গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

গল্পেরঝুড়িতে স্বাগতম ...

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

এ মায়ের কি কষ্ট

"সত্য ঘটনা" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান মো:ইয়াসির আরাফাত (০ পয়েন্ট)



লন্ডনে এক মেয়ের আনেক দিন পর এক মেয়ে হয়। তারপর তার স্বামি মারা যায়।সে তার মেয়ের নাম রাখল মেরি।সেই মা ভাবল সে তার মেয়েকে ডাক্তার করবে।কিন্তু তারা ছিল খুব গরিব।সেই মা পরের বাড়িতে কাজ করে তাকে পড়াত।আনেক দিন পর তার মেয়ে ডাক্তার হল।মেরি একটি ডাক্তার ছেলের সঙ্গে বিয়ে করল।তাই তার মা খুব খুশি।তারপর মেরির দুবছর পর এক মেয়ে হল।তার নাম রাখল জেরিন।মেরিনের মা জেরিনকে খুব ভলবাসত।আনেক দিন পর মেরিনের মা বৃধ্ব হয়ে গেল।সে চলাফিরা করতে পারতনা।তাই মেরি তার মাকে আসরমখানাতে রেখে এল।কয়এক মাস পর জেরিনের জন্মদির হল।তাই জরিনের দাদি সবাইকে বলল আমার নাতনির জন্মদিনে আমাকে নিতে আসবে।তাই সে দসদিন আগে থেকে তার নাতনির জন্য একটি নিজ হাতে জামা বানাচ্ছিল। কিন্তু আসরমখানার লকেরা তাকে ঘরের বাইরে জামাবানাতে বলল।যেদিন জন্মদিন সদিন সে অপেক্ষা করতেলগল যে তার মেয়ে তাকে গাড়িতে করে নতে আসবে।কিন্তু তার মেয়ে তাকে নিতে এলনা।মেরিনের মা কষ্টতে মারা গেল।আসরমখনাত মেয়ে করমি মেরিকে ফনে সব বলল।মেরি বলল পাসে এক গ্রহসথানে তাকে পুতে দাও।মেয়েটি তাই করল।কিছু দিন পর মেরি মেয়েটি কে বলল তুমি আমাত মায়ের সেবা করেছ। তাই তুমি আমার সঙ্গে আমার বাসায় চল। সে বলল আপনার মেয়ে যখন আপনাকে আসরমখানাতে রেখে যাবে তখুন আমি আপনারও সেবা করব। তাই আমি আসতে পারবনা।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৭৩০ জন


এ জাতীয় গল্প

→ হযরত শাহজালাল (রা.) এর মাজার এবং লাক্কাতুর চায়ের বাগান ভ্রমণ
→ অষ্ট্রগ্রাম এবং মিঠামইন ভ্রমণ
→ একটি ভয়ঙ্কর ভূতের গল্প
→ তিতুনি এবং তিতুনি পার্ট ১৯
→ তিতুনি এবং তিতুনি পার্ট ১৮
→ তিতুনি এবং তিতুনি পার্ট ১৭
→ আমি খাবারের বিল বাদে , সবকিছু দিতে পারব ।
→ এক ছোট পাখির কাহিনী
→ রাজনীতিবিদের এখন সুযোগ মানুষের মন জয় করার।
→ মালেক বিন দিনার এর একটি সুন্দর কাহিনী

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...