গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

মুসলীমদের যদি ধর্ম এক হয় তাহলে এতো মাজাহাব কেন হবে??

"ইসলামিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান M.H.H.RONI (৪১৮ পয়েন্ট)



আমি হাটছি রাস্তা দিয়ে।মাথার উপর সূর্যের তেমন তাপও নেই।এমন সময় হঠাৎ শুরু হলো বৃষ্টি।আমি তো অবাক, আকাশে তেমন মেঘও নেই তবুও বৃষ্টি হচ্ছে।পরক্ষনেই আমার মনে হলো মহান আল্লাহ তায়ালার সেই আয়াতটি মহান আল্লাহ কোন কিছুকে হও বলার সাথে সাথেই তা হয়ে যায়।তাই এটা কোন বিষয় নয়।বৃষ্টির হাত থেকে রক্ষা পেতে সামনেই এক জায়গায় ডুকে পরলাম।গিয়ে দেখলাম অচেনা এক ভদ্রলোক বসে আছে।হাতে ঘড়ি বয়স এিশ কী পয়এিশই হবে।আজকাল ঘড়ি দেওয়া এক ধরনের ফ্যাশন হয়ে দাড়িয়েছে।অনেকে তাই নষ্ট ঘড়ি হাতে দিয়ে থাকে।ভদ্র লোকের ঘড়িটিও ঠিকঠাক চলছে কিনা দেখার জন্য আমি তার পাশ ঘেষেই বসলাম।আর পর্যবেক্ষন করলাম।নাহ গড়ি তো ঠিকই চলছে।এমন সময় ভদ্রলোক হাসিমাখানো মুখে বলল হেই কী দেখছ তুমি অমন করে? আমি আমতা আমতা করে বললাম না কিছু না।তা কোথায় যাচ্ছেন আপনি? আগে তো কখনও দেখি নি আপনাকে? ভদ্রলোক বলল হুম গিয়েছিলাম ময়মনসিংহের একটা কনফারেন্সে।আমি বললাম ওহ আচ্ছা। ভদ্র লোক বলল আচ্ছা কী কর তুমি? আমি বললাম জি পড়ালেখা করি কলেজে। ভদ্রলোক বলল ভালো চালিয়ে যাও।ভদ্রলোকের সাথে এখন প্রায়ই আমার বন্ধুত্ব হয়েই গিয়েছে। হবেই তো এই বৃষ্টির মাঝে সে আর আমিই আছি বিকল্প তো কেউ আর নেই।আর মানুষ মাএই কথা বলবে।আমি বললাম দেখছেন কতো সুন্দর বৃষ্টি হচ্ছে? আল্লাহ কতই না মহান।ভদ্রলোক আড়চোখে আমার দিকে তাকালো। সে আমায় বলল আকাশে মেঘ জমবে আর তাতে বৃষ্টি হবে তা আবার দুনিয়ায় পরার পর রোধের মাধ্যমে আবার বাষ্প হয়ে আকাশে যাবে আবার বৃষ্টি হবে এখানে সৃষ্টিকর্তার কি দরকার আছে?এসব নিজস্ব নিয়মেই হবে। আমি:: কেন এগুলো নিজস্ব নিয়মেই হবে কেন? আচ্ছা যান মানলাম নিজস্ব নিয়মেই হবে কিন্তুু সেই নিয়মটা কি কোন একজন ছাড়া সম্ভব? ভদ্রলোক:: কেন নয়? আমি::: আচ্ছা আপনার হাতের ঘড়িটা একটু খুলবেন দয়া করে? ভদ্রলোক খুলে আমার হাতে দিলেন।আমি বললাম এই যে গড়িটা এখানে রাখলাম এখন এটাকে নিজস্ব নিয়মে সরে যেতে বলেন। ভদ্রলোক :: এটা নিজস্ব নিয়মে একা সরবে কিভাবে? এটা তো জড় পদার্থ। আমি এবার ঘড়িটা হাত দিয়ে উঠালাম:: আচ্ছা এই যে এখন গড়িটা আমি হাত দিয়ে উঠালাম। এটা উঠার পিছনে আমার শক্তি আছে তাইতো? ভদ্রলোক মাথা নেড়ে সম্মতি দিল। আমি:: তাহলে একবার ভাবুন এই সামান্য ওজনের একটি গড়ি যদি একা চলতে না পারে তবে পৃথিবী থেকে পানি বাষ্পীভবন হয়ে আবার মেঘ জমে আবার পৃথিবীতে নেমে আসে।আর চিরজীবন এভাবেই চলে আসছে এসব কি নিজস্ব নিয়মেই হওয়া সম্ভব? যেখানে সামান্য একটি গড়ি কোন শক্তি ছাড়া এক সে.মি ও নড়তে পারে না।। তাহলে ঐসবের পিছনে শক্তি কার? একজন সৃষ্টিকর্তা ছাড়া? তাছাড়াও আবার দেখবেন মাঝে মাঝে মেঘ হলেও বৃষ্টি হয় না।কেন? তাহলে কি এতে বুঝা যায় না একজন আছেন যার আদেশেই এসব হয়। ভদ্রলোক:: আচ্ছা যদি ইসলাম সত্যে ধর্ম হয় আর সেই ধর্মের সৃষ্টিকর্তা একজন হয় আর রাসূলও একজনই হয় তাহলে মুসলীমদের মধ্যে এতো মাজাহাব বা দল কেন?? গন্তব্য তো একই হওয়া উচিৎ নাকি? সে বলে আমাদেরটা সঠিক আরেকজন বলে আমাদেরটা সঠিক।