গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যাদের গল্পের ঝুরিতে লগিন করতে সমস্যা হচ্ছে তারা মেগাবাইট দিয়ে তারপর লগিন করুন.. ফ্রিবেসিক থেকে এই সমস্যা করছে.. ফ্রিবেসিক এ্যাপ দিয়ে এবং মেগাবাইট দিয়ে একবার লগিন করলে পরবর্তিতে মেগাবাইট ছাড়াও ব্যাবহার করতে পারবেন.. তাই প্রথমে মেগাবাইট দিয়ে আগে লগিন করে নিন..

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

ভালবেসে না পাওয়ার কষ্ট

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান মোঃ আনিছুর রহমান লিখন (৫০২৪ পয়েন্ট)



♥♦♥♦♥♦♥♦♥ হঠাৎ একটা Msg পেয়ে রীতিমত চমকে উঠল সুস্মিত। নম্বর টা খুব পরিচিত .. এ নম্বর কোনোদিনও ভুলবার নয়। কোনোদিনও যে আবার এ নম্বর থেকে Msg আসবে ভাবেনি কোনোদিনও.. "তোর সেই ভ্যালেন্টাইন্স ডে তে দেওয়া Show Piece টা নিয়ে যেতে পারবি ?? আমি মেস ছেড়ে দিচ্ছি , বাড়ি থেকেই যাতায়াত করব ..তো বাড়িতে ম্যানেজ করতে পারবনা " ... সে বিষ্মিত হয়ে Reply দিল , " হ্যা! ফেরত দিয়ে দিস ! কোথায় Meet করবি বল" .. সুস্মিত এর হৃদস্পন্দন টা বেড়ে গেল , কতদিন পর চেনা চেনা লাগছে তার এই শব্দ গুলো , ইনবক্স থেকেও পুরোনো চেনা মেঠো গন্ধ পেল সে , কতদিন সে দেখেনি আহেলি কে..। এই সেই আহেলি , যার সাথে সারাদিন হন্যে হয়ে হাটত সে , যার সাথে টেক্সট এর চুপচাপ আনাগোনায় কথা হত সারাদিন , যার মিসকল এর আওয়াজে ঘুম ভাঙতো, ঘুমোতে যাওয়াটাও হত ওর "গুড নাইট" নামক ঘুমপাড়ানি শব্দটির মধ্যে দিয়ে, যার সাথে এক ছাতায় উদ্যম বৃষ্টি তে ভিজেছিল, গঙ্গার পাড়ের উত্তাল হওয়ায় ওর উড়ন্ত চুলের গন্ধ নিয়েছিল .. কত কথা , কত ভালোবাসা, কত অভিমান, রাগ .. নাহ! সব কোথায় হারিয়ে গেল ? স্মৃতিগুলি মনের চিলেকোঠায় সকালের রোদ্দুরের মতো উকি দিতে শুরু করল ..। বুকটা বড্ড ভারী হয়ে গেল ...। তার ভাবনার রাশিমালায় দাড়ি টানলো , Msg টুংটাং আওয়াজ , .. "শোন কাল স্টেশন এ ৩টের সময় দাড়াস ! আমি ট্রেন থেকে নেমেই তোকে দিয়েই চলে যাব.. ওকে? " .. সুস্মিত reply করল , " হম ওকে, একটা Question করব ?" .. তৎক্ষণাৎ reply এল , "কর" । সুস্মিত কৌতূহলী চোখে TYPE করতে লাগল , " তুই তো বলেছিলি Show Piece টা ভেঙে ফেলেছিস .. তো? .. " জবাব এল , "নাহ! ভাঙ্গিনী রে , বেশ যত্নেই আছে, কিন্তু তোর স্মৃতি আর আগলে রাখতে চাইনা , কাল এসে নিয়ে যাস প্লিজ" .. সুস্মিতের