গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান গন আপনারা শুধু মাত্র কৌতুক এবং হাদিস পোস্ট করবেন না.. যদি হাদিস /কৌতুক ঘটনা মুলক হয় এবং কৌতুক টি মজার গল্প শ্রেণি তে পরে তবে সমস্যা নেই অন্যথা পোস্ট টি পাবলিশ করা হবে না....আর ভিন্ন খবর শ্রেনিতে শুধুমাত্র সাধারন জ্ঞান গ্রহণযোগ্য নয়.. ভিন্ন ধরনের একটি বিশেষ খবর গ্রহণযোগ্যতা পাবে

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

❄️নারীর নাক কান ছিদ্র করাঃ ইসলাম কি বলে❄️

"ইসলামিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান তাহিরা (৩২ পয়েন্ট)



আমাদের সমাজে অনেক বিবাহিতা নারীকেই শুনতে হয় হাতে চুড়ি না পড়লে বা নাকে নাকফুল না পড়লে স্বামীর আয়ু কমে যায় বা স্বামীর অমঙ্গল হয়। ঠিক এই বিশ্বাস নিয়ে বিধর্মী নারীরা শাঁখা-সিঁদুর পরে। আজও অনেক মুসলমান মা-বোন সেই একই ধরনের কুসংস্কারে বিশ্বাসী হয়ে চুরি, নাকফুল পরেন। তবে ফিকাহ শাস্ত্রের নির্ভরযোগ্য কিতাবাদী অধ্যয়নে প্রমাণিত হয় যে, নারীরা কান ও নাক ছিদ্র করে গয়না পরতে পারবে। কেননা কানে গয়না পরার রীতি নবী করিম (সা.) জীবিত থাকা অবস্থায়ও ছিল, তথাপি তিনি এটি নিষেধ করেননি। হাতে চুরি ও নাকফুল না পরলে স্বামীর আয়ু কমে যায়, এমন বিশ্বাস অনেকের। এই ধারণাটি ভ্রান্ত, কুসংস্কার ও আল্লাহ তায়ালার কালামের বিপরীত। কারণ আল্লাহ তায়ালা সমস্ত মানুষের আয়ু নির্দিষ্ট করে রেখেছেন। সে সময়ের পূর্বে বা পরে কারো মৃত্যু হবে না। তাই ওই সমস্ত ভ্রান্ত ধারণা পরিত্যাগ করা অপরিহার্য। তবে এই বিষয়ে শরীয়তে কোনো প্রকার নিষেধ নেই। নারীদের হাতে চুরি হিসেবে কাঁচ, পাথর এবং রূপাসহ সব ধরনের অলংকার পরা জায়েজ আছে। কিছু এলাকার নারীদের মাঝে একথা প্রচলিত রয়েছে- কোনো মেয়ে যদি নাক, কান না ফোঁড়ায় তাহলে কেয়ামতের দিন তার নাক-কানে আগুনের লোহা দিয়ে ছিদ্র করা হবে। কথাটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। অলংকার ব্যবহারের উদ্দেশ্যে নারীদের নাক, কান ফোঁড়ানো জায়েজ। কিন্তু এটি শরীয়তের কোনো জরুরি হুকুম নয়। কোনো নারী নাক, কান না ফোঁড়ালে তার কোনো গুনাহ হবে না এবং এ কারণে আখিরাতে তাকে শাস্তিও পেতে হবে না। তবে বর্তমানে আরো কিছু কিছু অঙ্গে অলঙ্কার ব্যবহার করতে দেখা যায়, যেমন: ঠোঁট, চোখ, নাভী, জিহ্বা এসব স্থানে অলঙ্কার ব্যবহার করা অপসংস্কৃতি ও উগ্রতার বহিঃপ্রকাশ তাই এসব অনুমোদিত নয়। [নাক,কান ফোঁড়াবে কি না? এটা যে কারো ঐচ্ছিক ব্যাপার।এর সাথে মঙ্গল অমঙ্গল কেন আসতে যাবে? আজ অব্দি এই নিয়ে উত্তর দিতে দিতে আমি হয়রান পেরেশান। আশাকরি, যারা এটা পড়বেন তারা আর কখনো এই তুচ্ছ বিষয়ে নিয়ে কোনো কথা বললেন না।] [গল্পের টপিকের বাইরে কোন কমেন্ট গ্রহণযোগ্য নয়।] ❄️সংগৃহিত❄️


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৮২৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ হায়রে মানুষ, তাদের কি ছিলনা কোনো হুশ!
→ ~ইসলাম কেন পুরুষদের একাধিক স্ত্রী গ্রহণের অনুমতি দেয়? কিছু ভুল,কিছু বিভ্রান্তের সমাধানের প্রচেষ্টা!
→ ~অমুসলিমদের জন্য মক্কা-মদিনায় প্রবেশ নিষিদ্ধ কেন? এতে কী বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব হুমকির মুখে?
→ কিছু বিষয় কিছু ফতোয়া সবাইকে তার প্রাপ্প ক্রেডিট দিতে শিখুন।
→ কিছু অদ্ভুত তথ্য
→ ~নোকিয়া_১২০৮
→ ইউনিকর্ণঃ রূপকথা নাকি বাস্তব?
→ জ্বীনদের ইসলামের দীক্ষা
→ এ মায়ের কি কষ্ট
→ ইসলামের_আলো

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...