গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান ... গল্পেরঝুড়ি একটি অনলাইন ভিত্তিক গল্প পড়ার সাইট হলেও বাস্তবে বই কিনে পড়ার ব্যাপারে উৎসাহ প্রদান করে... স্বয়ং জিজের স্বপ্নদ্রষ্টার নিজের বড় একটি লাইব্রেরী আছে... তাই জিজেতে নতুন ক্যাটেগরি খোলা হয়েছে বুক রিভিউ নামে ... এখানে আপনারা নতুন বই এর রিভিও দিয়ে বই প্রেমিক দের বই কিনতে উৎসাহিত করুন... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

সর্পকেশি মেডুসা-২

"ফ্যান্টাসি" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান শিমুল (১৪৫৯ পয়েন্ট)



মনে করা হয় মেডুসার অভিশাপের পেছনে পসাইডনের হাত রয়েছে।একবার পসাইডন দেবী অ্যাথেনার মন্দিরে যায়।তখন সে মেডুসাকে দেখতে পাই।মেডুসা ছিল অসম্ভব সুন্দরী।প্রথম দেখাতেই সে তার প্রেমে পড়ে যাই।কিন্তু মন্দিরের ভিতরে এইসব নিষিদ্ধ ছিলো।তখন দেবী অ্যাথেনা তো আর সয়ং সমুদ্র দেবতা পসাইডনকে কিছু বলতে পারবেনা।তাই তখন তার সব রাগ গিয়ে পড়ে মেডুসার উপর।তাই সে মেডুসাকে অভিশাপ দেয়।এদিকে মেডুসার অভিশাপের জন্য তার মাথার চুল হয়ে যায় সাপ আর তার কোমর থেকে সব কিছ সাপের লেজে পরিণত হয়।তখন সে সব দুঃখ নিয়ে বনে বনে ঘুরে বেড়াই।আর তার মাথার সাপ মাটিতে খসে খসে পড়তে থাকে।মনে করা হয় সেই সাপগুলো আফ্রিকায় পড়ে ছিলো।তাই আফ্রিকায় এত বিষাক্ত সাপ।মেডুসার সবথেকে পছন্দের অস্ত্র ছিল তার তীরধনুক কিন্তু তার থেকে ভয়ংকর ছিলো তার চোখ।তার চোখের দিকে যে সরাসরি তাকাই সে পাথরে পরিণত হয়।এদিকে পার্সিয়াস নামে একজন ডেমিগড ছিলো।সেই মেডুসাকে বধ করে।পার্সিয়াস ছিলো দেবরাজ জিউসের পুত্র।যারা কোনো দেবতার সন্তান হয় তাদের ডেমিগড বলা হয়।ডেমিগড অর্থ অর্ধেক দেবতা আর অর্ধেক মানুষ।এদিকে মেডুসা অনেক মানুষ পশুপাখিকে পাথরে পরিণত করে।মনে করা হয় সে এক নির্জন দ্বীপে বাস করত যাতে তার চোখের দিকে তাকিয়ে কেও পাথরে পরিণত না হয়। (পরবর্তী পর্ব দেখার জন্য আমন্ত্রণ রইলো)


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৪০০ জন


এ জাতীয় গল্প

→ সর্পকেশি মেডুসা।

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...