বুকের ভিতর টা মুচড়ে উঠল , একফোটা চোখের জল গাল বেয়ে স্মার্টফোনটার উপর পড়ল ... ♥♥♥♥♥♥♥♥♥ সেদিন রাতে কিছুতেই ঘুম আসছেনা সুস্মিত এর .. নানা চিন্তা-ভাবনার-স্মৃতি-উত্তেজনার বড় বড় ঢেউয়ে মনের কিনারা টা অস্থির হয়ে উঠছে বারবার ..। "ও কি সেই আগের মতোই আছে , না এই দেড় বছরেই পাল্টে গেছে অনেক টা, কতদিন ওর Innocence মাখানো সুন্দর মুখটা দেখা হয়না..। কত আদরে-অনুরাগে কানের পাশ থেকে সে চুল সরিয়ে ঠোঁটের চিন্হ একে দিত মসৃন গাল গুলোয় .. আর আজ ? .. বুকটা হুহু করে উঠল , খুব একা লাগল সুস্মিত এর .. তার ঘরের অন্ধকারগুলো যেন তাকে চেপে ধরল ...। "নাহ! কাল নীল জামাটা পরে যাব , ওর খুব ভালো লাগতো নীল জামাটায়...। ''ও দেখুক সুস্মিত কতটা পাল্টে গেছে, কতটা Develop করেছে নিজেকে"..ওই তো বলতো "তোকে আমার পাশে একদম মানায় না" .. আজ দেখুক সেই বেমানান সুস্মিত কতটা পাল্টে নিয়েছে সময়ের সাথে সাথে .. । তার কষ্টগুলো অভিমানে রূপান্তরিত হতে লাগল ... । অনেক কষ্টে চোখ ঘুম আনার চেষ্টা করল .. কিন্ত ঘুমটা যেন আগের সেই টেক্সট msg এর টুংটাং শব্দ টা কেড়ে নিয়েছে ; আজ কেন এত মনে পড়ছে আবার ওকে ? বেশ তো ভুলেই এসেছিল প্রায় ; কেন আবার আজ যে শক্ত স্মৃতির বাঁধ গড়েছিল ধীরে ধীরে , তা এক লহমায় চূর্ণ-বিচূর্ণ করে দিল আহেলি ..। সুস্মিতের তাদের প্রথম meet করার দিনটা খুব মনে পড়ল। প্রায় ছমাস ফেসবুক এ কথা বলা আর বন্ধুত্বের পর.. যখন ওরা finally decide করেছিল যে "চল! meet করা যাক , কাছাকাছিই তো থাকি " ..। আহেলির থেকে সুস্মিত এর দূরত্ব একটি স্টেশন মাত্র , আহেলি বলেছিল , "শোন! আমি কাল ৮.০৮ এর লেডিস ট্রেন টা ধরব , তুই কি তার আগে আসতে পারবি আমাদের এই স্টেশনটায় ? এত সকালে প্রবলেম হবে না তো ? " .. খুশি - উত্তেজনা -আনন্দে ভরপুর সুস্মিত বলেছিল না! না! , আমি পৌঁছে যাব স্টেশন এ , তুই ব্যাস সময় মতো আসিস".. রীতিমতো আকাশে ভাসছিল সুস্মিত .. সেকি আনন্দ , কত ভবিষ্যৎ এর জীবনের চিন্তা-ভাবনা, কত স্বপ্ন, কত উত্তেজনা ...। .. সেইরকম উত্তেজনা কেন আবার হচ্ছে ? নিজেকে আনমনে প্রশ্ন করল সুস্মিত.. ঘরের জমাটি অন্ধকার গুলো থেকে কোনো উত্তর পেলনা সে। নাহ! সেদিনও রাতেও ঘুম আসেনি তার। সুন্দর এক নতুন জীবনের স্বপ্ন বুনেছিল সারা রাত..। আহেলিরও কি একই অবস্থা ছিল ? পরে আর জিজ্ঞাসা করা হয়ে ওঠেনি ...। সকাল ৫টায় উঠে যখন স্নান করে কেত মেরে রেডি হচ্ছিল , মা রীতিমতো অবাক হয়েছিল , "কিরে এত সকাল সকাল কোথায় যাচ্ছিস?" সুস্মিত এক খুশি খুশি সলজ্জ excuse দিয়েছিল,"মা আজ Communication skill এর উপর একটা সেমিনার আছে, তাই তাড়াতাড়ি যেতে হবে ..