গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

গল্পেরঝুড়িতে লেখকদের জন্য ওয়েলকাম !! যারা সত্যকারের লেখক তারা আপনাদের নিজেদের নিজস্ব গল্প সাবমিট করুন... জিজেতে যারা নিজেদের লেখা গল্প সাবমিট করবেন তাদের গল্পেরঝুড়ির রাইটার পদবী দেওয়া হবে... এজন্য সম্পুর্ন নিজের লেখা অন্তত পাচটি গল্প সাবমিট করতে হবে... এবং গল্পে পর্যাপ্ত কন্টেন্ট থাকতে হবে ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

♥ তোমাকেই খোঁজছি (পর্ব - ২) ♥

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান মোঃ আনিছুর রহমান লিখন (৫০২৪ পয়েন্ট)



♥♥ সামান্য কানের দুলের জন্য ঘুম নেই অপূর্বের। যে কোন মূল্যে হোক কানের দুল পাওয়া চাই। সারিকাকে যেভাবেই হোক কানের দুলটি দিতে চায় অপূর্ব। তাই সকাল বেলায় লেপটপে সকল সিসি ক্যামেরার ফুটেজ ভাল করে লক্ষ্য করছে অপূর্ব। অবশেষে কানের দুল পাওয়া একটি ইঙ্গিত পায় সে। ফারুককে পাঠায় কালুর কাছে। কালু এই রেস্টুরেন্টে ওয়েটার হিসেবে কাজ করে। কালু প্রতিদিনের মতো টেবিলে থালা, বাটি, গ্লাস সাজিয়ে রাখছিল। এসময় মেনেজার ফারুকের প্রবেশ। কালুঃ আসসালামু আলাইকুম। ফারুকঃ ওয়ালাইকুমুস সালাম। জুতার ফিতাটা বাঁধেন। বস আপনাকে ডাকে। কালুর তো ঘাম ছুটে যায় একটি আশঙ্কায়। ফারুকঃ বস কালু এসেছে। অপূর্বঃ গতকাল কি পেয়েছিলে? কালুঃ একটা কানের দুল পাইছি স্যার। অপূর্বঃ ওটা কোথায় রেখেছো? কালুঃ স্যার, পরিবারে অভাব, হাতে টাহা নাই, তাই বেচে দিচি স্যার। ফারুকঃ ওর ন্যাচারটাই এ রকম। angry angryangryangry অপূর্ব উঠে কালুর কাছে গেল। কালু ভয় পেয়ে গিয়েছিল। সে হাত তুলে ক্ষমা চাইছিল। আর অপূর্ব বলল, অপূর্বঃ তোকে ২০ হাজার টাকা দিব। তুই যেভাবে পারিস ওটা নিয়ে আয়। কালুঃ স্যার অহনই আমি ওটা নিয়ে আইতেচি। ♥♦♥♦♥♦♥♦♥ কানের দুলটি পেয়ে অপূর্ব সারিকাদের বাসায় গেল। কলিংবেল বাজালে সারিকার ছোটভাই এসে দরজা খুলে দিয়ে বলল, আপনি বসুন। আমি আপুকে পাঠিয়ে দিচ্ছি। সারিকা আসল। আর অপূর্ব তার পকেট হতে কানের দুলটি দিয়ে, অপূর্বঃ মেম, দেখুন, এটাই মনে হয় আপনার কানের দুল। সারিকাঃ হ্যা....। এটাই আমার কানের দুল। জানেন এটা আমার মা মৃত্যুর আগে জন্মদিনে এটা গিফ্ট দিয়েছিল। আর একটা কথা, আজও মনে হয় রেস্টুরেন্টে ডিউটি করছেন। আপনি আরো কি করেন? অপূর্বঃ আমি পড়াশোনার পাশাপাশি এ জবটি করছি। আমি চাই আত্মনির্ভরশীল হতে। এভাবে কথা চলতে থাকে। সারিকা দূর্বল হতে থাকে অপূর্বের প্রতি। অপূর্বকে ভালবাসতে শুরু করে। ♥♦♥♦♥♦♥♦♥ অপূর্ব প্রায় সারিকার বাসায় সামনে ঘুরঘুর করে সারিকাকে দেখার জন্য। সারিকা তা লক্ষ্য করছিল। সারিকাঃ এই যে মিঃ, এদিকে বেশি অর্ডার হয় বুঝি। অপূর্বঃ হ্যা...। এদিকে একটু চাপে থাকি। সারিকাঃ হুম। দেখে তো তাই মনে হয়। এগুলো বারবার পুনরাবৃত্তি হয়। অবাক হয় সারিকা। তবে স্বাভাবিকও বটে। হতেও পারে। ♥♦♥♦♥♦♥♦♥ আজ একটি অর্ডার সারিকাদের বাড়ির দুতলায়। তাই অপূর্ব দাঁড়িয়ে আছে। রিক্সায় সারিকা বাসায় ফিরে। সারিকাঃ কি মিঃ আজ? কিসের অর্ডার? অপূর্বঃ এই বাসার দুতলার অর্ডার ছিল। সারিকাঃ এই বাসার দুতলার লোকজন গত তিনমাস হলো দেশের বাইরে। মনে হয় ভুতে অর্ডার করেছে। অপূর্বঃ ওওও তাই! এই বলে সারিকাকে গিফ্ট টি দিয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। আর পালিয়ে যাবে কোথায়? ♥♦♥♦♥♦♥♦♥ আমি আবারও হাজির হবো পরের পর্ব নিয়ে। বাই বাই wavewave


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৪৮১ জন


এ জাতীয় গল্প

→ কলম্বাসের আমেরিকা আবিষ্কারের কথা। পর্ব-1
→ জিজের পরিচিতরা যে কারণে প্রিয় (পর্ব-১)
→ অবনীল(পর্ব-৮)
→ অভিশপ্ত আয়না পর্র৬(শেষ পর্ব):-
→ মন জানে ♥♥
→ "এখনও আমি অপেখা করছি তোমার জন্য!!!!" পর্ব-২
→ শেষ বিকেলের মায়াবতী♥ (২২)
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৫:-
→ ~সান্তনা_দে-২।
→ অ্যামাজনে কয়েকদিন (পর্ব ৬)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...