গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

Tha adventure of all gj in bogra 2

"মজার গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান arfan suvo (৪৭৮ পয়েন্ট)



গল্পটা কাল্পনিক। কেউ সিরিয়াসলি নিবেন না। আর যাই সিরিয়াসলি তাই 100 হাত দুরে থাকুন। সিরিয়াসলি নিলে আমি অভিশাপ দিচ্ছি তার বিয়ে হবে না, কপালে বউ জুটবে না, প্রেম করতে গেলে গাড়ির চাপায় পড়বেন gj গল্পে আসা যাক সুস্মিতা যেই পড়ে গেল। আর সাওদা ধরে ফেলল।{আরে আমি তো ভুলেই গিয়েছিলাম সাওদা হলো ইমন ভাইয়ের বন্ধবি}।তখন ইমন ভাই বলে উঠল" বন্ধু তুমি আমার" "সংগি তুমি আমার" "চিরদিন তোমায় আমি" "ভালোবেসে যাব"?????? সুস্মিতা বলে উঠলকান্না সুরে ধন্যবাদ বোন্টি। ধন্যবাদ শুভ ভাইটু ।সুস্মিতা হাটতে পারছেনা বলে সাওদা বলল আমি সুস্মিতা কে নি যাই।তোমরা যাও।ইমন বলল আমি সাওদা কে ছাড়া যাব না।মফি বলল আমি ইমন ভাই কে ছারা যাব না। তুবা বুড়ি, ইভা, বলল আমরা গুলুমুলু কে ছাড়া যাব না।হৃদয় ভাই বলল তাহলে আমরা কাল সকালে যাব।এখন সন্ধ্যা কতক্ষন আর ঘুরব।তাই আমরা চলে গেলাম হটেলে।আমরা ঘুমাতে গেলাম। ইভা আপু চিৎকার দিয়ে উঠল।আমরা গেলাম।বললাম কি হয়েছে।ঐ দেখ। আমরা চারদিকে তাকালাম।বললাম কথাও তো কিছু নেয়। ইভাঃ মাটিতে দেখ। আমরা মাটির দিকে তাকালাম দেখলাম একটা তেলাপোকা। gj পার্থঃহি হি হা হা মফিঃগুলুমুলু হা হা,,, ইভাঃ আমাকে দেখে হাসা হচ্ছেangry তুবাঃ বলল চল আমরা মেয়েরে সবাই এক সাথে ঘুমাব।gj ইভাঃ আহা কি আনন্দ আকাশে বাতাশে সাবিরাঃgj হৃদয়ঃgj চলো আমরাও ছেলেরা এক সাথে ঘুমাব। মফিঃ কি?????sick আমরা সবাই ঘুমাতে গেলাম। ঘুম থেকে উঠে নামাজ পরলাম। নামাজ শেষ করে বেরিয়ে পরলাম জীব কুয়া দেখার জন্য।{জীব কুয়ার ইতিহাস হলো পুরা পুন্ড্রনগর ছিল হিন্দুদের রাজত্ব। সেখানে একজন মুসলন ছিল তার নেতৃত্বে এই জাইগাটা মুসলিম কায়েম হয়।তার নাম ছিল সুলতান। তার সৈনবাহিনী ছিল 30 জন।তিনি প্রথমে পুন্ড্রনগরে মসজিদ বানান।আর মসজিদের পাসে দুইটি কুয়া বানায়।একটি ছিল মসজিদের পাশে।আর একটি ছিল মসজিদ থেকে বেশ দুরে।পুন্ড্রনগরের রাজা খবর পেয়ে তার সীমানা পর্যন্ত দেওয়াল তুলে। একদিন তিনি এক জন কে তার কাছে পাঠায় যে তারা যেন ইসলাম গ্রহন করে। কিন্তু রাজা তার সৈনিক কে মেরে সুলতানের জন্য গিফট পাঠাই সুলতান তার গিফট খুলে দেখে তার সৈনিকের লাস।