৭.৩০ টার ট্রেন টা ধরব !"... আগে আগে ৭.৩০টা তেই আহেলিদের স্টেশন এ পৌঁছে গেছিল সে , খুব excited আজ , সময় যেন কাটছেনা আজ , সে ২ নাম্বার প্লাটফর্মের একটা বেঞ্চে বসে অপেক্ষা করতে লাগল। বুকটা দুরুদুরু .. বারবার ফোন চেক করছে.. যদি ও কোনো msg করে .. আনমনে পা টা নাচাতে লাগল ..। উফঃ! কখন যে আসবে , ঘড়িটা মাঝেমাঝেই দেখতে লাগল, আহেলি বলেছিল , ১নম্বর প্লাটফর্ম থেকে আসবে , বারবার সেদিকে তাকিয়ে ভিড়ে কোঁকড়া চুলের অলিভ কালার এর কুর্তিপরা মেয়েটাকে খুঁজতে লাগলো.. "কাল কি রঙের ড্রেস পরবি ?... -ওই তো অলিভ কালারের একটা কুর্তি ..তুই? -নীল রঙের একটা শার্ট আর জিন্স...। সামনে থেকে একের পর এক ট্রেন বেরিয়ে চলে যাচ্ছিল ..উফঃ! আর সইছেনা ! ঘড়িতে দেখলো , ৭.৫৫!!..আর কখন আসবে ? উত্তেজনার বসে একটা টেক্সটই করে দিল সে "তুই কোথায় ? কখন থেকে বসে আছি.. কখন আসবি?"... হঠাৎ ১নম্বর প্লাটফর্ম এ চোখে পড়ল , একটি মিষ্টি দেখতে মেয়ে, লক্ষী ঠাকুরের মতো কোঁকড়া কোঁকড়া চুল, অলিভ কালারের কুর্তি, জিন্স ..চোখে রিমলেস চশমা...। ততক্ষনে.. সুস্মিত এর বুকের ভিতর এ হৃদস্পন্দন ঢাক বাজাতে শুরু করেছিল...। আহেলি সুস্মিত কে দেখে ১নম্বর স্টেশন এ দাঁড়িয়েই মিষ্টি করে হেসেছিল। ♥♥♥♥♥♥♥♥♥ নাহ! সেই মিষ্টি হাসিটা আজ বড্ড মনে পড়ছে!!! সকালে যখন ঘুম ভাঙলো তখন ৮টা..। কাল স্মৃতি রোমন্থনের ঘূর্ণিপাকে কখন যে চোখ টা বুজে এসেছিল ,খেয়াল নেই সুস্মিত এর। না আজ কলেজ যাবেনা সে ..। আজ দিন টাতে একটা পুরোনো ভালোলাগার গন্ধ আছে , কেমন একটা খুশির চিনচিনে ব্যাথা আছে। সময়গুলো উদ্বিগ্ন হয়ে কাটতে লাগল .. কিছুইতেই যেন মন বসছেনা। মনে মনে এক অদ্ভুত উত্তেজনা, অস্থির, একটু ব্যাথা .. আগের মতোই মাঝে মাঝে মোবাইল টা চেক করছে .. যদি আহেলি কোনো msg করে ..। না ! করেনি ..। সইছে না নিস্তব্ধতা..। ইচ্ছে করছে খুব কথা বলতে আবার.. কিন্তু না! ওই বা কেন আগে থেকে msg করবে..?? তার অভিমানগুলো জেগে উঠলো..। এলোপাথাড়ি চিন্তাগুলো মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে ..