গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যাদের গল্পের ঝুরিতে লগিন করতে সমস্যা হচ্ছে তারা মেগাবাইট দিয়ে তারপর লগিন করুন.. ফ্রিবেসিক থেকে এই সমস্যা করছে.. ফ্রিবেসিক এ্যাপ দিয়ে এবং মেগাবাইট দিয়ে একবার লগিন করলে পরবর্তিতে মেগাবাইট ছাড়াও ব্যাবহার করতে পারবেন.. তাই প্রথমে মেগাবাইট দিয়ে আগে লগিন করে নিন..

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

মানুষের আকৃতিতে আল্লাহর পরিচয়

"ইসলামিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ধূসর মরুভূমি[ মফিজুল ] (৩০৭ পয়েন্ট)



আসসালামু আলাইকুম।।। গল্পঃ মানুষের সুন্দর আকৃতিতে আল্লাহর পরিচয়। লেখকঃ মাওলানা নূরুল হক আজমী এক নাস্তিক ডাক্তার আমায় প্রশ্ন করল,,আপনারা মুসলিমরা বলেন আল্লাহর সৃষ্টির মাঝেই তাঁর পরিচয় রয়েছে। আমি বললাম, হুম তা তো অবশ্যই। ওনি বললেন,,আপনারা আরও বলেন আল্লাহ মানুষও সৃষ্টি করেছে।আমি বললাম,হ্যা ঠিক তিনি তো বিশ্বজগতের স্রস্টা। পৃথিবীতে যা আছে সবই তিনি সৃষ্টি করেছেন। কেন আপনার কি কোন সন্দেহ আছে।ওনি বললেন,,মানুষই যদি তিনি সৃষ্টি করেন৷ তাহলে মানুষের মাঝে বা মানুষের আকৃতিতে আল্লাহর পরিচয় কোথায়? প্রমান সহ দেখাতে পারবেন?? আমি মুচকি হেসে বললাম,,ওহ এই প্রশ্ন ❓ তাহলে ঠিক আছে শুনুন----আল্লাহ মানুষকে তার নিজের আকৃতিতে চিন্তা ও গবেষণা করতে বলেন।তোমার ধোকায় পড়ে থাকা সাজে না, নিজের মধ্যে চিন্তা-গবেষণা করতে থাক।আল্লাহ তায়ালা বলে, অর্থাৎ,"হে বিশ্বের মানবজাতি!কিসে তোমাদেরকে সে পরাক্রমশালী পালনকর্তা সম্পর্কে বিভ্রান্ত করে রেখেছে,যিনি সৃষ্টি করেছেন সুন্দর ও সুষম করে।যিনি তাঁর অনুগ্রহে তোমাদেরকে সুন্দর আকৃতি দ্বারা গঠন করেছেন।"(সুরা ইনফিতার,আয়াত ৬-৮)।এখানে বিবেচ্য বিষয় হলো মানুষ যখন মাতৃগর্ভে ছিল তখন আল্লাহ নিজ দয়ায় সুন্দর আকৃতি দিয়ে তাকে সৃষ্টি করেছেন। যে অঙ্গ যেখানে স্থাপন করা দরকার সেখানেই স্থাপন করেছেন।হাতের জায়গায় পা পায়ের জায়গায় হাত তিনি দেননি।নাক মুখের ওপর স্থাপন না করে ঘাড়ে স্থাপন করেন নি,যাতে খানা খাওয়ার সময় খাদ্য মুখে না দিয়ে আগে নাকের কাছে যাচাইয়ের জন্য নিতে হয় যে,এটা ভালো কিনা বলে দাও,আল্লাহ নিজ মহিমায় যেখানে যা দরকার সব সৃষ্টি করেছেন। কোন বিজ্ঞানী মাতৃগর্ভে আল্লাহর নিকট ফরিয়াদ করেন নি যে,আমাকে এভাবে সৃষ্টি করুন।তবুও আল্লাহ নিজ দয়ায় যথাস্থানে শোভনীয় আকারে অঙ্গ সংযোজন করে দিয়েছেন। আল্লাহ প্রত্যেক মানুষকে নিজ দেহে গবেষণা করে তাঁর অস্তিত্ব আবিস্কার এর জন্য বলেছেন,,"তোমাদের সাড়ে তিন হাত দেহে গবেষণা করে দেখ,আমি আল্লাহ সেখানেও বিদ্যমান।"(সুরা যারিয়াত,আয়াত -২১)।বাস্তব কথা হলো- একটি মানুষ যদি তার দেহ নিয়ে চিন্তা করে দেখে তাহলে আল্লাহকে পাওয়ার জন্য তার কোন প্রমাণের প্রয়োজন পড়ে না।মানুষের যে অঙ্গগুলো আল্লাহ তৈরী করে দিয়েছেন এমন কোন বিজ্ঞানী কি পৃথিবীতে জজম্ম নিয়েছে যে,এর একটি অঙ্গ তৈরী করতে পারবে?।পৃথিবীর সকল বিজ্ঞানীদের প্রতি আমাদের চ্যালেঞ্জ রইল।এর মধ্যে যারা পরপারে চলে গেছেন তারা তো পারেন নি আর যারা জীবিত আছেন আপনারা অনেক কিছু আবিস্কারের দাবী করছেন। মানুষের একটি হাত-পা আবিষ্কার করে দেখান যে, আমরও তৈরি করতে পারি।দেখা যাক আপনাদের দৌড় কতদূর। আমাদের দেশে কিছু জ্ঞানপাপী আছে যারা আল্লাহ কে স্বীকার করতে চায় না।। এর মূল কারণ হল তারা পশ্চাত্য শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছে।। পশ্চাত্যের বিজ্ঞানীরা যা বলেন সেই জ্ঞান তাদের মধ্যে বদ্ধ মূল হয়ে আছে। তারা পশ্চাত্যের জ্ঞান দ্বারা যখন কোরআনের দিকে দৃষ্টিপাত করল তখন বলতে লাগল,কোরআনের আদেশ নিষেধ প্রগতি বিরোধী।তাই আগে তাদের বিকৃত রুচির চিকিৎসা করা দরকার। কোরআনের চিকিৎসা দ্বারা তাদের মন-মগজ ধোলাই করলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।আল্লাহ কোরআনে বলেন,"বরকতময় আল্লাহ যিনি কতইনা সুন্দর সৃষ্টিকারী।"(সুরা মু'মিনূন,আয়াত ১৪)।বর্ণিত আয়াতে আল্লাহ পাক নিজ মহিমায় সুন্দর করে মানবকূল সৃষ্টি করেছেন বলে দাবী করছেন।সৃষ্টির সেরা মানুষই আজ আল্লাহকে স্বীকার করে না।আল্লাহ যদি না-ই থাকতেন তাহলপ তিনি এই দাবী কীভাবে করেছেন?কারো যদি অস্তিত্বই না থাকে তাহলেে কি সে অস্তিত্বের দাবী করতে পারে? যেমন- আলাবার্ট আইনস্টাইনের জম্মই যদি না হতো তাহলে কি সে নিজেকে বিজ্ঞানী বলে দাবী করতে পারত?আল্লাহ তায়ালা বলেন,"আমি তাদেরকে আমার নির্দেশনাবলী দেখাব পৃথিবীর দিগন্তে এবং তাদের নিজেদের মাঝে,ফলে তাদের কাছে ফুটে উঠবে যে,এ কোরআন সত্য।"(সুরা হা-মীম সাজদাহ,আয়াত ৫৩)।অর্থাৎ নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলে যা কিছু আছে মানুষের এ সাড়ে তিন হাত বডিতে তার নমুনা বিদ্যমান।নিজপর মাঝে চিন্তা করলেই আল্লাহর অস্তিত্ব পেয়ে যাবে। অতএব,আমাদের যে সত্তা এত সুন্দর করে সৃষ্টি করেছেন তিনিই আল্লাহ। হে অবিশ্বাসী বিজ্ঞানীগণ! আপনাদেরকে চ্যালেঞ্জ করছি আল্লাহর দেয়া চোখের মতো একটি চোখ তৈরি করে দেখান। কি পারবেন তৈরী করতে? পারবেন না।তাহলে আল্লাহকে মানতে আপনাদের দ্বিধা কোথায়। আল্লাহ আপনাদের জ্ঞান দিয়েছেন। এই জ্ঞান আপনারা কিসে কাজে লাগিয়েছেন??আপনারা এই জ্ঞান দিয়ে আল্লাহকে ভূল প্রমানিত করতপ চান। আপনারা মনে করেন আপনাদের মাথায় যে জ্ঞান রয়েছে তা কতই না বিশাল।। আচ্ছা মানলাম আপনাদের জ্ঞান বিশাল বা অনেক।এই বিশাল জ্ঞান দিয়ে যদি আল্লাহকে ভূল প্রমানিত করতে চান, আল্লাহকে মানতপ চান না।তাহলে এই বিশাল জ্ঞান যে দিল তাঁর জ্ঞান কতটুকু বলতপ পারেন??মানুষের ব্রেইন তো আর আপনা আপনি তৈরী হয় নি।কেউ তো নিশ্চয়ই তৈরী করেছে।কেন বিজ্ঞানী তো আর জ্ঞানহীন মানুষ কে জ্ঞান দান করতে পারেনা।তাই বলছি আল্লাহকে বিশ্বাস করুন।নিজের মাঝেই না হয় আল্লাহকে খুজুন।।এই কথাগুলো শেষ করতেই সেই ডাক্তার আর কিছুই বলতে পারলনা।কিছুক্ষন বসে নিজপই মাথা নিচু করে চলে গেল।।আর আমি মনে মনে বলতে লাগলাম, হায় রে নাস্তিকগণ,,আপনাদের যে আর কত প্রশ্নের উওর দিতে হবে আর যে কত প্রামাণ দেখাতে হবে তা একমাত্র আল্লাহই যানেন।।আল্লাহ যেন আপনাদেরকে সঠিক বুঝার তৌফিক দান করেন আমীন। ★(সমাপ্ত)★


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৩২৮ জন


এ জাতীয় গল্প

→ ☕ক্যাঙারুর পরিচয়☕
→ ~দুনিয়ার সবচেয়ে দামী জিনিস::আল্লাহর ৯৯ নাম।
→ আল্লাহর খুজে....................
→ প্রথিবীটা কি শুধু মানুষের?
→ মুসলমানের পরিচয়
→ ★Samir★ আমার পরিচয়☺
→ জিজেতে আমার পরিচয়
→ "আল্লাহর ভয়ে"
→ মানুষের জন্য মানুষ
→ মেঘ-বৃষ্টিতে আল্লাহর পরিচয়

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...