তাদের দুটি কুয়ার দরকার ছিল না। তাই যেটা বেশ দুরে অবস্থিত সেই কুয়াটা তে ফেলে দেই।ফেলে দেওয়ার সাথে সাথে মানুষ টা জীবিত হয়ে উঠে আসে সবাই তো অবাক। তার পর যুদ্ধ করতে জারা মারা যাই তাদের এখানে ফেলে জীবিত করা হত।সেই জন্য এর নাম দেওয়া হয় জিব কুয়া। তারপর একটা কাক এক টুকরা মাংস ফেলে দেই কুয়ার ভিতর। তখন থেকে এই কুয়া কাজ করে না।এই তো ছিল ইতিহাস।(এটা আমার শোনা কথা) } আমরা গরের উপর উঠলাম উঠে দেখলাম একটি কুয়া আমরা দেখলাম আগেকার মানুষ কত সুন্দর করে বানায়ছে। আমরা জীব কুয়া দেখার জন্য ছটফট করছি। এমন সময় ইমন আর ইভা বলে উঠল এখান থেকে ঐযে একটা দেওয়াল দেখা যায় সেই দেওয়াল ধরে অথবা দেওয়ালের উপর দিয়ে হাটলে সোজা জিব কুয়া। {ইমন আর ইভা বগুড়ার}আমরা সবাই দেওয়ালের উপর দিয়ে হাটছি।হাটতে হাটতে আমরা ক্লান্ত। হঠাৎ রনি ভাই বলল ঐ যে একটা গড় দেখা জায়।আমরা সবাই তো খুশি ☺ । দৌড় দিলাম । গেলাম সেখানে গিয়ে দেখলাম কুয়াই পানি দেখা যাচ্ছে না। এমন সময় সাওদা বায়না ধরলো সেলফি তুলবে।কুয়ার উপর উঠতেই কুয়ার ভিতর পরে গেল।সে চিৎকার দিয়ে উঠলো। ইমন ভাই বলল আমিও লাফ দিব। তাকে বাচাতে হবে। হৃদয় ভাই দড়ি এনেছিল। আমিও কম ছিলাম না আমিও এনেছিলাম দড়ি। দুই জনে দড়িটা বেধে জোড়া লাগালাম।এরপর ইমন ভাইকে দড়ির সাথে বেধে।কুয়ার মাঝে ছেড়ে দিলাম। তারপর তাকে ও সাওদা কে তুলা হলো।আমরা তাকে জিজ্ঞেস করলাম সেখানে কি হয়েছিল।ইমনঃ সব বলব আগে চলো হটেলে। আমরা সবাই বসেছি তা গল্প শুনতে। তিনি বললেন তার ভিতরে পানি নাই।আমরা মাটিতে ছিলাম আর দেওয়ালে আমি বাড়ি দিলাম মনে হয় ও পাশে কোন রাস্তা আছে।আর একটা নকশা পেয়েছি। এইযে হৃদয়।হৃদয় নকশা পেয়ে বলল এটা গুপ্তধনের নকশা।নকশার উপরে কিছু লেখা ছিল। হৃদয় তা পরছে। নকশার উপরে কি লেখা ছিল তা জানতে চোখ রাখুন tha adventure of all gj in bogra 3. কেমন হয়েছে কমেন্টে জানান


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৯৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ শ্রদ্ধা-2
→ ২০১ গম্বুজ বিশিষ্ট মসজিদ
→ শেষ বিকেলের মায়াবতী♥ (২১)
→ অমীমাংসিত তদন্ত ২
→ "আনিকা তুমি এমন কেন?"[২য় তথা শেষ পর্ব]
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব২:-
→ রহস্য(২)
→ "ওয়েটিংরুম" [Life is a waiting room]
→ শ্রদ্ধা-2
→ ইউনিকর্ন(পর্ব_২)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...