শেষে Ego এর কাছে ইচ্ছেরই জয় হলো , সদ্বিগ্ন চোখে Type করল , " তুই আজ আসবি তো ?" অপেক্ষার অনেকটা সময় পর ফোনটার নোটিফিকেশন রিংটোন টা বেজে উঠল , সুস্মিত তৎক্ষণাৎ হাতে নিয়ে দেখলো , "হ্যা! আমি আসব! ল্যাব এ ছিলাম, আমি ২.০৫ এর ট্রেন টা ধরব, তুই প্লাটফর্মে দাড়াস! ৩টের মধ্যে পৌঁছে যাব"...। তাড়াতাড়ি স্নান টা সেরে ফেলল সুস্মিত, খাওয়া-দাওয়া টা কোনোমতে সেরে , নীল শার্ট আর জিন্স টা পরল। আজ দেখুক আহেলি আবার নীল শার্টটায় .. যদি ওর আগের কথা কিছু মনে পড়ে ..। বেশ পরিপাটি হয়ে স্টেশনের পথে রওনা হল সুস্মিত। মনে যেন সেই প্রথম দিনকার মতো উত্তেজনা, কৌতুহল, আবেগ...। স্টেশন ২০ মিনিট এর রাস্তা । অনেক আগেই চলে এসছে সে । স্টেশন টা খুব চেনা চেনা লাগল আজ, স্মৃতির ফুলকি গুলো উস্কে দিচ্ছে যেন...। ষ্টেশনের একটা বেঞ্চে ..বসে পড়ল সে। বসে বসে সে উদাসীন চোখে .. স্টেশন এর ভিড় , লোকজন , রোজকার একঘেয়ে ক্লান্ত ট্রেনগুলি দেখতে লাগল..। এরকম সময়েই ফিরতো আহেলি, সুস্মিত এভাবেই বসে থাকত চোখে একরাশ অপেক্ষা নিয়ে; তারপর অটো, মিলিনিয়াম পার্ক, গোধূলির শ্রান্ত-আলসে আলোতে ওর সুন্দর চোখে চোখ হারাত; ওর কোলে মাথা রেখে শুয়ে মনে করত সারা পৃথিবী টা কত সুন্দর। হাতের মুঠোয় ওর নরম হাত যখন সুস্মিত এর চুল স্পর্শ করে বিলি কাটত , চোখ বুঝে আবেশে আহেলির বুকে নিজেকে সপে দিত সে "আর কি চাই জীবনে ? শুধু তোকে চাই" কিন্তু কেন সব পাল্টে গেল এক ঝটকায় ? দুনিয়াটাই পাল্টে গেল একদিনে ? কেন তার সবুজ সাজানো পৃথিবী টা একদিনে শুকিয়ে,চৌচির হয়ে ভয়ংকর খরায় পরিণত হল? চোখের কোনে যখন চোখের জলের একটা কণা অনুভব করল , হঠাৎ ট্রেনের announcement এ ঘোর কাটল সুস্মিতের। ঘড়িটায় চোখ বুলিয়ে দেখলো ২.৫২ , ট্রেন টা ঢুকছে । হ্যা! এই ট্রেনেই তো আসার কথা আহেলির। বিরাট হুঙ্কার দিয়ে যখন ট্রেনটা স্টেশন এ ঢুকল , সুস্মিতের মনের ভিতরের সাইরেনটা যেন প্রচন্ড শব্দে কানে বিঁধল ..। বুকের ভিতর উথালপাতাল ..। সে এদিক ওদিকে তাকাতে লাগল। অন্বেষী চোখ খুঁজে বেড়াতে লাগল পরিচিত এক মুখ কে। অবশেষে চোখে পড়ল কোকড়া চুলের মেয়েটিকে। সাদা রঙের কুর্তি , জিন্স .. সেই রিমলেস চশমা ..। সে সুস্মিত কে দেখে আবার মিষ্টি করে হাসল। আজকের হাসিটা বুকে গেথে গেল তীরের মতো । এই হাসিই তার আনন্দ-বিহলতার কারন হয়েছিল। কতদিন সে অপেক্ষা করেছে এই হাসিটা দেখার জন্যে । না! আর ফিরে যেতে দেবে না এই হাসিকে। আজ কিছু একটা করতেই হবে। ওকে ছাড়া যে জীবনটা কত দুর্বিষহ জানিয়ে দেবে আহেলি কে । .. না আর পারছেনা এভাবে রোজ আধমরার মতো ধুকে ধুকে বাঁচতে। হঠাৎ স্তম্ভিত হয়ে গেল তার সমস্ত চিন্তা ভাবনা। হতবাক হয়ে সে দেখল , হঠাৎ পিছন থেকে স্মার্ট দেখতে একটা ছেলে, কালো টি-শার্ট , মুখে ছাগলে দাড়ি, আহেলি কে সঙ্গ দিল , দুজনেরই মুখ টা একটু খুশি খুশি। তারা দুজনেই এগিয়ে আসতে লাগল .. সুস্মিত এর দিকে । "কিরে কেমন আছিস ? " স্বাভাবিকভাবেই এক পরিচিত মেয়েলি কণ্ঠ কর্ণকুহর এ ধাক্কা গেল সুস্মিত এর..। "বেশ লাগছে তো তোকে... ,পুরো পাল্টে গেছিস দেখছি...." সুস্মিত সামলে নিল নিজেকে .. মনের সমস্ত জাগ্রত চিন্তা ভাবনাগুলি দূরে ঠেলে , বেঁকে যাওয়া মেরুদণ্ড টা সোজা করে মুখে একরাশ হাসি নিয়ে বলল , "ভালোই রে .. তোর কিরকম চলছে ? আহেলিকে লক্ষ্য করল সুস্মিত ভালোভাবে। মুখে হালকা হালকা ব্রণের দাগ হয়েছে, একটু সাস্থবতী হয়েছে , খুব ইচ্ছে করছিল , আগের মতো মাথায় হালকা চাটি মেরে জিজ্ঞেস করতে , "কিরে পাগলী! বাড়িতে রাক্ষসীর মতো খাচ্ছিস তাই না ? মুখে শুষ্ক হাসি নিজের মনকে আটকে রাখল সুস্মিত। "আমিও ভালো আছি রে , যাইহোক ও আমার একটা বন্ধু ,পরিচয় করিয়ে দি , ও সায়ন , আমাদের ওখানেই পাশের পাড়ায় থাকে"। বুকটা ভারী হয়ে এল .. কৌতূহলে বুক ফেটে যাচ্ছে ..নিশ্চই এই ছেলেটা ওর নতুন বয়ফ্রেন্ড। কারো একজন মুখে শুনেছিল , যে "তোর ex কে তো একটা ছেলের সাথে দেখলুম!"। বিশ্বাস করেনি সেদিন .. তার প্রাণের চেয়ে প্রিয় আহেলি একদিনেই তাকে ভুলে যেতে পারেনা । মুখে কাষ্ঠ হাসি এনে ছেলেটার সাথে হ্যান্ডশেক করল। তারপর আহেলি কে বললো , "চল ওদিকটায় দাড়াই, পরের ট্রেন টা ১৫ মিনিট পর, ততক্ষন তো থাক "। আহেলি একটু ইতস্তত করে বলল "চল।" তারা সরে গিয়ে দাঁড়াল প্লাটফর্মে এক ফলের দোকানের সামনে। সেই ফলওয়ালার মুখ টা আজ চেনা চেনা লাগল , মনে আছে , সেই মিলিনিয়াম পার্ক থেকে ফিরে এইখানেই দাঁড়িয়েই ট্রেনে তুলে দিত আহেলিকে। যতক্ষন না চোখের সামনে থেকে ট্রেনটা আড়াল হত , ঠায় দাঁড়িয়ে থাকত এখানে সে। ফলওয়ালার মুখের দিকে তাকালো, কেমন জানি অবাক অবাক লাগল তার। "যাইহোক , যেটার জন্যে আসা , এই নে এটা ধর .. " আহেলি বলে ব্যাগ থেকে পলিথিন মোরা একটি বাক্স বের করে সুস্মিত এর হাতে ধরিয়ে দিল "। সুস্মিত এর বুকটা মুচড়ে উঠল , এত সহজে দিয়ে দিলি আমার শেষ স্মৃতিটুকু ? কিন্তু মুখে সে সহজভাব এনে বলল , "হুম! থাঙ্কস! আর কেমন চলছে জীবন ..?" ♥♥♥♥♥♥♥♥♥♥ আহেলি স্বাভাবিক ভাবে উত্তর দিল .. ," একদম ভালো ছিলাম তা বলবো না , তবে সায়ন আসার পর থেকে বেশ ভালো আছি, একজন বন্ধুর দরকার ছিল ... .. আর তোর ? সুস্মিত এর হৎস্পন্দন বন্ধ হল । পৃথিবী টা শূন্য হল। সে উত্তর খুঁজে পেলনা বলে সায়ন এর দিকে তাকিয়ে হাসল, সেই ভুবন ভোলানো হাসি ... উফঃ! দেখতে দেখতে পরের ট্রেনের announcement টা হয়েছে ! ট্রেনটা শব্দ করে ঢুকছে, আহেলি একটু কাছে এসে গভীর চোখে তাকিয়ে আবার বলল "কি রে বল " ... সুস্মিত ওর চোখটা আহেলির চোখ থেকে সরিয়ে বলল , " এই তো বেশ ভালো আছি রে। ওর কথা টা ট্রেন এর হুইসেল এর সাথে মিশে একাকার হয়ে কোথায় যেন হারাল...। সেই আগের মতোই ট্রেন এ তুলে দিল ওদের .. ট্রেনটা চলতে শুরু করল ..আহেলি ট্রেনের গেটের সামনে দাঁড়িয়ে ছিল ..সুস্মিত এর দিকে তাকিয়ে মিষ্টি করে হাসল আবার..। কিন্তু ওর কালো গভীর চোখ টা কেমন ব্যাথাতুর লাগল ... আস্তে আস্তে আহেলি চোখের আড়াল হল। শীতকাল, তার উপরে মেঘলা আকাশ, চারদিক টা বিকেল হতেই একটু অন্ধকার অন্ধকার ! চারদিকে হালকা কুয়াশার প্রলেপ কেমন রহস্যাবৃত পরিবেশের সৃষ্টি করেছে। তারই মাঝে শ্লথ-মন্থর গতিতে ট্রেনটা এগিয়ে যাচ্ছে তার গন্তব্যে।সেই আগের মতোই আজও সুস্মিত নির্বাক চোখে ছেড়ে যাওয়া আগুয়মান ট্রেনটার দিকেতাকিয়ে আছে। একটুপরেই চোখের আড়াল হবে। মিশে যাবে কুয়াশায়। হারিয়ে যাবে কোথায়....। ঝাপসা চোখে ট্রেনটির দিকে তাকিয়ে সুস্মিত দীর্ঘনিশ্বাস ফেলে বলল, "ভালো থাকিস"...। ******************★****************** লিখেছেন- অপূর্ব বন্য ট্রল পেজ থেকে সংগৃহীত


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৩৬৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ অভিশপ্ত আয়না পর্র৬(শেষ পর্ব):-
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৫:-
→ এ মায়ের কি কষ্ট
→ ~সান্তনা_দে-২।
→ হায়রে মানুষ, তাদের কি ছিলনা কোনো হুশ!
→ ~ভূত নামানো(গল্পটি বলেছেন ড.মুহাম্মদ জাফর ইকবাল)।
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৪:-
→ ✳নিজেকে দোষ দিও না✳
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৩:-
→ সৌন্দর্যের আলাদা করে কোনো রঙ হয় না

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...