গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় পাঠকগন আপনাদের অনেকে বিভিন্ন কিছু জানতে চেয়ে ম্যাসেজ দিয়েছেন কিন্তু আমরা আপনাদের ম্যাসেজের রিপ্লাই দিতে পারিনাই তার কারন আপনারা নিবন্ধন না করে ম্যাসেজ দিয়েছেন ... তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ কিছু বলার থাকলে প্রথমে নিবন্ধন করুন তারপর লগইন করে ম্যাসেজ দিন যাতে রিপ্লাই দেওয়া সম্ভব হয় ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

ব্যর্থ প্রেম

"জীবনের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান অনিক আহমেদ (৩ পয়েন্ট)



আমি সাধারণত ইন্ট্রোভাট টাইপের ছেলে। মনের কথা মনেই রেখে দেই। কিছু কিছু কথা কাউকে বলা যায় না। যাই হোক আমি তখন কলেজে পড়ি ফার্স্ট ইয়ারে। যেদিন প্রথম কলেজে যাই সেদিন খুব চুপচাপ ছিলাম। সবাই নতুন কারো সাথে তেমন পরিচয় বা কথা বলিনি। আমাদের কলেজে একটা রুলস ছিল যার যার সিট প্ল্যান অনুযায়ী তাকে সেখানেই বসতে হয়। আমার সামনে একটি মেয়ে বসতো নাম ইলমি। প্রথম যেদিন কলেজে যাই ওকে তখন ফার্স্ট দেখি। প্রথম দেখাতেই খুব ভালো লেগে যায়। কথায় আছে না লাভ এট ফার্স্ট সাইট। তো যাই হোক ওর সাথে কথা বলার সাহস পেতাম না। মেয়েটি খুব সুন্দর ছিল এবং চঞ্চল সভাবের। মেয়েটি সবার সাথেই কথা বলতো। আমার সাথেও বলতো কিন্তু সেটা খুবই কম। আমি সব সময় চুপচাপ থাকতাম। তাই কেউ আমার সাথে কথাও খুব একটা বলতো না। ইলমির প্রতি ধীরে ধীরে আমার ভালো লাগা আরো বেড়ে যায়। বলতে গেলে ওকে দেখার জন্য কখনো ক্লাস মিস দিতাম না।একদিন শুনলাম ওর বয়ফ্রেন্ড আছে। তখন খুব খারাপ লেগেছিল। যদিও পরে ওদের ব্রেক আপ হয়ে যায়। একদিন সিদ্ধান্ত নিলাম আজ যেভাবেই হোক ইলমির সাথে কথা বলবো ও যদি বলতে নাও চায়। কিন্তু ওর সামনে গেলেই আমি নার্ভাস হয়ে যেতাম। এভাবেই কখনোই আর ওর সাথে কথা বলা হয়নি। শুধু আড়াল থেকে ভালোবাসতাম আর কষ্ট পেতাম। একদিন শুনলাম ইলমি ফেসবুক ইউজ করে তাই ভাবলাম আগে ফেসবুকে কথা বলে পরিচয় হয়ে সামনা সামনি কথা বলবো। যেই ভাবা সেই কাজ ফেসবুকে হায় হেলো তারপর পরিচয় হলো। তারপর একদিন ওকে ফেসবুকে বল্লাম ইলমি তোমাকে আমি খুব পছন্দ করি। ইলমি এটা শুনার পর ওইদিন আর রিপ্লাই দেয় নাই। আমি ভয় পেয়ে দুই দিন কলেজে গেলাম না যদি কিছু বলে। তারপর একদিন কলেজে গেলাম। ইলমি আমাকে ডেকে একটু আড়ালে নিয়ে গেল ভাবছিলাম অপমান করবে হ্যা ঠিক তাই করলো ইলমি আমাকে অনেক অপমান করলো বললো তুমি তোমার চেহারা আয়নায় কখনো দেখেছো আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দাও এই সেই অনেক অপমান করলো। আমি ঠিক কি করবো বুঝতে পারছিলাম না। তখন ক্লাস শুরু হওয়ার আগে কলেজ থেকে বেড়িয়ে চলে গেলাম। মন টা এতটাই খারাপ ছিল যে সিগারেট পর্যন্ত খেলাম যেখানে আমি সিগারেট এর ধোয়া সহ্য করতে পারতাম না। তারপর আর ১ মাস কলেজে যায়নি। এভাবেই কেটে গেল দুইটা বছর এইচএসসি দিলাম কলেজ লাইফ শেষ করলাম। কিন্তু আমি ইলমি কে তখনো ভালোবাসতাম। সেকশন চেঞ্জ হওয়ার পর ও ওকে লুকিয়ে লুকিয়ে দেখতাম। ও যে রাস্তা দিয়ে বাসায় যায় সেখানে দাড়িয়ে থাকতাম ওকে দেখার জন্য। এখন হয়ত ইলমির বিয়ে হয়ে গেছে। কিন্তু ইলমির জন্য বুকে এখনো ওর জন্য কষ্ট পাই এখনো ওকে খুব ভালোবাসি।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৫৫৪ জন


এ জাতীয় গল্প

→ চমৎকার সেই প্রেম
→ প্রেমের কক্ষপথ
→ ✳হিসাববিজ্ঞান ভাষায় প্রেম পত্র✳
→ অবন্তির প্রেম
→ কলেজ লাইফের প্রেম ( পর্ব ৩)
→ প্রেমময় প্রদীপ
→ অন্ধ প্রেম
→ প্রেমিকা সোনালী,ম্যানেজার বেহুশ
→ কলেজ লাইফের প্রেম (২য় পর্ব )
→ কলেজ লাইফের প্রেম( ১ম পর্ব )

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...