গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app

যাদের গল্পের ঝুরিতে লগিন করতে সমস্যা হচ্ছে তারা মেগাবাইট দিয়ে তারপর লগিন করুন.. ফ্রিবেসিক থেকে এই সমস্যা করছে.. ফ্রিবেসিক এ্যাপ দিয়ে এবং মেগাবাইট দিয়ে একবার লগিন করলে পরবর্তিতে মেগাবাইট ছাড়াও ব্যাবহার করতে পারবেন.. তাই প্রথমে মেগাবাইট দিয়ে আগে লগিন করে নিন..

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

সন্দেহ কর?

"সত্য ঘটনা" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Mohammad Najim (০ পয়েন্ট)



রাত ৩ টার দিকে প্রেমিকার ফোন ওয়েটিং।বার বার ফোন দেওয়ার পর কল ধরতেই বললাম ওয়েটিং কেন? তার উত্তর "নাজিম তুমি কি আমাকে সন্দেহ করো"? আমি বললাম আরে না,সন্দেহ কেন করব! সমস্যা থাকতেই পারে। এইখানে সন্দেহের কি আছে?আবার পরশু দেখলাম বাইকে করে একটা ছেলে কলেজে নিয়ে আসছে,জিজ্ঞাস করলাম এই ছেলেটা কে?বলল "নাজিম তুমি কি আমাকে সন্দেহ কর!আরে না তোমার মামাতো/কাকাতো ভাই থাকতেই পারে,আমি কেন অযথা সন্দেহ করব? কয়েকদিন আগে যমুনাতে দেখলাম ছিঁড়াফাটা প্যান্ট পরা এক ছেলের হাত ধরে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এগিয়ে গিয়ে বললাম। এই ছেলে কে? সে উত্তর দিলো, নাজিম তুমি কি আমাকে সন্দেহ করো? আমি বললাম আরে না। ছোট ভাই ব্রাদার থাকতেই পারে এইখানে সন্দেহের কি আছে। একদিন কাছের খুব ছোটো ভাই কল দিয়ে বললো, ভাই ভাবীর তো বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে।আপনি তো ছ্যাকা খাইলেন। সাথে সাথেই প্রেমিকারে কল দিয়ে কইলাম ঘটনা কি সত্য? সে বলে "দেখো বিয়েটা আমার বাবার জন্য করা। বাবার হার্টের অসুখ। তাই বিয়েটা বাধ্য হয়েই করছি। কিন্তু তুমি তো জানো আমিতো তোমাকেই ভালবাসি। কিছুদিন পরে আমিতো তোমার কাছেই ফিরে আসবো"। আমি আমতা আমতা করে বললাম "কিন্তু"? সে উত্তর দিলো দেখো" আমি ভার্জিন। তোমার কাছে ভার্জিন হিসাবেই ফিরে আসবো"। আমি বললাম "কিন্তু"। সে বললো " কিন্তু কি? তুমি কি আমাকে সন্দেহ করো? আমি বললাম আরে না না। এইখানে সন্দেহের কি আছে। সমস্যা হতেই পারে,তুমিতো আর নিজের ইচ্ছেয় করছো না। পার্কে প্রেমিকাকে ছোটো একটা বাচ্চা কোলে নিয়ে হাঁটতে দেখলাম। এগিয়ে গিয়ে বললাম এই বাচ্চা কে? সেই উত্তর দিলো " এটা আমারই বাচ্চা। কিছুদিন আগেই হয়েছে। আমি আমতা আমতা করে বললাম কিন্তু তুমি তো বলেছিলে। আমি বলার আগেই সে উত্তর দিলো দেখো নাজিম হঠাৎ কি করে যেন কি হয়ে গেলো আমি আসলে বুঝতে পারিনি। বিশ্বাস করো আর কখনো এমন হবে না। এটাই শেষ বাচ্চা।