বাংলা গল্প পড়ার অন্যতম ওয়েবসাইট - গল্প পড়ুন এবং গল্প বলুন

বিশেষ নোটিশঃ সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান - আপনারা যে গল্প সাবমিট করবেন সেই গল্পের প্রথম লাইনে অবশ্যাই গল্পের আসল লেখকের নাম লেখা থাকতে হবে যেমন ~ লেখকের নামঃ আরিফ আজাদ , প্রথম লাইনে রাইটারের নাম না থাকলে গল্প পাবলিশ করা হবেনা

আপনাদের মতামত জানাতে আমাদের সাপোর্টে মেসেজ দিতে পারেন অথবা ফেসবুক পেজে মেসেজ দিতে পারেন , ধন্যবাদ

নীল শার্ট,নীল শাড়ি ও সবুজ বালুচরের গল্প

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান মিশকাত রায়হান (০ পয়েন্ট)



X "নীল শার্ট, নীল শাড়ি এবং সবুজ বালুচরের গল্প" . নীল শার্ট আর নীল শাড়ী পরস্পর বন্ধু সেই স্কুল লাইফ থেকে । তারা ছিলো পরস্পরের সুখ-দুঃখের অংশীদার । তবে নীল শাড়ী ততটা ফ্রি ছিলোনা । তাদের এই বন্ধুত্ব কখন যে ভালোবাসায় পরিণত হয়ে গেছে , তারা কিছুই টের পায়নি । নীল শার্ট বন্ধুত্ব নষ্ট হয়ে যাবার ভয়ে কিছুই প্রকাশ করেনা । একদিন নীল শাড়ী তাকে একটি স্বপ্নের গল্প শোনালো । সেটা ছিলো একটা বালুচরের গল্প। গল্প টা ছিলো এরকম ' একটা সবুজ বালুচরের মাঝে দুটি ছেলে আর মেয়ে, মেয়েটি ছেলেটিকে পিছন দিক থেকে জড়িয়ে আছে, ছেলেটি যখনই সামনাসামনি হতে যাবে তখনই ঘুম ভেঙ্গে যায় শাড়ির ''' এই গল্পটা শুনে নীল শার্ট একটু শক খায়.... শক খাওয়ার কারণটা হলো, হুবহু একই স্বপ্ন নীল শার্ট ও দেখেছিলো। জাস্ট পার্থক্য টা ছিলো এটুকু, নীল শার্ট মেয়েটা কে দেখতে পেরেছে, কিন্তু নীল শাড়ি পারেনি। শাড়ির এই স্বপ্নের কথা শুনে শার্টের মনে প্রেম দোলা দিতে লাগলো আরো বেশি করে। কারন, শার্ট ভেবে নিয়েছে যে, স্বপ্নের যেহেতু মিল আছে, তাহলে শাড়ি ও তাকে ভিতরে ভিতরে নিশ্চয় ভালোবাসে।শার্ট শাড়ি কে প্রতিদিন নক করতো। কিন্তু শাড়ি খুব কম সময়ই রেসপন্স করতো। শাড়ির ম্যাসেজ না পেলে সেদিন শার্টের পেঠে ভাত হজম হতোনা, কোন কারনে অনলাইনে থেকেও রিপ্লাই না দিলে অজানা সব দুশ্চিন্তা তাকে ঘিরে ধরতো। তাই সবসময় শাড়িকে চোখের আড়াল হতে দিতে চাইতো না। সামনাসামনি না হলেও দুর থেকে দেখে নিতো। এককথায়, শার্ট তখন পুরো আউট অব কন্ট্রোল - এ। এভাবে কেটে গেলো ২ দিন। একদিন শার্ট সাহস করে বলে দিলো যে, সে শাড়ি কে ভালোবাসে। শাড়ি জাস্ট এটাকে ফান হিসেবে নিয়ে হেসে উড়িয়ে দিলো। কিন্তু শার্ট যে কতটা সিরিয়াস ছিলো, একমাত্র সে ছাড়া আর কেউ জানেনা। কোনভাবেই শার্ট, শাড়িকে বুঝাতে পারেনা যে, সে তাকে ভালোবাসে। শার্ট এর মনে হতো, শাড়িও তাকে ভালোবাসে, এখন একটু টেস্ট করে দেখছে। এভাবে আরো কিছুদিন চললো। একদিন শার্ট খুবই সিরিয়াস হয়ে বলে দিলো এবং শাড়িকে হ্যা বা না একটা উত্তর দিতে বললো। শাড়ি বললো " আমার রিলেশনশিপ ভাল লাগেনা " শার্ট বুঝতে পারলো যে, এতদিন সে কি ভুলটা ভেবে এসেছে..... তার স্বপ্নের চারপাশে সংকোচন এর জন্ম হয়েছিলো যদিও সেটা ক্ষনিকের জন্য। এরকম একটা শক লেগে শার্ট কিছুটা এবনরমাল হয়ে পড়ে। কিন্তু সে কিছুতেই শাড়ি কে ভুলার কথা চিন্তা করতে পারেনা। শার্টের অনেক সীমাবদ্ধতা আছে, তাই শার্ট চাইলেও অনেক কিছু করতে পারেনা। এজন্যই হয়তো শাড়িকে হারিয়ে ফেলে। শার্ট স্বভাবগত ভাবে একটু ভীতু। কিন্তু সে হঠাত করে কেমন যেন সাহসী হয় উঠলো। যেমন, রাতে সে দোকানে গেলেও সাথে একটা সঙ্গী লাগতো। কিন্তু সে শার্ট একসময় রাতে একা একা বাইরে বসে থাকে। ভয় টা কেন জানি তার ভিতর থেকে হারিয়ে গেছে। আজো শার্ট ভাবে যে, শাড়ি তাকে ভালোবাসে। তাই তার অপেক্ষায় আজো বসে থাকে। সে অপেক্ষার প্রহর গুনতে থাকে। মাঝে মাঝে তার মনে হয় সব কিছু ছেড়ে কোথাও চলে যেতে। কিন্তু পরক্ষণেই সে যেন কিসের মায়ায় আটকে যায়। তাই আজো শার্ট, শাড়ির অপেক্ষায় বসে থাকে, এবং থাকবে................ . . #সমাপ্ত #বিঃদ্রঃ কেমন হলো জানালে ভালো লাগবে। আর ভুলত্রুটি নিজগুণে ক্ষমা করে দেবেন। কোন পরামর্শ থাকলে নির্দ্বিধায় জানিয়ে দিবেন। #মুসাফির


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৩৪৬ জন


এ জাতীয় গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...