গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় পাঠকগন আপনাদের অনেকে বিভিন্ন কিছু জানতে চেয়ে ম্যাসেজ দিয়েছেন কিন্তু আমরা আপনাদের ম্যাসেজের রিপ্লাই দিতে পারিনাই তার কারন আপনারা নিবন্ধন না করে ম্যাসেজ দিয়েছেন ... তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ কিছু বলার থাকলে প্রথমে নিবন্ধন করুন তারপর লগইন করে ম্যাসেজ দিন যাতে রিপ্লাই দেওয়া সম্ভব হয় ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

সীরাহ কেন পড়া উচিৎ? মুহাম্মাদ (সাঃ), সবদিক থেকে সর্বশ্রেষ্ঠ – চতুর্থ পর্ব

"ইসলামিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান মোঃ আনিছুর রহমান লিখন (৪৪৩৯ পয়েন্ট)



ব্যবহারের দিক দিয়ে সর্বশ্রেষ্ঠঃ - রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) কখনোই উন্মত্ত ছিলেন না। - রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) কখনোই তাঁর অঙ্গীকার ভঙ্গ করতেন না। - রাসূলুল্লাহ্ (সাঃ) কখনোই প্রতিশোধপরায়ণ ছিলেন না। - তিনি(সাঃ) কখনোই কোনো নারীর গায়ে হাত তোলেনে নি। - তিনি(সাঃ) কখনোই মিথ্যা বলেন নি। ইসলাম প্রচারের পূর্বে তিনি(সাঃ) সত্যবাদী ও বিশ্বস্ত হিসেবে পরিচিত ছিলেন এবং নবুওয়্যত্বের পর বিশ্বাসীদের মা আয়ে’শা বলেনঃ “ তাঁর(সাঃ) ব্যবহারই ছিল কোরআন।’’ রাজনৈতিক চেতনায় সর্বশ্রেষ্ঠঃ “আল-আহযাব অভিযানের পর তিনি বলেছিলেনঃ আজ থেকে আমরা তাদের আক্রমণ করব, তারা নয়।” আধ্যাত্নিকতায় সর্বশ্রেষ্ঠঃ “তিনি(সাঃ) এত বেশি সালাত আদায় করতেন যে তাঁর পা ফুলে যেত এবং তিনি বলতেনঃ আমি কি আল্লাহর প্রতি একজন কৃতজ্ঞ বান্দা হব না?” শত্রুদের প্রতি দয়া প্রদর্শনে সর্বশ্রেষ্ঠঃ “তোমাদের পথে তোমরা চলে যাও, কারণ তোমরা স্বাধীন।” মানুষের অন্তরে অনুপ্রেরণা যোগানোয় সর্বশ্রেষ্ঠেঃ “এমন এক সময় আসবে যখন ইসলাম দিবারাত্রির মত চতুর্দিকে ছড়িয়ে পড়বে যে একজন মহিলা হিরাতে তার ঘর থেকে বের হয়ে কা’বার উদ্দেশ্যে যাত্রা করবে অন্তরে আল্লাহর ভয় নিয়ে, আর কারো ভয়ে নয়।” সাহসিকতায় সর্বশ্রেষ্ঠঃ “যখন হুনাইন যুদ্ধের সময় তিনি বলেছিলেনঃ আমিই নবী, মিথ্যাবর্জিত এবং আব্দুল মুত্তালিবের পুত্র।” চারপাশে লোক জড়ো করানোর সক্ষমতায় সর্বশ্রেষ্ঠঃ “তিনি মানুষের সামর্থ্য বুঝতেন এবং প্রত্যেককে তাদের যোগ্য জায়গায় নিযুক্ত করতেন….. তরুণদের সাথে সর্বশ্রেষ্ঠঃ তিনি(সাঃ) যুবকদের জড়ো করে তাদের জন্য তীর ছোড়ার প্রতিযোগিতা আয়োজন করতেন এবং বলতেনঃ “ও ইসমাঈলের দৌহিত্ররা ছোড়ো, কারণ তোমাদের পিতামহ একজন তীরন্দাজ ছিলেন।” তিনি তাদেরকে দলে দলে ভাগ করতেন এবং নিজেকে এক দলে অন্তর্ভূক্ত করতেন, তারপর তার দলের সদস্যরা তীর ছুড়তে থাকত আর অন্যরা তা করত না। তারপর তিনি তাদের জিজ্ঞেস করতেনঃ “তোমরা কেন ছোড়ো না?” তারা উত্তর দিতঃ “আমরা কিভাবে ছুড়ব যখন আপনি অন্য দলে থাকেন?” প্রতুত্তরে তিনি(সাঃ) বলতেনঃ “ছোড়ো এবং আমি তোমাদের সবার সাথেই আছি।” স্ত্রীদের দৃষ্টিতে সর্বশ্রেষ্ঠঃ খাদেজা (রাঃ) সাক্ষ্যঃ “আল্লাহ্ আপনাকে কখনোই নিরাশ করবেন না।” স্ত্রীরা তাদের স্বামীদের জন্য সর্বোত্তম বিচারক এবং তাদের দোষত্রুটি সম্পর্কে সবচেয়ে ভালো জ্ঞাত। চলবে...


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১২ জন


এ জাতীয় গল্প

→ অবনীল(পর্ব-৭)
→ ~ইসলাম কেন পুরুষদের একাধিক স্ত্রী গ্রহণের অনুমতি দেয়? কিছু ভুল,কিছু বিভ্রান্তের সমাধানের প্রচেষ্টা!
→ "এখনও আমি অপেক্ষা করছি তোমার জন্য!!!" পর্ব-১
→ অ্যামাজনে কয়েকদিন (পর্ব ৬)
→ অ্যামাজনে কয়েকদিন (পর্ব ৬)
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৪:-
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৩:-
→ "আনিকা তুমি এমন কেন?"[২য় তথা শেষ পর্ব]
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব২:-
→ জিজেসদের নিয়ে সারার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন[দ্বিতীয় পর্ব]

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...