিকে দেখেই জিজ্ঞেস করলো,,,,,, --এতো ছবি তুমি কোথায় পেয়েছো?? --এগুলো সব লুকিয়ে লুকিয়ে তুলেছিলাম ম্যাডাম,,,,,,, --কিহ!!!!তুমি লুকিয়ে লুকিয়ে মেয়েদের ছবি তোলো???তুমি লুকিয়ে লুকিয়ে আর কার কার ছবি তুলেছো??সত্যি বলো,,,, --আরে আমি তো শুধু আমার মায়াবতীর ছবিই তুলেছি।।।আর কারো না।। --আচ্ছা তাহলে ঠিক আছে।।।আর এই পাহাড়ের ছবিটা কে তুলেছিলো??? --ওটা ইহান তুলেছিলো,,,,,,,,,আমাকে সারপ্রাইজ দিতে,,,, --ছবিটা খুব সুন্দর হয়েছে।।। --হুম্মম্মম্মম্মম্মম্মম্মম!!!! অভি শ্রুতির হাত ধরে ওর রুমের সাথেই একটা মিনি ছাদ আছে সেখানে নিয়ে এলো।।।।ছাদ টা ও খুব সুন্দর করে ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছে।।।।। --ওয়াও ছাদটা ও খুব সুন্দর লাগছে।। অভি ওর সামনে হাটুগেড়ে বসে পড়ে।।। ওর পায়ে একজোড়া নুপুর পড়িয়ে দিয়ে বলে,,,,""এগুলো কখনো খুলবে না। সবসময় পড়ে থাকবে।।।""" শ্রুতির সামনে হাটুগেড়ে বসে হাত বাড়িয়ে দিয়ে বলল,,,,,,,,,,,,,,,,, --""""ভালোবাসি তোমায় মায়াবতী।।।তোমার সব সুখের কারন হতে চাই,,তোমার মুখের হাসির কারন হতে চাই,,,তোমার বকা গুলো প্রতিদিন শুনতে চাই,,সবসময় তোমার পাশে থাকতে চাই,,,আমার প্রতিটা সকাল হবে তোমার পায়ের নুপুরের রিমিঝিমি শব্দে,,,,আমার মুখে হাসি ফুটবে তোমার মায়াবী মুখের টোল পড়া খিলখিল হাসিতে,,,,,আমার বিকেল হবে তোমার মায়াবী হাসিতে,,,,,আমার সন্ধ্যা হবে তোমার সাথে সন্ধ্যাতারা দেখে,,,,আমার রাত হবে তোমার সাথে চাঁদ দেখে।।।আমি চাই শেষ বিকেলে আমার মায়াবতীর হাতে হাত রেখে কৃষ্ণচূড়া গাছের নিচে হাটতে।।গোধূলি লগ্নে তোমার মুখে রোদের লাল কিরণের প্রতিফলন উপভোগ করতে চাই।।এমন হাজার চাওয়ার মাঝে আমি শুধু তোমাকে চাই।।।।।থাকবে আমার পাশে?????????????????[gjgj] শ্রুতি ও আজ হাত বাড়িয়ে দিলো।।।।।।আজ থেকে শুরু হবে নতুন পথচলা,,নতুন জীবন.................... ********সমাপ্ত********************** [অবশেষে গল্পটা শেষ হলো।।।অনেক দিন ধরে লিখেছিলাম গল্পটা।।।গল্পটা হয়তো পুরোপুরিভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারিনি।।তবে চেষ্টা করেছি।।।ভুলত্রুটি গুলো ক্ষমা করবেন।। যারা এতদিন ধরে সাথে ছিলেন তাদের সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।। gjসাথে আছে আইস্ক্রিমicecream।।।।আর পুরো গল্পটা কেমন লেগেছে অবশ্যই জানাবেন।।।।সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ্য থাকবেন।।।আল্লাহ হাফেজ!!!]]]]]]


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৩১৬ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...