গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

গল্পেরঝুড়িতে লেখকদের জন্য ওয়েলকাম !! যারা সত্যকারের লেখক তারা আপনাদের নিজেদের নিজস্ব গল্প সাবমিট করুন... জিজেতে যারা নিজেদের লেখা গল্প সাবমিট করবেন তাদের গল্পেরঝুড়ির রাইটার পদবী দেওয়া হবে... এজন্য সম্পুর্ন নিজের লেখা অন্তত পাচটি গল্প সাবমিট করতে হবে... এবং গল্পে পর্যাপ্ত কন্টেন্ট থাকতে হবে ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

♥ তোমাকেই খোঁজছি (পর্ব - ১) ♥

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান মোঃ আনিছুর রহমান লিখন (৫০২৪ পয়েন্ট)



♥♦♥♦♥♦♥♦♥ একটি বিশাল রেস্টুরেন্টে। পরিপাটি, সুন্দর ও মনোরম পরিবেশে রাস্তার পাশেই অবস্থিত। এ রেস্টুরেন্টের মালিক অপূর্ব চৌধুরী। বিরাট বড়লোকের আদরের একমাত্র ছেলে। বাবা ও সন্তান যেন বন্ধুর মতো। কিন্তু অপূর্ব এই রেস্টুরেন্টে ওয়েটার হিসেবে কাজ করে। অবাক হবার কিছু নেই। এটি শুধু অভিনয়। একটি মেয়েকে পটানোর অভিনয়। তবে কি মেয়েটি গরীব? না। মেয়েটিও এক বিরাট শিল্পপতির আদরের দুলালী। তাহলে সে কেন একজন গরীব ছেলেকে ভালবাসতে চায়? আসলে মেয়েটি আত্মনির্ভরশীল একজন ছেলেকে ভালবাসতে চায়। এটা মেয়েটির একটি চাওয়া মাত্র। ♥♦♥♦♥♦♥♦♥ সকাল বেলা। একটি মেয়ে রেস্টুরেন্টে আসে। একটি সুপের অর্ডার করা হয়। এদিকে অপূর্ব ভাবতে থাকে এবং দেখতে থাকে ঐ মেয়েটি কখন আসবে? তাকে প্রাণভরে দেখে নিবে। মেয়েটি যথাসময়ে হাজির হয়। ইতিমধ্যে সুপের মধ্যে চুল পাওয়া যায়। প্রথম মেয়েটি রেগে গিয়ে বলে, প্রথম মেয়েঃ খালি মেয়েদের দেখলে ঘুরঘুর করেন। সুপের মধ্যে চুল কেন? অপূর্বঃ আমি সুপ চেঞ্জ করে দিচ্ছি। প্রথম মেয়েঃ মেনেজার, মেনেজার, দেখেন সুপের মধ্যে চুল! আর কি রকম ছেলে মেয়ে দেখলে ঘুরঘুর করে। মেনেজারঃ বেয়াদপ, বেয়াদব, তুমি আমার রেস্টুরেন্টের ইমেজ নষ্ট করছো। মেম, আমি সুপটা চেঞ্জ করে দিচ্ছি। প্রথম মেয়েঃ আপনার সুপ আপনি খান। চল সারিকা, চলে যাই। ওরা চলে গেল। আর মেনেজার অপূর্বের পায়ে পড়ে বলল, মেনেজারঃ স্যা.................র। অপূর্বঃ আমি বেয়াদব না, আমি বেয়াদব! মেনেজারঃ না স্যার, আমার চৌদ্দ পুরুষ বেয়াদব। স্যার যে এক্টিং না করলে কামাল করে দিয়েছেন। এভাবেই অভিনয় করুন স্যার। অপূর্বঃ মেনেজার! angryangry মেনেজারঃ I am sorry to the power Infinity. অপূর্বঃ ফারুক, তুই পারিসও বটে। আসি। ♥♦♥♦♥♦♥♦♥ রেস্টুরেন্টের পরের দিন। সারিকা এসেছে। তার নাকি একটি কানের দুল রেস্টুরেন্টে পড়ে গিয়েছে। তাই ওটা খোঁজতে এসেছে।weepweep। ফারুকঃ হ্যালো, স্যার, ঐ ম্যামটা এসেছে। উনার নাকি কানের দুল হারিয়েছে এখানে। অপূর্বঃ ওকে, থাকতে বল, আর বল আমি কানের দুল পেয়েছি। আমি আসছি। আধঘন্টা পর অপূর্ব এসে হাজির। অপূর্বঃ দেখুন এটা আপনার কানের দুল কিনা? সারিকাঃ না....। এটা তো ডায়মন্ড। আমারটা স্বর্ণের ছিল। যদি পান তাহলে এই ঠিকানায় পৌঁছে দিবেন প্লিজ। ♥♦♥♦♥♦♥♦♥ আবার দেখা হবে পরের পর্বে। বাই। wavewavewave


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৯১২ জন


এ জাতীয় গল্প

→ কলম্বাসের আমেরিকা আবিষ্কারের কথা। পর্ব-1
→ জিজের পরিচিতরা যে কারণে প্রিয় (পর্ব-১)
→ অবনীল(পর্ব-৮)
→ অভিশপ্ত আয়না পর্র৬(শেষ পর্ব):-
→ মন জানে ♥♥
→ "এখনও আমি অপেখা করছি তোমার জন্য!!!!" পর্ব-২
→ শেষ বিকেলের মায়াবতী♥ (২২)
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৫:-
→ THE ADVENTURE OF ALL GJ IN BOGURA (1)
→ ~সান্তনা_দে-২।

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...