গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

"জঙ্গল রহস্য উদঘাটন" ২য় পর্ব

"রহস্য" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Md. Nurnobi (৩২ পয়েন্ট)



সবাই মিলে জঙ্গলে ঢুকতে লাগল। আর ঢোকার সময় তাদের হাতের ব্যাট দিয়ে জঙ্গলের আগাছা পরিষ্কার করে ঢুকছে। তাই তাদের ঢোকার পথে আলাদা করে রাস্তার মতো হয়ে যাচ্ছে। জঙ্গলে ঢুকেই সবাই রানা রানা করে ডাকতে লাগল। কিন্তু রানার কোনো সাড়া শব্দ নেই। সবাই জঙ্গলের আরো কিছুটা ভেতরে ঢুকল। তারপরো রানার কোনো খবর নেই। সকলে বেশ ভয় পেয়ে গেল, হঠাৎই একজনের চিৎকার শোনা যায়। রাজিব চিৎকার করছে। সকলে তার চিৎকার শুনে ওদিকে গিয়ে দেখলো রানা একটা জলাশয়ের পাশে উপুড় করে পড়ে আছে। সবাই দেখে আতংকিত হয়ে উঠল। তারা রানাকে তাড়াতাড়ি করে তুলে নিয়ে জঙ্গলের বাইরে বেরিয়ে এল। সোজা গ্রামের ডাক্তার বাবুর কাছে নিয়ে গেল। ডাক্তার বাবু রানাকে দেখে বলল রানা আর নেই। সকলে বসে পড়ল অনেকের চোখ থেকে অশ্রু গড়িয়ে পড়তে লাগল। আকাশ জিজ্ঞেস করে, "ও কিভাবে মারা গেল ডাক্তার বাবু?" ডাক্তার বাবু বললেন সেটা তো এক্ষুনি বলা সম্ভব না। আরো কিছু সময় পরে বলতে পারবো। কিছু পরিক্ষা করতে হবে তারপর বোঝা যাবে। রানার বন্ধুরা সবাই এসে ওই মাঠের পাশে বসে থাকলো। কারো মুখে কোনো কথা নেই। সৈকত বলে উঠল, -- এই জঙ্গলে নিশ্চয় কিছু আছে! সুমন বলল, -- কি থাকবে বিভিন্ন জন্তু জানোয়ার ছাড়া। -- জন্তু জানোয়ারে মারলে তো রক্ত বের হতো। সাকিব বলল, এখানে নিশ্চয় কোনো অশরীরী আছে সকলে বলল হুম ঠিকই বলছিস। নিশ্চয় কোনো অশরীরী আছে এখানে। আকাশ বলল, অশরীরী বলে কিছু হয়না। নিশ্চয় অন্য কোনো কারণে রানার মৃত্যু হয়েছে। সৈকত বলল, "অশরীরী ছাড়া আর কে মারতে পারে? ওখানে তো আমরা কাউকেই দেখিনি।" সন্ধ্যা হয়ে এলে সকলে চলে যায়। শুধু আকাশ, সুমন, আর রাজিব বসে আছে। তাদের ভাবনায় কোনো অশরীরী নেই। তারা ভাবছে রানা কি করে মরতে পারে? সত্যিই কি কোনো অশরীরী মেরছে ওকে? না এটা মানা যায় না। অশরীরী বলে তো কিছু হয় না। তো তারা কিভাবে মারবে তাকে। আকাশ বলল, "আমাদের জানতে হবে রানার মৃত্যু কিভাবে হয়েছে?" সুমন বলল, "হুম দেখি কি করা যায়। এখন সন্ধ্যে হয়ে গেছে, বাড়ি চলে যাওয়াটা ভালো হবে। এখানটা নিরাপদ না হাজার হোক একটা সমস্যা তো হয়েছে এখানে। রাজিব বলল, "ঠিক বলেছিস। চল এখন যাই পরে দেখবো কি করা যায়!" আকাশরা সেদিনকার মতো যে যার বাড়ি চলে গেল। (চলবে ইনশাআল্লাহ) আমি এখানে নতুন। গল্প লিখছি ঠিকই কিন্তু তেমন কিছু জানি না। ভুল ত্রুটি হলে প্লিজ মাফ করবেন আর ধরিয়ে দিবেন।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৭৯ জন


এ জাতীয় গল্প

→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব২:-
→ জিজেসদের নিয়ে সারার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন[দ্বিতীয় পর্ব]
→ তোর নাম (পর্ব 7)
→ ইউনিকর্ন(পর্ব_২)
→ অবনীল(পর্ব-৬)
→ রহস্য(১)
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব১:-
→ শেষ বসন্ত-(প্রথম পর্ব)
→ সময়ে অসময়ে= পর্ব ২
→ জিজেসদের নিয়ে সারার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন[প্রথম পর্ব]

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...