গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান ... গল্পেরঝুড়ি একটি অনলাইন ভিত্তিক গল্প পড়ার সাইট হলেও বাস্তবে বই কিনে পড়ার ব্যাপারে উৎসাহ প্রদান করে... স্বয়ং জিজের স্বপ্নদ্রষ্টার নিজের বড় একটি লাইব্রেরী আছে... তাই জিজেতে নতুন ক্যাটেগরি খোলা হয়েছে বুক রিভিউ নামে ... এখানে আপনারা নতুন বই এর রিভিও দিয়ে বই প্রেমিক দের বই কিনতে উৎসাহিত করুন... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

ভাইরাল হবো !

"মজার গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান মেহেরাজ হাসনাইন (৩৬ পয়েন্ট)



পৃথিবীতে আসলাম মাত্র তিনদিন হলো , এরি মাঝে চারিদিকে দেখি একটাই নিউজ , দক্ষিণ আমেরিকায় নাকি মানুষ ইউএফও দেখসে । তার জন্য এখানকার যত প্রকার গোয়েন্দা সংস্থা আছে সবাই এক জোট হয়ে খুব ভালভাবে তদন্ত করছে। এতে নাসা নামের একটি দল সরাসরি গবেষণা করছে বলে খবরে জানতে পারলাম । এসব দেখেই আমার বাম পাশের হৃদপিন্ড ধুপ ধাপ করা শুরু gj। ওহ সরি সরি আমার তো হৃদপিন্ডই নাই gj । আমি মানুষের রূপ নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি তাই । যাতে গোয়েন্দার হাতে ধরা না পড়ি । কিন্তু একটা জিনিস বুঝলাম না , আমার স্পেসশিপ আমি এন্টার্কটিকে লুকিয়ে রেখেছিলাম , তাহলে এরা দক্ষিণ আমেরিকার নাম বলছে কেন gj । হয়তো আমাকে বোকা বানাবে । এহ, মানুষ অনেক বুদ্ধিমান , আমি জানি এটা । আমি যখন এদের বলবো আমি তো দক্ষিণ আমেরিকায় যায়নি , তখন-ই ফুস করে আমাকে ধরে ফেলবে gj । এই সুযোগ দিচ্ছিনা বাপু , আমি কিন্তু কম মেধাবী না , মাথা আমার ও কম হলেও একটু কিছু আছে gj । এসেছিলাম এখানকার মানুষ আর প্রজাতি সম্পর্কে শিখবো বলে , গত দুইদিন ভালো কাটছিল । কিন্তু আজ হটাৎ এ অবস্থা । এখন লুকিয়ে লুকিয়ে পালিয়ে যেতে হবে । কিন্তু আমার কাজের লিস্ট অনেক বড় । সব কাজ শেষ না করে পালিয়ে গেলেও মস্ত বড় ক্ষতিতে পড়বো gj । আমার পার্টনার কে খুব মিস করতেসি এমন বিপদে । আমার একমাত্র বেস্টফ্রেন্ড । অরে আমি এলিয়েন ডাকি । ওর সাথে যোগাযোগ করার চিন্তা করছিলাম , কিন্তু যোগাযোগ হবে না ও মঙ্গলে আছে এখন । অতটুক যোগাযোগ করতে গেলে নাসার নজরে পড়ে যাবো , তার উপর টাকা পয়সাও শেষ আমার । শেষে প্লেন করে কোনো মতে বাংলাদেশ নামের কোন একটা দেশে আসলাম । কেউ বুঝেও নাই আমি কে । আমিও মানুষ এর মত অভিনয় করতেছি , পুরাই ভিনগ্রহী শারুখ খানের মত । আমার নাম ও আবার শারুখ-এর একটা কেরেক্টার এর সাতে মিল । মেহ হু রাজ , হে হে হে , নাম তো শুনাই হোগা gj। ভাবতেসি কি খাবো , টাকা পয়সা ও শেষ gj । এয়ারপোর্ট এ আসি দেখতেসি এলিয়েন একটা রেস্টুরেন্টে বসে পিজ্জা খাচ্ছে । আমার তো দেখে চোখ টলমল করতেসে পুরা । তার উপর খিদাও লাগসে । দৌড়ে ওর কাছে গিয়ে বলি , ওই !!! কিরে তুই এখানে..?? তুই না বলসিলি মঙ্গলে দাঁড়াবি , পৃথিবীতে কোনো কাজ নাই.. !! gj গাল লাড়তে লাড়তে বললো আমাকে , হেহ !! আমার ইচ্ছা আমি যেখানে যাবো তর কি..? পকেটে টাকা আছে ?? আমার বিল টা দিই দে পারলে । (আমি) মা-মানে gj ?? আ-আ- আমি কেন টাকা দিব, তাছাড়া আমার একটা টাকাও নাই , তুরে দেখে ভাবলাম আজকের খাবার তুই দিবি gj । আচ্ছা ঠিকাছে দিবনি খাবার , কি খাবি খাই তাড়াতাড়ি ভাগ এখন থেকে ras । (আমি) আরেহ আরেহ এমন করিস না , অনেক বড় বিপদে পড়ছি , এখানকার সবাই আমার আইডেন্টিটি জেনে যাবে মনে হয় । কালকে নিউজ দেখলাম সবাই নাকি ইউএফও দেখসে । প্লিজ এখন আমাকে লুকানোর একটা প্লেস খুঁজে দে । প্লিচ ! প্লিচ ! আমি জানতাম এখানে তোর মাধ্যমে কোনো না কোনো গন্ডগোল হবে । আচ্ছা খাই আমার বাসায় যাবো । ওখানে সেইফ থাকবি । আর আমি কাজে বাইরে যাবো আজ , তুই বাসায় একা থাকবি । কাল আসি তুর জন্য একটা জায়গা খুঁজবো ঠিক আছে..?? (আমি) আমি জানতাম আমারে তুই হেল্প করবি gj । ঠিক আছে আজকে আমি তুর বাসায় থাকবো । আমারে ও ওর বাসার সামনে ড্রপ করে চলে গেছে । বাসায় ঢুকে আমি আমার কোমরের ফোটন-সোর্ড টা টেবিলে রেখে রেস্ট নিচ্ছিলাম। মধ্য রাতে উঠে দেখি ঘরে কিচ্ছু নাই খাইবার । ফ্রিজে খালি মিনারেল ওয়াটার আছে । এলিয়েন আমার থেকে অনেক বুদ্ধিমান । আমরা একই সাথে গ্যালাক্সির পর গ্যালাক্সিতে ভ্রমন করি । আমি পৃথিবীতে আসার আগে ও মঙ্গলে দাঁড়াবে বলেছিল এর পর ওর সাথে সোজা এখানেই দেখা হলো । বোধয় আমার আগে আসছে এখানে । বসে বসে এসব ভাবতেছিলাম আর মিনারেল ওয়াটার খাচ্ছিলাম , এমন সময় দরজায় ধুস ধুস আওয়াজ gj । আমি ভিতর থেকে ডাক দিলাম !!! কে ওখানে ...?? (বুঝতে পারতেছি তিন চারজন কথা বলতেসে ফিসফিস করে ) একজনের জবাব আসলো , এক্ষুনি দরজা খুলুন , লাস্ট বারের মত বলছি নাইলে কপালে দুঃখ আছে । আমি দরজা খুলতেই দেখি তিনচারজন আমার দিকে বন্ধুক তাক করে আছে gj । আর এদের পিছনে এলিয়েন দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে আমাকে দাঁত দেখিয়ে হাসতেছে gj । দেখে বুঝতেই পারতেছি এরা স্পেশাল ফোর্স gj । চিল্লানি দিয়ে এলিয়েনরে বললাম , ওই কি করলি এটা ..? আমার আইডেন্টিটি কেন বলে দিলি gj। দাঁত দেখিয়ে জবাব দিলো , তুরে ধরিয়ে দিয়ে আমি এখন অনেক টাকা পাইসি gj । এখন থেকে অনেক অনেক ফেমাস আর ভাইরাল হয়ে যাবো আমি gj। টাটা বাই বাই.. ras আমি তো শুনা মাত্রই অজ্ঞান । ( বিদ্রঃ দক্ষিণ আমেরিকায় ইউএফও টা আমার বেস্টু এলিয়েন এর ই ছিল । ও জানে আমি বুঝতে পারবো না এজন্য আমাকে জব্দ করার প্লেন করলো শুধু ভাইরাল হওয়ার জন্য gj )


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৪৮৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ অবাক করা ভুমিকম্পের অভিজ্ঞতা !
→ যখন প্রকৃতি হয়ে যায় শিক্ষক!!!
→ জান্নাতের সঙ্গী সাথী ও হুর!!!!!
→ মুখে বসন্তের দাগ! দূর করতে ব্যবহার করুন এগুলো
→ ভাগ্যই কি স্বপ্ন!
→ শিরোনাম আপনিই দেন!
→ ~জিজেতে আমার অত্যন্ত প্রিয় ১০ জন!
→ এ কী অত্যাচার!
→ ~জিজেস'রা এখন আমার বাসায়!
→ "এখনও আমি অপেখা করছি তোমার জন্য!!!!" পর্ব-২

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...