গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান ... গল্পেরঝুড়ি একটি অনলাইন ভিত্তিক গল্প পড়ার সাইট হলেও বাস্তবে বই কিনে পড়ার ব্যাপারে উৎসাহ প্রদান করে... স্বয়ং জিজের স্বপ্নদ্রষ্টার নিজের বড় একটি লাইব্রেরী আছে... তাই জিজেতে নতুন ক্যাটেগরি খোলা হয়েছে বুক রিভিউ নামে ... এখানে আপনারা নতুন বই এর রিভিও দিয়ে বই প্রেমিক দের বই কিনতে উৎসাহিত করুন... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

জলদানব রহস্য_রকিব হাসান

"গোয়েন্দা কাহিনি" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Farhan… (৭৮১ পয়েন্ট)



"গোয়েন্দা কিশোর মুসা রবিন" জলদানব রহস্য_রকিব হাসান এক  বাসের জানালা দিয়ে মাথা বের করে দিল কিশোর পাশা। বাতাসের ঝাপটায় উড়ে যাচ্ছিল মাথার ক্যাপটা, থাবা দিয়ে ধরে ফেলল। কোঁকড়া কালো চুলের ওপর চেপে বসাল, যাতে আর না খোলে। রাস্তার দুই ধারের ঘন বনের দিকে তাকিয়ে করল প্রশ্নটা, ‘কোথায় যে যাচ্ছি?’ ‘মনস্টার উড!’ বই থেকে মুখ তুলল পাশে বসা কিশোরের বন্ধু রবিন। ‘সে তো জানিই।’ ‘তাহলে জিজ্ঞেস করছ কেন?’ ‘ছুটিটাই মাটি হবে কি না বুঝতে পারছি না।’ ‘মাটি হবে কেন?’ ‘যদি কোনো রহস্য না পাই?’ কিশোরের দেখাদেখি বাসের জানালা দিয়ে মুখ বের করে দিল ওর সামনের সিটে বসা ওদের আরেক বন্ধু মুসা আমান। বলল, ‘শুনেছি মনস্টার উডের লেকটা নাকি ভালো না। প্রচুর বদনাম। ওই লেকের পানির নিচে দানবের বাসা।’ ‘ওসব ফালতু কথা,’ জবাব দিল ওর পাশে বসা খালাতো বোন ফারিহা। ‘কিছুই যদি না থাকবে, তাহলে মনস্টার লেক নাম দিল কেন?’ ‘বহুকাল আগে হয়তো দানব ছিল ওই লেকে,’ জবাব দিল রবিন। ‘উঁহু, তা না,’ কিশোর বলল। ‘বনের নাম যেহেতু মনস্টার উড, তাই লেকটাকে মনস্টার লেক বলে।’ ‘তাহলে বনের নামই বা মনস্টার উড হলো কেন? নিশ্চয় দৈত্য-দানব ছিল...’ কথাটা শেষ না হতেই চিৎকার করে উঠল মুসা, ‘ওই যে এসে গেছে! মনস্টার উড! উহ্‌, বাঁচলাম! যে ঝাঁকির ঝাঁকি, পেটে ব্যথা হয়ে গেছে আমার।’ বই দিয়ে ওর মাথায় বাড়ি মারল রবিন। ‘এত খেলে ব্যথা তো হবেই। এতগুলো চকলেট মিল্ক খেতে মানা করেছিলাম না? পেটের মধ্যে গিয়ে ঝাঁকি খেতে খেতে এখন বদহজম হয়ে গেছে।’ ‘দূর, বদহজম না ছাই! ব্যথা হয়েছে আসলে ঝাঁকিতে।’ ঠোঁট উল্টাল মুসা। কিশোর তাকিয়ে আছে নতুন একটা পাথরের সাইনবোর্ডের দিকে। তাতে ইংরেজিতে লেখা কথাগুলোর মানে করলে দাঁড়ায়:  মনস্টার উডে স্বাগতম।এখানকার বন ও লেক উদ্ভিদসহ সব ধরনের বুনো প্রাণীর নিশ্চিন্ত আবাসস্থল। ‘তার মানে এটা একটা অভয়ারণ্যও বটে,’ রবিন বলল। কিছু একটা বলতে যাচ্ছিল মুসা, এমন সময় বেজে উঠল বাঁশি। দুই কানে আঙুল দিয়ে ফেলল ফারিহা। ‘কিসের শব্দ?’ ‘ব্যাগপাইপ!’ জবাব দিল রবিন। একবার বেজেই থেমে গেল বাঁশি। ‘ব্যাগপাইপ!’ বিড়বিড় করল মুসা। তারপর জিজ্ঞেস করল, ‘কোনো ধরনের পাখি নাকি?’ ‘এ জন্যই তো বলি বই পড়ো, বই পড়ো,’ রবিন বলল। ‘অনেক কিছু জানতে পারবে। ব্যাগপাইপ কোনো পাখি না। স্কটল্যান্ডের একধরনের বাদ্যযন্ত্র। মিউজিক ক্লাসেও তো ফাঁকি দাও। জানবে কী করে।’ ‘অত জানার দরকারও নেই আমার। কিন্তু এই বিজন বনে স্কটল্যান্ডের ব্যাগপাইপ বাজায় কে? বাঁশের বাঁশি হলেও নাহয় এক কথা ছিল।’ জানালা দিয়ে হাত বের করে দেখাল কিশোর। রোগা-পাতলা ফ্যাকাসে চেহারার এক মহিলা দাঁড়িয়ে আছেন। পরনে ওয়েট সুট, মুখে মাস্ক, পায়ে ফ্লিপার। কাঁধে ঝুলছে একটা ব্যাগপাইপ। ‘উনি বাজিয়েছেন’, কিশোর বলল। ‘ওই মহিলা।’ চলবে…gj


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২৮৯ জন


এ জাতীয় গল্প

→ জলদানব রহস্য_১১
→ জলদানব রহস্য_১০
→ জলদানব রহস্য_৯
→ জলদানব রহস্য_৮
→ জলদানব রহস্য_৭
→ জলদানব রহস্য_৬
→ জলদানব রহস্য_৫
→ জলদানব রহস্য_৪
→ জলদানব রহস্য_৩
→ জলদানব রহস্য_০২

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...