গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যাদের গল্পের ঝুরিতে লগিন করতে সমস্যা হচ্ছে তারা মেগাবাইট দিয়ে তারপর লগিন করুন.. ফ্রিবেসিক থেকে এই সমস্যা করছে.. ফ্রিবেসিক এ্যাপ দিয়ে এবং মেগাবাইট দিয়ে একবার লগিন করলে পরবর্তিতে মেগাবাইট ছাড়াও ব্যাবহার করতে পারবেন.. তাই প্রথমে মেগাবাইট দিয়ে আগে লগিন করে নিন..

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

আমি (শেষ পর্ব ৮)

"জীবনের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Eshrat Jahan (৯৪ পয়েন্ট)



এখন রাত।বসে আছি।ছাদে যেতে ইচ্ছে করছে।পূর্ণিমার রাত আজকে।পূর্ণিমার রাত্রি।রাত্রি অনেক সুন্দর।পূর্ণিমার রাত্রি আরো অনেক সুন্দর।মনোরম পরিবেশে।আশেপাশে চাঁদের আলোয় সব কিছু সুন্দর দেখায় ।কোনোকিছুর ওপর এই চাঁদের আলো পড়লে সেই জিনিস অনেক সুন্দর লাগে।মনে মনে একজনকে কল্পনা করলাম।একটা মেয়ে নাম মিরা। আমি তাকে বলি কল্পনার মিরা। "মিরা দেখ কত্ত সুন্দর এই রাত!!" "হুমম রাত্রি ইসরাত্রি।" "পূর্ণিমার রাত্রি অনেক সুন্দর!!" "তোর জন্ম না রাতেই হওয়া উচিত ছিল।রাত এত্ত ভালবাসিছ তুই।রাতে তোর জন্ম না হয়ে ফজরের আজানের সময় তোর জন্ম হয়েছে।" মিরার এই ধরনের কথায় আমি হাসতে থাকলাম।মানে কল্পনায় হাসতে থাকলাম। "মিরা রাত আসলেই অনেক সুন্দর!!জোৎসা রাতে সব লাইট অফ করে দরজা বন্ধ জানালার পাশে বসে থাকার মজাই আলাদা।" "হুমম।" আমি কল্পনা ছেড়ে বাস্তবে ফিরে এলাম।ঘরের মধ্যে এলাম।পরদিন নির্জন সেই রাস্তায় গেলাম।কে যেন বলে উঠলো "এই কি করছিস?" তাকিয়ে দেখি মারিয়া। "এমনি বসে আছি।" "নতুন কিছু আর্ট করেছিস?" "হুমম করেছি।তোর পিক আকিয়েছি হিহিহিহি।" "এমনি একটা বলিস নাতো রে।" "এমনি কি বললাম?ঐযে একদিন তোর পুক আকিয়ে দিলাম না!" "সেটা অনেকদিন আগে।" "হুমম।" "আমি যদি আর্ট করা পারতাম।" "আমার মতে সবাই পারতো।যদি তার ইচ্ছা আগ্রহ থাকতো আর ছোটবেলা থেকে চেষ্টা করতো তাহলে সবাই পারতো।আমি যখন ক খ লেখা শিখি তখন থেকে আকানোর জন্য কত পেনসিল নিতাম।" "হুমম।তোর আগ্রহ বেশি।" "হ্যা নেশাও আছে।আকাতে আকাতে নেশা ধরে।যাদের আকানোর প্রতি আগ্রহ বেশি তাদের নেশা জিনিসটা কাজ করে।আশেওপাশে কি হচ্ছে খেয়াল নাই।" "ওহ আচ্ছা।" মারিয়া চলে গেলো।আমি রাস্তা দিয়ে হাঁটছি।কেউ নেই আমার পাশে।রিনা এলো আমার কাছে। "রিনা কি অবস্থা তোর?" "ভালো।তোর?" "আমার কেমন আবার খুব ভালো।" "ওহ ঠিকই তো।কি করছিলি এখানে একা একা।" "এমনি।" "ছিল হাঁটাহাঁটি করি।" কিছুক্ষন হাঁটাহাঁটি করলাম।তারপর বাসায় ফিরে এলাম। আমি আমার মতো।