বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

গুন্ডি গার্লফ্রেন্ড

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ☠Sajib Babu⚠ (০ পয়েন্ট)



X বসে বসে গল্প লেখতেছি ।এমন সময় একটা মেয়ের আইডি থেকে মেসেজ আসলো। মেয়ে: ওই ছেলে ভাব দেখাও কেন। আমি: আজিব তো আমি আবার কিসের ভাব দেখাইলাম। মেয়ে: ওইইই কুত্তা, বলছি,না আমারে সব গল্প ট্যাগ করতে। কালকের গল্প টা টেগ করছ নাই কেন। আমি: ভদ্র ভাবে কথা বলেন।কাকে কী বলিতেছেন, আর আমি কাকে ট্যাগ করবো কাকে ট্যাগ করবো না,সেটা আমার বেপার। মেয়ে: তাই বুঝি, কালকে স্কুলে এ যাইবা না,তখন দেখবা আমার ভাইয়ে তোমার হাত পা ভাংবো। আমি: হা হা হা হা,কেন..? মেয়ে: আমাকে গল্প ট্যাগ না করার জন্য। আমি: হি হি হি মজা পাইলাম। মেয়ে: মজা কালকে দেখবা, স্কুলের এর ছাত্র লীগ এর সাধারণ সম্পাদক কে ছিনো, উনিই আমার বড় ভাই। একথা শুনে আমি তো পুরাই শেষ।কয় কী মাইয়া,তাড়াতাড়ি করে বড় ভাইয়ের ফেবু... আইডি দেখলাম।যাইয়া দেখি ঘটনা সত্য। ওই মাইয়া আসলে ই কলেজের বড় ভাইয়ের বোন।ভাবলাম বড় ভাইয়ের সাথে ভাল সম্পর্ক তৈরী করতে হবে। বাট কেমনে করা যায়। সেটাই ভাবতেছি। অনেক ভেবেচিন্তে একটা বুদ্ধি বের করলাম। সেটা হল, যেহেতু মেয়ে টা আমার লেখা গল্প পড়ে.... আমার গল্পের অনেক বড় ফ্রেন্ড হইছে সেহেতু তার ভাই ও আমার লেখা গল্পের অনেক বড় ফ্রেন্ড হবে।যেই ভাবা সেই কাজ। পরের গল্প টা ভাই বোন ২ জন কেই ট্যাগ করছি।হঠাৎ মেয়ের বড় ভাই ইনবক্স এ মেসেজ দেয়। মেয়ের ভাই: ওই ছেলে নেক্সট বার ট্যাগ করলে হাত পা ভেংগে দিবো। ইয়া আল্লাহ আমারে বাচাও...।বোন রে ট্যাগ না করলে হাত পা ভাংবো, আর ভাইরে ট্যাগ করলে হাত পা ভাংবো। আর কী করা এর পর থেকে মেয়েটার কথা ই শুনতে হচ্ছে। পরে জানতে পারলাম যে মেয়েটার বাসা কলেজ এর পাশে।মেয়েটার সাথে এর আগেও মেসেজ এ কথা হইছে। তখন ই মেয়েটা আমার পরিচয় নেয়।বাট মেয়েটার পরিচর দেয় নি।একদিন মেয়েটা আবার মেসেজ দেয়। মেয়ে:এই তোমার মেসেঞ্জার এর স্কেনসর্ট দাও।কার কার সাথে কথা বলো তা দেখাও। আমি: আজিব তো,আমি কেনো আপনাকে,আমি কার কার সাথে কথা বলি তার স্কেনসর্ট দেবো। মেয়ে: আমি বলছি তাই দিবা।কয়টা মেয়ের সাথে কথা বলো....? আমি: আমি আপনি কে, আমি কয়টা মেয়ের সাথে কথা বলি সেটা দেখার বা জানার আপনি কে।আপনার কোনো অধিকার নাই সেটা দেখা বা জানার। মেয়ে: ওই ছেলে আমি তোরে ভালবাসি।তাই ১০০ বার সেটা দেখার অধিকার আমার আছে। আর যদি আমার ভালবাসা গ্রহণ না করছ, তাইলে তোর কলেজে আসা বন্ধ।আর যদি আসছ তাইলে আমার ভাইয়ে তোরে গুম কইরা দিবো। হায়,হায়,আল্লাহ কেন যে গল্প লেখতে গেলাম।এই মাইয়ার বিশ্বাসস নাই। আর তার ভাই এর তো বিশ্বাস নাই।তার ভাইয়ের যে পরিমান পোলাপান আমারে আমার মতো ছেলেরে গুম করতে তাদের ১ মিনিট ও লাগবে না।