বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

প্রতিশোধ

"ভৌতিক গল্প " বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Bishal Dev (০ পয়েন্ট)



X এক রাজ্যে ছিল এক অত্যাচারী রাজা।সে তার রাজ্যের প্রজাদের ওপরে খুবই অত্যাচার করত।গরিব প্রজাদের ওপর প্রহার করে খাজনা আদায় করত।তার বিরোধিতা করার সাহস কেও পেত না।তার রাজ্যের শেষ প্রান্তে বাস করত সাধন নামের এক সাহসী ব্যক্তি।তিনি রাজার এসব অত্যাচার সহ্য না করে রাজার বিরুদ্ধে একটি দল গঠন করে।অনেক প্রজারা তার সাথে যোগ দেয়।এরপর থেকে রাজা যদি কোনো অন্যায়-অবিচার করত সেই দলটি সাথে সাথে তার প্রতিবাদ করত।এভাবে একসময় রাজা একপ্রকার বাধ্য হয়ে তার অত্যাচার কিছুটা বন্ধ করে।তবে রাজা খুবই রাগান্বিত হয়ে গিয়েছিলেন।তিনি এই দলের প্রধান কে তা খোঁজ করতে থাকেন।সে যখন জানতে পারে যে সাধন তার বিরুদ্ধে এইসব কাজ করছে তখন রাজা কিছু পেয়াদা পাঠায় সাধনকে ধরে আনার জন্য।পেয়াদারা সাধনকে ধরে আনে রাজার কাছে।সাথে ছিল তার ছেলে।তার ছেলে অনেক আকুতি-মিনতি করছিল তার বাবাকে ছেরে দেওয়ারর জন্য।কিন্তু রাজা এতটাই ক্রুদ্ধ ছিলেন যে বাবা ছেলে দুজনকে বন্দি করে রাখে।সাধন পেয়াদাদের বলে তার ছেলেকে ছেরে দিতে।কিন্তু পেয়াদারা তাদের একটি অন্ধকার ঘরে রেখে দরজা বন্ধ করে চলে যায়।দুদিন পর সেই ঘর থেকে পঁচা গন্ধ আসতে থাকে।সবাই গিয়ে দেখে বাবা ছেলে মরে পরে আছে।রাজা তখন পেয়াদাদের বলে দুটো লাশ গাছে ঝুলিয়ে দিতে।এইদিকে সাধনের বউ রাজ্যের কিছু লোক নিয়ে ছেলে স্বামিকে খুঁজতে থাকে।এমনকি রাজার কাছেও যায়।রাজা তাদের বলে সে জানেনা কিছু।তারা যখন লাশগুলো খুঁজে পায় তখন সাধনের স্ত্রী কাঁদতে কাঁদতে রাজাকে অভিশাপ দিতে থাকে যে আমার ছেলে আর স্বামী ফিরে আসবে এর প্রতিশোধ নিতে।তুই নির্বংশ হবি।এইসব বলতে বলতে সে শোকে সেখানেই মারা যায়।এইভাবে একটি সুখী পরিবার শেষ হয়ে গেলো।এর পরের দিন থেকে রাজা আবারো অত্যাচার শুরু করে।কিছুদিন পর রাজার এক ছেলে বাইরে খেলতে বের হয়।কিন্তু সে আর ফিরে আসে না।সারা রাজ্যে তন্নতন্ন করে খোঁজা হয় কিন্তু কোথাও পাওয়া যায় না।এদিকে পুত্রের শোকে তার মা পাগল হয়ে যায় এবং সেও কিছুদিন পর মারা যায়।অন্যদিকে রাজার পেয়াদারা এক এক করে হারিয়ে যেতে থাকে এবং সবার লাশ পাওয়া যায় সেই গাছে যেই গাছে সাধন এবং তার ছেলেকে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছিল।প্রথমে কেও এইসব ঘটনার কারন বুজতে না পারলেও পরে সবাই ভাবতে লাগলো যে সাধন তার প্রতিশোধ নিতে ফিরে এসেছে।রাজার যে সব পেয়াদারা সাধন এবং তার ছেলেকে অত্যাচার করেছিল তারা সবাই একে একে মরতে থাকে।ভয়ে রাজার অন্য সব সদস্যরা চলে যাচ্ছিল।রাজা তার কৃত কর্মের জন্য শোক করতে করতে একসময় পাগল হয়ে যায়।সে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরত আর প্রলাপ বকত।একদিন সেই গাছে তার লাশ পাওয়া যায়।এইভাবে প্রতিশোধ নিল সাধন।এরপর আর কোনো সমস্যা কখনো হয়নি


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৬২২ জন


এ জাতীয় গল্প

→ প্রতিশোধ
→ প্রকৃতির প্রতিশোধ
→ অমায়িক প্রতিশোধ
→ প্রতিশোধ
→ প্রতিশোধ
→ প্রতিশোধ
→ প্রতিশোধ
→ প্রতিশোধ
→ প্রতিশোধ
→ প্রকৃতির প্রতিশোধ
→ প্রতিশোধ -১
→ "প্রতিশোধ"
→ প্রতিশোধ
→ প্রতিশোধ

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...