আমার মনে আসে আমি তাই করি।কেউ কিছু করতে বললে আগে নিজে ভেবে নেই কাজটি ভালো নাকি খারাপ।যদি নিজের ভালো লাগে তাহলে করি না লাগলে করি না।পড়াশোনার ব্যাপারে এরকম বেশি করি।ইচ্ছে হলে পড়ি না হলে নাই।যখন পড়তে মন চায় না তখন পড়া ঠিক না।তখন পড়া সহজে হয় না।কষ্ট হয় পড়তে।আর যখন পড়তে মন চায় তখন কত সহজেই পড়া হয়।আমি নিজের কথা খুব বিশ্বাস করি।আমার বিশ্বাস আমার হৃদয় গভুর থেকে তা যা এ তাই ঠিক।আর তাই ঠিক হয়।আমি যেটা বেশি পছন্দ করি সেটা হলো আমি আর্ট করতে ভালোবাসি খুব ভালোবাসি।আমি গান শুনতে ভালোবাসি।আনন্দ করতে ভালোবাসি।আমি একা একা জীবন কাটাতে পারবো না কখনো না।আমার সেই ক্ষমতা নেই।কিন্তু অথচ অনেকেই আছে যারা মিশুক না।তারা যে কেমনে থাকে জানি না।তবে আমি পারবো না।আমি আনন্দ বিনোদন করতে ভালোবাসি।সবার ভালো কাগ পছন্দ এক না।ভিন্ন ভিন্ন পছন্দ ভালো লাগা নিয়ে মানুষ বেঁচে থাকে।আমার ফোন বেজে উঠলো রুমা কল দিয়েছে। "হ্যা বলো আপু।" "কি করছিস?" "এরকম প্রশ্ন করলে কি উত্তর দিবো?বুঝতেই তো পারছো তোমার সাথে ফোনে কথা বলছি।" "ফাজলামি করছিস না!!" "নাতো।" "কল দেওয়ার আগে কি করেছিলি?" "এমনি ভাবছিলাম।" "ঠিক আছে ভাবতে থাক।" আমি ফোন রেখে দিয়ে আবার ভাবনার মধ্যে ঢুকলাম।আমার এ হৃদয়ে কোনো কষ্ট নাই আমি চাই না।আমার হৃদয়ে কোনই দুঃখ কষ্ট না থাকে।কিন্তু সব মানুষের জীবনের দুঃখ কষ্ট থাকে।একটু হলেও কোনো না কোনো দুঃখ কষ্ট থাকে।কিন্তু আমি সেই দুঃখ কষ্ট মনে করি না সামনের দিকে এগিয়ে চলি।কিন্তু কেন যেন অন্যের কষ্ট দেখলে আমার এ হৃদয় চুপ থাকে না।আমাদের আশেপাশে অনেক মানুষ আছে অন্যের কষ্ট বুঝতে চায় না শুধু নিজের কথায় ভাবে।সবাই এক না।সবাই এক হলে পৃথিবীটা এমন হতো না।হয়তো সবাই খারাপ হতো না হয় সবাই ভালো হতো।এমনি সুন্দর দেখায় ভালো খারাপের সাঝেই এক সুন্দর। সমাপ্ত ইসরাত জাহান ইভা


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৬৯ জন


এ জাতীয় গল্প

→ কলম্বাসের আমেরিকা আবিষ্কারের কথা।পর্ব-2
→ জিজের পরিচিতরা যে কারণে প্রিয় (শেষ পর্ব)
→ জিজের পরিচিতরা যে কারণে প্রিয় (পর্ব-২)
→ খুনীদের খুনী — পর্ব ২
→ কলম্বাসের আমেরিকা আবিষ্কারের কথা। পর্ব-1
→ খুনীদের খুনী— পর্ব ১
→ জিজের পরিচিতরা যে কারণে প্রিয় (পর্ব-১)
→ অবনীল(পর্ব-৮)
→ জিজেসদের নিয়ে সারার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন[তৃতীয় ও অন্তিম পর্ব]
→ অভিশপ্ত আয়না পর্র৬(শেষ পর্ব):-

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...