তাছাড়া আমি বহিরাগত ছেলে আর তারা স্থানীয়।যেভাবে ই হোক মেয়ে টাকে বুজাইতে হবে। আমি: দেখেন আপু আমার গফ আছে।(মিথ্যা কথা) মেয়ে : ঠিকানা দে,আর কবর রেডি কর তার লাইগা। বাশ ২ টা ও কাটবি। আল্লাহ এই মেয়েরে দুনিয়ায় না পাঠাইলে কী হইত।মনে মনে বলতেছি। আমি: আরে আপু দেখেন,আমি দেখতে অনেক কালো,বিশ্রী, খাটো, চিকন, গরিব,ক্ষ্যাত নেশাখোর,......আপনি আমার ছেয়ে আরো ভাল ছেলে পাইবেন। মেয়ে: আমার জন্য পারফেক্ট, অ্যান্ড আমি তোমার একটা পিক দেখছি। ওইটা অনেক আগে পোস্ট করছো।আর এই আপনি আপনি করতেছো কেন। তুম কইরা বলো। আমি:দেখেন,আপনি যেমন আমারে ভালবাসেন। এর ছেয়েও বেশী আমি আর আমার গফ ২ জন ২ জনকে ভালবাসি। মেয়ে: আচ্ছা,তাই বুঝি, কালকে তোমার গফ আর তুমি একসাথে কলেজে আসবা। সালার কই পাই গফ... কী যে করি। পরের দিন কলেজে গেলাম।যাইয়া স্থানীয় একটা ফ্রেন্ড ছিল।কলেজে সেই আমার সব ছেয়ে ভাল বন্ধু ছিল। তার সাথে অনেক কিছুই শেয়ার করি। তাকে এই ঘটনা টি খুলে বলি। সেই ঘটনা শুনে যা বলছে সেটা শুনে আমার গায়ের পশম দাঁড়িয়ে যায়। মেয়েটা তার চাচাতো বোন।আমার সম্পর্কে তিনি যাহা জানেন সব কিছুই বলে দিছে।আমি আর কী করবো..... অল্প শোকে কাতর, অধিক শোকে পাথর।মেয়েটি কলেজের সামনের স্কুল এ পড়ে। ক্লাস টেন।কলেজ শেষ করে ফ্রেন্ড দের সাথে বাস স্টেশন যাচ্ছিলাম।সাথে একটা বড় আপু ছিল,তার সাথে কথা বলতে বলতে হাটতেছি।মেয়েটার স্কুল এর সামনে দিয়া ভয়ে ভয়ে যাইতাছি।সামনের ফুসকা দোকান আসতেই কে একজন যেন পিছন থেকে শার্ট এর কলার ধরে রাখছে। পিছনে ফিরে দেখলাম একটা মেয়ে।কিউট আছে..! আমি: আরে কলার ছাড়েন, কে আপনি,ভদ্রতা শিখেন নাই। মেয়ে: একদম চুপ,ফুসকার দোকানের চেয়ার এ বসেন। আমার ফ্রেন্ড দের ইশারা দেয় ছলে যেতে।আমার বেস্টফ্রেন্ড এর ইশারা দিয়ে যা বুজাইলো। তাতেই বুঝলাম এইটা ই সেই মেয়েটা। মেয়ে:কয়টা মিথ্যা কথা বলছেন..? আমি: কিসের মিথ্যা কথা, কে আপনি...(না বুজবার ভান করে) মেয়ে: ওরে চান্দু, আমারে ছিনোনা..!আমিই সেই যে তোমারে ফেবুতে থ্রেড দিছিলাম। আমি: ওহ,তাহলে আপনি তিনি! বলেন কী বলবেন। মেয়ে: বেশি কিছু বলবো না,ফোন নাম্বার দাও,আর আমারে.. আই লাভ ইয়ু... বলো। আমি: আজিব তো, আমি আপনাকে কেন "আই লাভ ইয়ু " বলবো। মেয়ে: আমি বলতে বলছি তাই বলবা। নইলে...(চোখ রাঙিয়ে) আমি: আমি বলবো না, নইলে কী করবেন..? মেয়ে: ( বসা থেকে উঠে দাঁড়িয়ে শার্ট এর কলার ধরে)। নইলে গুম করে ফেলবো। আসলে লাইফ এ এই রকম একটা মেয়ের ই দরকার ছিল।আর তাছাড়া দেখতেও খারাফ না।আর যদি না বলি, তাইলে ভেজালে পড়বো। আমি: আচ্ছা,আই লাভ ইয়ু। মেয়ে : আই লাভ ইয়ু টু, তারপর নাম্বার টা দিয়ে চলে আসলাম।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২১২৬ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...