তুমি তো জানো আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি। তুমি আমার জন্য অপেক্ষা কর করো আমি ফিরে আসবো। আমি কিছু বলতে যাবো এর আগেই ও বলে উঠলো "তুমি কি আমাকে সন্দেহ করো"? একটা স্কুল দিয়েছি। বাচ্চাদের পড়াই। পড়াতে ভালোই লাগে। একদিন সেখানে আমার প্রেমিকা এসে উপস্থিত। সাথে ৪-৫ টা বাচ্চা। দেখলেই বোঝা যায় পিঠেপিঠি বাচ্চা এসব। কিছু বলতে যাবো এর আগেই সে বলে উঠলো এসব বাচ্চা তার। স্বামী অশিক্ষিত তাই পরিবার পরিকল্পনা সম্পর্কে কোনো জ্ঞান নেই। যার ফলে এই দশা। আমি কিছু বলতে যাবো তার আগেই সে বলে উঠলো জানি নাজিম জানি তুমি কি বলতে চাও।কিন্তু বিশ্বাস করো আমি চেষ্টা করছি। আর কিছুদিনের মধ্যেই আমি তোমার কাছে চলে আসবো। এখন আমার বুড়া বয়স। কোনো রকমে লাঠি নিয়ে পথচলি। বাবা মা ভাই বোন দুনিয়াতে কেউ বেঁচে নেই। সেই প্রেমিকার আশায় এখনো বিয়ে করিনি। দেখাশুনা করার কোনো মানুষ আমার কাছে নাই। পাশের বাড়ির মতিনের ছেলে রহমান কিছুদিন থেকে বলছে নাজিম আঙ্কেল এই বয়সে একটা নার্সের ব্যবস্থা করে দেই। অসুখ-বিসুখে আপনার সেবাযত্ন করবে। কদিন থেকে জ্বরে ভুগছি। দেখবার মতো কেউ নেই। রহমান একটা মেয়ে নার্সের ব্যবস্থা করে দিয়েছে। সেই সেবাযত্ন করছে টুকটাক। মেয়েটা বেশ সুন্দর। যৌবন থাকলে বিয়ে করতাম। সে খুব সেবাযত্ন করছে আমার। এই যে এখন তুলে খাওয়াচ্ছে। এমন সময় ঘরে এক বৃদ্ধা মহিলার প্রবেশ। জীবনে দেখছি কিনা মনে পড়ছে না। নার্সকে বললাম তুমি কন্টিনিউ করো। এমন সময় সেই বৃদ্ধা এগিয়ে এসে বললো " নাজিম এই ছিল তোমার মনে? তুমি আমার জন্য অপেক্ষা করতে পারলা না? অবশেষে তুমি কিনা,মেয়ের বয়সী একটা মেয়েকে!ছিঃ নাজিম ছিঃ আমার ভাবতে কষ্ট হচ্ছে তোমার ভালবাসা এতটাই নগন্য যে আমার জন্য আর কটা দিন অপেক্ষা করতে পারলে না? কন্ঠ শুনে বুঝলাম আরে এটা তো আমার সেই প্রেমিকা। কিছু বলতে যাবো বরাবরের মতো সেই আগে বললো " এই ছিল তোমার মনে। এই জন্য ছেলেদের বিশ্বাস করতে নেই। আমি ভুল করেছি তোমার মতো ছেলেকে ভালবেসে। তোমাকে আমি ঘৃণা করি। এবার আমি বললাম তুমিও তো বলেছিলে আমার কাছে সেই কবে ভার্জিন হয়ে ফিরে আসবে। কিন্তু এখন তো আমার কিছুই করার নেই। সে বলে উঠলো " আমিতো এখনো ভার্জিন রিফাত"। মাথা ঘুরতে লাগলো, মনে হয় প্রেসার বেড়ে যাচ্ছে। সাইন্সের সব থিউরি উল্টে দিয়ে পাঁচটা বাচ্চার মা হওয়ার পরেও আমার প্রেমিকা নিজেকে ভার্জিন দাবি করে। কিছু বলতে যাবো এর আগেই সে বরাবরের মতো বলে উঠলো " নাজিম তুমি আমাকে সন্দেহ করো? একটা গল্প অবলম্বন এ কিছু সংযোজন করে লিখছি আশা করি উপভোগ করছেন!


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৯৭২ জন


এ জাতীয় গল্প

→ "সন্দেহ"
→ সন্দেহ
→ সন্দেহের রাজকুমারী
→ সন্দেহ ও ভালোবাসা
→ সন্দেহের রাজকুমারী
→ গন্ধটা সন্দেহজনক
→ পাগলির সন্দেহ
→ ভালোবাসো? – কোন সন্দেহ আছে?
→ ছোঁয়ামনি কী কর??????

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...