গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

অসমাপ্ত অপেক্ষা

"স্মৃতির পাতা" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Md. Anar Hossain (০ পয়েন্ট)



খন্ডঃ প্রথম মুন ও তাসা এর সম্পর্কটা নেহাত পুরনো নয়।সেই ছোট কাল থেকে একে অপরকে দেখাদেখি, দুর থেকে একে অপরের দিকে দেখা সেই অাবেগঘণ চাহনি। অার তারপর সন্ধিলগ্নে দুজনের মনের ভেতর জন্ম নেওয়া ভালোবাসা।অাজো চলছে..... তবে সেটা একতরফা। শুধুই মুন।তাসার বিয়ে হয়েছে।স্বামি মস্তবড় অফিসার।গাড়ি বাড়িঘরের কমতি নেই। মুনও বড় হয়েছে। চাকরিও করছে। তবুও মুনের মনে বার বার যত অাঘাত, যত সৃতি তৈরি হচ্ছে তার সবটাই কিন্তু তাহার সৃতি। কে বুঝে সে একতরফার জ্বালা? কে বুঝে সেই সৃতি দহন? কে বুঝে সেই বিরহের বেদনা? এইতো সেদিন, দুজনের কত মাখামাখি। একজনের হাসি তো অন্য জনের মুখেও হসি।এক জনের কান্নায় অন্য জনের কান্না। সেই বৃষ্টর দিন, তার ফোন মুনের কাছে। তাহাঃতোমাকে খুব মনে পরছে! মুনঃঅার তো মাএ কয়েকটা দিন। তারপর তোমাকে বৌ করে সানায় বাজিয়ে অামার বাড়িতে নিয়ে অাসবো।একটু ধৈর্য ধর । তাহাঃ হুম তখন অামারা সবসময় একসাথে থাকবো।অার অনেক গল্প করবো। মুনঃঅাচ্ছা বাবা করবো! তাহাঃ সারারাত গল্প করবো কিন্তু বলে রাখলাম! মুনঃ সারারাত! তুমি জেগে থাকতে পারবে? মুনঃহুমমম খুব পারবো। তাহাঃবুকে নাও.. মুনঃ কিভাবে? তাহাঃ কেন? কল্পনায় নাও মুনঃ অাচ্ছা, কাছে অসো নিচ্ছি। তাহাঃ অাসছিতো... নাও মুনঃএইতো নিয়েছি। তাহাঃ তোমার বুকটাতে যত শান্তি অাছে সারা পৃথিবিতেও তত শান্তি নেই জানো।এ যেন অামার সবচেয়ে সুখের জায়গা..। এভাবে তো প্রায় রোজ কথোপকথন চলতো। কতদিন ধরে তাহার সেই বুকে অাসাকে সে মনে রাখবে? যতদিন বাঁচবে হয়তো ততদিনই... তবে এ অপেক্ষার কোন সিমানা হয়তো অার পাওয়া যাবে না। মুন প্রতি রাতে তাহার সাথে বসা,সেই ভাটিপাড়ার মৃগি নদীর পাড়ে অাজো যায়। অার হটাৎই অাকাশের দিকে তাকিয়ে নিজে নিজেই দীর্ঘশ্বাসে বলে উঠে, ইস......তখন যদি ওকে(তাহাকে) অাটকাতাম।ওর হাটতা যদি সেদিন জোরেশোরে ধরে ফেলতাম।। চলবে....


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৮৫ জন


এ জাতীয় গল্প

→ ~অপেক্ষা-হুমায়ূন আহমেদ(বুক রিভিউ)
→ মৃত্যু পুকুর: এক অসমাপ্ত রহস্য
→ বিবাহের অপেক্ষা
→ অসমাপ্ত ভালোবাসার গল্প
→ অপেক্ষা
→ অসমাপ্ত ভালোবাসা
→ অপেক্ষা
→ অপেক্ষার প্রহর
→ অসমাপ্ত গল্প

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...