গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

[বুক রিভিউ] অভিনীত জীবন

"বুক রিভিউ " বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ☠Sajib Babu⚠ (৩২ পয়েন্ট)



উপন্যাস: অভিনীত জীবন  লেখক: ইমরান বিন বশীর প্রকাশনী: বইঘর [বেশ্যায় ছেয়ে গেছে ঢাকা শহর। রাস্তার মোড়ে মোড়ে, বাঁকে বাঁকে, সিনেমা হলের সামনে বোরকা পরা ভ্যানিটি ব্যাগ হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে কিশোরী, তরুণীরা। গ্রাম গঞ্জ ও প্রত্যন্ত অঞ্চল হতে জীবিকার টানে ছুটে আসা কারো মা, কারো বোন, কারো স্ত্রী এরা।  ল্যাম্পোস্টের হলদে বাতির নিচে ওদের ফ্যাকাসে মুখগুলো বড় অদ্ভুত লাগে। কোঠরাগত চোখের কূপ হতে উঁঁকিঝুকি মারে ওদের লোলুপ চোখ। খদ্দেরের লালসা....] দৃশ্যপট : খালেদ মাদরাসার ছেলে। নিরেট সত্যবাদী। মিথ্যে, ছলনা, প্রতারণা, অভিনয়, কোনো মন্দ স্বভাবই তার মাঝে নেই। মাদরাসা তার সন্তানকে যেভাবে গড়ে তুলতে চায় সে ওভাবেই গড়ে উঠেছে। তবে চাঁদের কলঙ্কের ন্যায় তারও যাবতীয় সৎ গুণাবলী থাকা সত্ত্বেও একটা কলঙ্ক রয়ে গেছে বাল্যকালের নিরঙ্কুশ মনে তিলে তিলে গড়ে ওঠা একটি মেয়ের প্রতি তীব্র ভালবাসা। সেই ভালবাসার নাম সুজানা। বয়স বাড়ার সাথে সাথে এই ভালবাসাটিই তীব্র থেকে তীব্রতর হয়ে ওঠে। ফলে জীবনে নেমে আসে শত কালো অধ্যায়। সুজানার সাথে যখন খালেদের বিয়ে হয় তখন তারা দুজনই কিশোর কিশোরী। বিয়ে পূর্ববর্তী প্রেম ভালবাসা অবৈধ বলে কাজী অফিসে বিয়ে করে তারা। বিয়ের পরপরই স্ত্রী সুজানা সম্পর্কে খালেদ জানতে পারে কিছু অপ্রত্যাশিত সত্য। রাগে, অভিমানে সে চলে যায় সুজানার জীবন থেকে। আর খোঁজ নেয় না। ক্রোধ একটা ঝড়ের মতো। মুহূর্তেই সব তছনছ করে দেয়। রাগ কমে গেলে সব ঠাণ্ডা, শীতল। ক্রোধান্বিত মুহূর্তের সেইসব সিদ্ধান্ত এবং কর্মগুলো আক্ষেপ হয়ে দেখা দেয়। খালেদের রাগ কমে গেলে যখন ভাবে সুজানার কাছে যাবে, তখন সে জানতে পারে তার জীবন অনিশ্চিত। মরণব্যাধি তার। ক্যান্সার। জীবন থেকে পালিয়ে যায় অজ্ঞাত স্থানে আশ্রয় নেয় সে। খোকন সাহেবের বাড়ি। সেখানে পরিচয় হয় খোকন সাহেবের অনিন্দ সুন্দরী মেয়ে ফাতেমীর সঙ্গে। খালেদকে তার অদ্ভুত লাগে। কথা হয়। খালেদের জীবনের পুরো গল্পটি শোনে। সে তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে নিশ্চিত হয় খালেদের ক্যান্সার হওয়ার ব্যাপারটি ভুল রিপোর্ট ছিল। সে রাতেই খালেদ গোপনে পালিয়ে যায় ফাতেমীর বাড়ি থেকে। সুজানার কাছে। যে তার একমাত্র ভালবাসা। স্ত্রী। বিয়ের পর যাকে একটি স্পর্শও করেনি। এক নলা খাবারও মুখে তুলে