গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় পাঠকগন আপনাদের অনেকে বিভিন্ন কিছু জানতে চেয়ে ম্যাসেজ দিয়েছেন কিন্তু আমরা আপনাদের ম্যাসেজের রিপ্লাই দিতে পারিনাই তার কারন আপনারা নিবন্ধন না করে ম্যাসেজ দিয়েছেন ... তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ কিছু বলার থাকলে প্রথমে নিবন্ধন করুন তারপর লগইন করে ম্যাসেজ দিন যাতে রিপ্লাই দেওয়া সম্ভব হয় ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

নিয়তির প্রেম [দ্বিতীয় ও শেষ পর্ব]

"ফ্যান্টাসি" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান SHUVO SUTRADHAR (৭৫২ পয়েন্ট)



..........দিতির কথাগুলোই ভাবছে। দিতি কিভাবে চলে যেতে পারে আমাকে না বলে। অর পরিবারকে ও তো খুব দেখেছি খুব ভালো ছিল। দ্বীপ কোনো ভাবেই মেনে নিতে পারছে বিষয়টি। দ্বীপ খুজ নিতে দিতির সহপাঠীদের শরণাগত ও হয়। কিন্তু তারাও কিছু জানে না! দ্বীপ মনে মনে ভাবতে থাকে সে কি আমাকে সত্যিকার অর্থে ভালোবেসেছিল নাকি আমার ক্যারিয়ারকে! এভাবে কিছু দিন কাটার পর সে নিজেকে খুব শক্ত করে এবং নিজেই নিজেকে বলে দ্বীপ সামনে তোমার উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ এখন তোমার ক্যারিয়ার গঠন করার সময় তোমাকে ভেঙ্গে গেলে চলবে না। এভাবে দ্বীপ বিষয়টাকে তলানিতে ফেলে দেয় এবং ক্যারিয়ার গঠন করতে শুরু করে। এভাবে আরও আট বছর কেটে গেল......... এখন দ্বীপ একটি বেসরকারি ব্যাংক কর্মকর্তা। ব্যাংক থেকে একটি চিঠি আসল ব্যাংকের একটি কাজের জন্য থাকে ঢাকা যেতে হবে। সে কাজ শেষে বাড়ি ফিরছিল তখন হঠাৎ ভাগ্যক্রমে দেখা হয়ে যায় দিতির মার সঙ্গে। দ্বীপঃ আন্টি আপনি এখানে! দিতির মাঃ তোমি কে বাবা চিনলাম না যে? দ্বীপঃ আন্টি আমি দিতির স্কুল বন্ধু! দিতির মাঃ তোমিই সেই দ্বীপ যে আমাদের বাড়িতে দিতির সঙ্গে প্রায়শ যেতে। দ্বীপঃ এ আন্টি। দিতির মাঃ তোমাকেই এতটা বছর খুঁজেছি! দ্বীপঃ কেন? দিতি এখন কি করে। দিতির মাঃ আস আমার সঙ্গে আমার বাড়িতে তাহলেই সব বুঝতে পারবে। এই কতা বলেই দ্বীপ কে নিয়ে তিনি তার বাড়িতে চলে এলেন। তিনি একটি চিঠি বের করে দিলেন তার ড্রয়ার থেকে আর বললেন... দিতির মাঃ এই নাও চিঠি। দ্বীপঃ চিঠি দিয়ে কি করব! দিতি কোথায়? দিতির মাঃ এটা পড়লেই সব বুঝতে পারবে। সেই চিঠিটা দেওয়ায় জন্য আমি অনেকটা দিন অপেক্ষা করেছি। দ্বীপ চিঠি খুলল এবং চিঠির অংশটুকো পড়তে লাগল..... প্রিয় দ্বীপ আজ যখন তোমি চিঠিটা পড়ছ তখন তোমি ক্যারিয়ার পূর্ণ এক যুবক। আর আমি এখন না ফেরার দেশে। আমি তোমার থেকে অনেক দূর চলে এসেছিলাম তোমার ভালোর জন্য। আমি যখন এস.এস.সি পরীক্ষা দিয়ে বাড়িতে তখন আমার বুকে খুব সমস্যা করছিল তার পর টেস্ট করিয়ে দেখি আমার ব্লাড ক্যান্সার। তার ফল অঘুম মৃত্যু জেনে আমি তোমাকে ভালো দেখতে চলে এসেছিলাম ঢাকায়। কারন যদি আমি তোমাকে সেটি বলতাম তাহলে তোমি সেটা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারতে না এবং তোমার ক্যারিয়ার নষ্ট হয়ে যেত। আমি জানি তোমি আমাকে খুব ভালোবাস। তোমি বুদহয় আমাকে খুব অবিশ্বাস করেছিলে। কিন্তু আমি জানি তোমি একদিন আমার চিঠিটা পড়বে এবং চেরে আসার কারনটাও জানতে পাড়বে। কারন আমাদের ভালোবাসা ছিল কাটি যার মধ্যা কোনো চাওয়া পাওয়া নেই। আমাদের প্রেমের পূর্নমিলন ঘটেনি বুদহয় নিয়তির জন্য।এই নিয়তিই বুদহয় চায়নি আমাদের এক হতে। এই নিয়তিই সমাজকে ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে যায়। তাই নিয়তির সমাজকে বিশ্বাস করে আমার অঘুম মৃত্যুকে চাপা দিয়ে আমাদের বালোবাসাকে বিশ্বাস রেখে তোমি তোমার সামনের সময়গুলোকে ভালোভাবে সফল কর। ইতি তোমার প্রিয় দিতি সেটি পড়ে দ্বীপ কাঁদতে থাকে.................(শেষ)


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৮০৬ জন


এ জাতীয় গল্প

→ জিজেসদের নিয়ে সারার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন[তৃতীয় ও অন্তিম পর্ব]
→ অভিশপ্ত আয়না পর্র৬(শেষ পর্ব):-
→ "এখনও আমি অপেখা করছি তোমার জন্য!!!!" পর্ব-২
→ ⭐ডেবিট ও ক্রেডিট⭐
→ শেষ বিকেলের মায়াবতী♥ (২২)
→ ♦আলাদিন ও তার জিনের সাথে একদিন♦
→ প্রেমের কক্ষপথ
→ ✳হিসাববিজ্ঞান ভাষায় প্রেম পত্র✳
→ "এখনও আমি অপেক্ষা করছি তোমার জন্য!!!" পর্ব-১
→ ✳নিজেকে দোষ দিও না✳

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...