গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

গল্পেরঝুড়িতে লেখকদের জন্য ওয়েলকাম !! যারা সত্যকারের লেখক তারা আপনাদের নিজেদের নিজস্ব গল্প সাবমিট করুন... জিজেতে যারা নিজেদের লেখা গল্প সাবমিট করবেন তাদের গল্পেরঝুড়ির রাইটার পদবী দেওয়া হবে... এজন্য সম্পুর্ন নিজের লেখা অন্তত পাচটি গল্প সাবমিট করতে হবে... এবং গল্পে পর্যাপ্ত কন্টেন্ট থাকতে হবে ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

ছোটবেলার স্মৃতি

"স্মৃতির পাতা" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ধূসর মরুভূমি[ মফিজুল ] (৩০৭ পয়েন্ট)



আসসালামু আলাইকুম ভাই এবং বোনেরা। -------------------------------------- রোজকার মতো আসিফ সাহেব ১০ঃ৩০ মিনিটে স্কস্কুল এ উপস্থিত।তিনি একজন স্কুল মাস্টার।স্কুল টি শুধু ছেলেদের জন্য মানে বয়স স্কুল।সপ্তম শ্রেণিতে বাংলা পড়ান তিনি। ক্লাস এ ঢুকই তিনি বলেন,আজ তুমাদের পড়াব না। আজ তুমাদের দৈনন্দিন জীবন সমপর্কে জানতে চাইব।রিফাত বলে,স্যার আমাদের তো ওই একটাই কাজ লেখাপড়া করা।আসিফ সাহেব বলেন,লেখাপড়া ছাড়াও অনেক কিছু করার আছে। বর্তমান প্রজন্ম তো তোমরাই। আমি যখন তুমাদের বয়সী ছিলাম তখন অনেক দুরন্ত ছিলাম।সবসময় এটা সেটা নিয়ে পরে থাকতাম। তুমরা কি আমার ছোটবেলার দিনলিপি শুনতে চাও??ছাএরা সবাই উচ্চস্বরে বলল, জি স্যার শুনতে চাই।আসিফ সাহেব তার ছোটবেলার কথা শুরু করল, মুন্সিগঞ্জের রসুলপুর গ্রামে আমি থাকতাম।তখন আমার বয়স ছিল ১৪।আমি অনেক দুরন্ত, দুষ্ট ছিলাম।আমাদের গ্রাম সবুজ এর সমারোহ এ ছিল। নীল আকাশের মাঝে সবুজ এর মাঠ ছিল।সকাল এ সূর্য ওঠত আমি অনেক তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠতাম তারপর ছাই দিয়ে দাঁত মাজতাম তখন টুথপেষ্ট ছিলনা।তারপর মক্তবে যেতাম আরবী পড়তাম এরপর বিদ্যালয়ে যেতাম। সরিষার মাঠ এর মধ্যে দিয়ে যেতাম।অনেক ভালো লাগত।দুপুর এ কড়া রোদে বাড়ির পাশের পুকুরে গোসল করতাম আবার সাঁতার ও কাটতাম।বিকেলে ফুটবল খেলতাম। সন্ধ্যার রঙিন আকাশ খুবই ভালো লাগত। লেখাপড়া করে ঘুমাতাম। শুক্রবার প্রপ্রতি দুপুর এ ভাটিয়ালি গান এর আসর বসত আমি যেতাম।আর পালা গানের মঞ্চ এ যেতে একদম ভুল হত না।ছোটবেলার দিনগুলো খুবই সুন্দর ছিল। তারপর তিনি ছাএদের তিনি বললেন, তোমরা বর্তমান ছেলেমেয়েরা ঘরে থাকতে থাকতে একঘেয়েমী হয়ে গেছ।।আগের মতো গ্রাম বাংলার গান তুমরা আর শুননা। ইংলিশ গান এর প্রপ্রতি ঝুঁকে গেছ।। আমাদের দেশটা অনেক সুন্দর। তুমরা এই সুন্দর সবুজ শেফালী দেশের মাঝে বড় হলেও এই দেশের প্রকৃতি সম্পর্ক এ কিছুই জান না। তাই আজ থেকে তুমরা ঘরে মোবাইল নিয়ে বসে থাকবানা ঘর থেকে বের হবা এবং প্রকৃতির কাছাকাছি থাকবা।শহর বসবাসের জায়গা হলেও গ্রাম মাটির কথা বলে।। গ্রামে র সৌন্দর্য মনকে সুখি করে তোলে।।। পরিশেষে বলতে চাই,,,, গ্রামবাংলা ও দেশের সৌন্দর্য এর প্রপ্রতি আমাদের সজাগ হতে হবে যা মাথায় আসল তাই লিখলাম ভুল হলে মাফ করবেন -----★সমাপ্ত★------


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২৬৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ স্মৃতি
→ পুরানো ঈদের রাতগুলো, স্মৃতির পাতায় রয়েই গেল।
→ ♦ছোট বেলার ঈদস্মৃতি♦
→ প্রিয়জনের স্মৃতি
→ স্মৃতির শৈশব।
→ ছোটবেলার স্মৃতি
→ সেই দিনগুলো স্মৃতি হয়ে থাকবে
→ ক্রিকেটের স্মৃতি
→ মেজোভাইয়ের স্মৃতি ২

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...