দেয়নি। দিতে পারেনি। কিন্তু যাত্রাবড়ী অবধি হেঁটে আসার পর ক্লান্ত হয়ে ফ্লাইওভারের নিচে শুয়ে যায় সে। সকালে ঘুম ভাঙলে দেখে তার সামনের দেয়ালে অর্ধনগ্ন সুজানার ছবি। আপন চোখকে বিশ্বাস হয় না কিছুতেই। কাছে গিয়ে দেখে। এ সত্যি সুজানাই। খালেদের পায়ের তলের পৃথিবী কেঁপে ওঠে। যে মেয়েকে পুকুরে গোসল করতে দিত না, পুকুরের অবলা মাছেদের কুদৃষ্টি পড়বে বলে। বদ্ধঘরে কাঁথামুড়ি দিয়ে ঘুমোতে বলত, ঘরের টিকটিকি কিংবা অন্যান্য ঘরোয়া প্রাণীগুলোর কুনজর থেকে বাঁচার জন্য। আজ সেই সুজানা ফিল্মস্টার। বিশ্বের সামনে অর্ধনগ্ন। খালেদ সুজানার কাছে যায়। বোঝায়। ফিরে আসবার কথা বলে। কিন্তু সুজানা তখন ঝলমল পৃথিবীতে। সেখানে দাঁড়িয়ে খালেদকে বড় তুচ্ছ মনে হয়। কিছুতেই সে ওই নগ্ন অথচ রঙিন পৃথিবী ছেড়ে আসবে না খালেদের পবিত্র অথচ মলিন পৃথিবীতে। গল্পের এই সহজ সরল ছেলেটির হাত মুষ্টিবদ্ধ হয়ে ওঠে। প্রেমিক থেকে হয়ে ওঠে দুর্ধর্ষ যোদ্ধা। তার যুদ্ধ এই সমাজ, রাষ্ট্র এবং রাষ্ট্রব্যবস্থার বিরুদ্ধে। যেখানে হাজার বছর ধরে যা নিন্দিত, নগ্নতা, তাকে বানানো হয়েছে সম্মান। যেখানে ন্যায়কে দুর্বলতা আর অন্যায়কে মাথার মুকুট বানানো হয়েছে। শুরু হয় যুদ্ধ। এ যুদ্ধের প্রতিপক্ষ এই নগ্ন সমাজ, সমাজের মানুষ। বুদ্ধিজীবী। নারীদেহকে পণ্য বানিয়ে যারা মুখে মানবতার কথা বলে তারা। বইটি পড়ে শুরুর দিকে একটা কারনে মন খারাপ হয়েছিল।কিন্তু বই পড়া শেষে মন ভারাক্রান্ত হয়ে পড়েছে ভিন্ন কারনে।বইয়ের মধ্যে সমাজের তিক্ত কিছু চরিত্র তুলে ধরার মাধ্যমে পুরো সমাজটার চিত্র ফুটিয়ে তুলা হয়েছে লেখকের অসাধারণ লেখনী দ্বারা। এমন বিপ্লবী প্রেমের উপাখ্যান বোধহয় বাংলা সাহিত্যে খুব কম আছে। [বইটি কোথায় কোথায় পাওয়া যাবে সেটা সঠিক বলতে পারবোনা তবে কেউ যদি কিনতে ইচ্ছুক হোন তো আমাকে জানাতে পারেন। লেখকের অটোগ্রাফসহ সল্প মূল্যে কুরিয়ারে পাঠানোর চেষ্টা করবো ইনশাল্লাহ ]


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ১৮২ জন


এ জাতীয় গল্প

→ কাকপক্ষী জীবন
→ ছাত্রজীবনের হাসির অভিঙ্গতা
→ জীবনের বাস্তব চিত্র
→ হযরত ঈসা (আঃ) এর জীবনী
→ মুসলিম জাহানের চতুর্থ খলীফা হযরত আলী (রাঃ)-এর জীবনী
→ সীরাহ কেন পড়া উচিৎ? রাসূল (সা:) এর জীবনী বৈজ্ঞানিক উপায়ে সংরক্ষিত হয়েছে – শেষ পর্ব
→ সীরাহ কেন পড়া উচিৎ? রাসূল (সাঃ) জীবনীর শিক্ষা – পঞ্চম পর্ব
→ সীরাহ কেন পড়া উচিৎ? রাসূল (সাঃ) – রাসূল (সাঃ) এর জীবনীর বৈশিষ্ট্যাবলী- তৃতীয় পর্ব
→ জীবনের স্বচ্ছ ফাইল
→ জীবন

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...