তাহলে এটা কি? আমি দীর্ঘশ্বাস ছেরে:: হুম তা অবশ্য ঠিক বলেছেন যারা আসলে কিছু বুঝে না বা ধর্মজ্ঞান নেই তারাই অন্যমাজাহাবকে ভুল বলে আসলে সবগুলোই সঠিক। আর এতে সমস্যা কি? একাধিক মাজাহাব হতেই পারে। ভদ্রলোক একটা হাসি দিয়ে:: আচ্ছা এতো দল হওয়ার কি আছে? যেখানে নবী একটাই। আমি'::: আচ্ছা আপনার কি কোন বোন আছে? ভদ্রলোক:: হুম আছে দুই বোন।।তাতে কি?? আমি:: আচ্ছা আপনারা একই বাবার ঔরসে একই মায়ের গর্ভে তাহলে আপনি ছেলে আর তারা মেয়ে হলো কেন? বাবা- মা তো আপনাদের একই। ভদ্রলোক কিছুটা বিস্নিত হয়ে:: এটা কোন প্রশ্ন হলো? হতেই পারে। [ ঐ বৈজ্ঞানিক ব্যখাটা দিলাম না] আমি:: তাহলে?? উক্ত পক্রিয়ায় আপনি ছেলে আর তারা মেয়ে হলো বলে কী আপনারা একই মায়ের সন্তান নয়? হুম একই মায়ের সন্তান। ঠিক তেমনি আমাদের প্রিয় নবী সা. ভিবিন্নসময় উম্মতের জন্যে ভিবিন্ন উপদেশ রেখে গেছেন আর যা পরবর্তীতে মাজাহাব আকারে প্রকাশিত হয়। তাই বলে কী তারা মুসলীম নয়? একই নবীর অনুসারি নয়? ভদ্রলোক কিছুটা ভেবে:: হুম।আচ্ছা তাহলে একেক জনের সংরক্ষিত হাদিস সমুহ আরেক জনের সাথে কেন তেমন মিলে না? আমি:: আচ্ছা এমন কী হয়নি ছোটবেলায় আপনি একদিন হলেও আপনার বাবার সাথে বাইরে গিয়ে একটা কথা শুনেছেন যা আপনার বোন কিংবা মা জানে না। ভদ্রলোক:: হুম আছে এমন অসংখ্য। আমি:: হুম তেমনি আমাদের প্রিয় নবী সা. ও ভিবিন্নসময় ভিবিন্ন হাদিস বলেছেন আর সবসময় তো আর সব সাহাবি উপস্হিত ছিল না। পরবর্তীতে অবশ্য তারা জেনে নিতেন। আর ঐসব হাদিস সমূহই পরবর্তীতে তারা কিতাব আকারে সংরক্ষন করেছে একেকজন একেকজনের কাছ থেকে তাই সব হাদিস মিলে না। কিন্তুু সঠিক সবগুলোই। ঠিক যেমন আপনার বাবার কাছ থেকে আপনার জানা সব কথাগুলো আপনার বোন বা মা জানেন না তবুও আপনারা বাবা- মা, ভাই- বোন সম্পর্ক অটুট আছে। আর আমাদের গন্তব্যও একই। একই নবীর অনূসারি আর একই পথ অনুসরন করি। আমি একটা কথা বলব আপনাকে? আকাশের কালো মেঘের এক টুকরো এখন ভদ্রলোকের মুখে নেমে পরেছে।।তবুও বলল হুম বলো। আমি:: আপনি কি নাস্তিক? ভদ্রলোক হাল্কা একটা কাশি দিয়ে বলল বৃষ্টি থেমে গিয়েছে যাই এখন ভালো থেক।ভদ্রলোক চলে যাচ্ছে আমি তাকিয়ে আছি সেই দিকে।।এতক্ষনে আকাশ থেকে কালো মেঘের আড়াল দিয়ে সূর্য্যি মামা উকিযুকি দিচ্ছে। ..........................সমাপ্ত............................. বি.দ্র:: গল্পের ভুল ক্রটিসমূহ ক্ষমা করবেন। আরেকটা কথা এসব বিষয়ে কখনও কারোর অযথা তর্ক বিতর্ক করা উচিৎ নয়।।তারা সকলেই মহান আল্লাহ তায়ালার প্রিয় বান্ধা ছিলেন।আমরা তাদের জন্যে দোয়া করব।আর এসব বিষয় নিয়ে তর্ক করে অযথা মুসলীম ঐক্যকে ফাটল ধরাব না।।এমনিতেই......................


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৫৭৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ বন্ধুর পথ এক........
→ মুসলিম হয়েও অমুসলিম
→ প্রশ্ন একটাই আমরা কী সত্যিই মুসলীম?
→ কোরআনে জীববিজ্ঞান! প্রতিটি জীবকে পানি থেকে সৃষ্টি করা হয়েছে।
→ শামসুর রহমানের সাথে একদিন।
→ হঠাৎ একদিন.......!!!!
→ পর্দা করা এত জরুরী কেন? ইসলামে পর্দা কি শুধু মহিলাদের জন্য নাকি পুরুষ-মহিলা উভয়ের জন্যে??
→ হঠাৎ কেন এ চিঠি!!! আরবিতে লিখা ছিল ঐ চিঠিখানা
→ হযরত ফাতেমা (রা) এর চাদরের ঘটনা
→ একি হলো হিমুর?

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...