গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

গল্পের নাম? জানি না।:p

"ইসলামিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান M.H.H.RONI (২৩৬ পয়েন্ট)



মহান আল্লাহ তায়ালা মানুষ এবং জ্বিন জাতিকে তার ইবাদাতের জন্যে সৃষ্টি করেছেন।শৃঙ্খলিত পৃথিবীতে এসে মানুষ যা মনে চায় তাই করছে।মহান আল্লাহ তায়ালা অতীব দয়ালু বলে তিনি বান্ধাকে দুনিয়াতে শাস্তি দেন না।কিন্তুু মানুষের বিমুখতা যখন চরমে চলে যায় তখন মহান আল্লাহ তায়ালা তাদের ধ্বংস করে দেন। এমন একটি ঘটনাই আজ আমি আপনাদের বলব। ইতালিরই একসময়কার একটি শহরের নাম ছিল পম্পেই নগরী। অর্থ আর প্রাচুর্যে ভরপুর এই পম্পেই নগরী তখনকার রোম সম্রাজ্যর অভিজাত শ্রেণির আকর্ষনীয় জায়গা ছিল এই নগরী। স্হানে স্হানে ছিল পতিতালয় আর ছেলে- মেয়েদের অবাদ মেলামেশা। এইসব কারনে তখনকার সময়ে গুরুত্বপূর্ন ছিল এই নগরী।অথিতির জন্য বাবা তার নিজ ছেলে-মেয়েদের দিয়েও করাত ঐসব নৃকৃষ্ট কাজ। এভাবেই চলতে থাকে সময়।এমনি একদিন দুপুরে পম্পেই নগরীর বুকে জ্বলে উঠে বিশাল এক আগ্নেগিরি। মূহূর্তের মধ্যে পৃথিবীর মানচিএ থেকে হারিয়ে যায় পম্পেই নগরী এবং সেখানে থাকা অসভ্য বর্বর জাতিগুলো। এখান থেকে আমরা কী বুঝলাম? যখনই মানুষের বিমুখতা চরমে পৌছে যায় তখন আল্লাহ তায়ালা দুনিয়াতেই তাদের ভয়ানক শাস্তি প্রধান করেন। সেই আল্লাহ এখনো আছেন। সেই আল্লাহ চাইলেই আবার সূরা ফিল এর পুনরাবৃওি করতে পারেন। আজকে আমাদের বিমুখতা চরমে পৌছে গেছে।ভুলে গিয়েছি আমরা মুসলীম। ভুলে গিয়েছি এ শির একমাএ আল্লাহ ছাড়া আর কারও সামনে নত হওয়ার নয়। ভুলে গিয়েছি আমরা হলাম উওাল জলপ্রবাত সেখানে সামান্য নুড়ি পাথর এই জলপ্রবাতের পথ রোধ করতে পারবে না। আজকে আমাদের কোন অত্যাধুনিক অস্এও নেই আবার বিশ্বকাপানো সেই ইমানও নেই। যদি সেই ইমান আজও আমাদের থাকত তবে আজকে আর মুসলীমদের কাফেরদের নীচে পরে থাকতে হতো না। সেই ইমান যেই ইমান দিয়ে হযরত আলী রা. একাই খাইবারের দূর্গ জয় করে বেরিয়ে এসেছিল বীরদর্পে। সেই ইমান যেই ইমানের বলে খালিদ বিন ওয়ালিদ রা. জীবনের একটি যুদ্ধেও পরাজিত হয়নি। সেই ইমান যেই ইমানের জন্যে হযরত উমর রা. ভয়ে ইবলিশ পর্যন্ত তার ব্যবহার করা পথ দিয়ে ৪০ দিন পর্যন্ত যেত না। সেই ইমান যেই ইমান নিয়ে পৃথিবীর ইতিহাসে আরেক ইতিহাস সূচনা করেন সালাহউদ্দীন আয়ুবি। সেই ইমান যে ইমানের জোরে ঐতিহাসিক রোম সম্রাজ্য হয়েছিল পদ-ধুলিত। আজকে কোথায় সেই ইমান??......... ....................................সমাপ্ত.................... বি.দ্র:: ভুল ক্রটিগুলো ক্ষমাপ্রার্থী।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৭৬৪ জন


এ জাতীয় গল্প

→ বিলাসী গল্পের রিভিউ
→ গল্পের কোনো নাম নেই
→ জানি না দেখা হবে কি না
→ ♥গল্পেরঝুরিতে কিছু বাণী♥
→ ব্যাখা খুঁজে পেলাম এই গল্পের!
→ জানি দেখা হবে-২১
→ জানি দেখা হবে-১৯
→ জানি দেখা হবে-১৮
→ জানি দেখা হবে-১৭

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...