গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

Mash Rafe the untold story❤

"সত্য ঘটনা" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ᔑᗩᎩᗴᗞ (০ পয়েন্ট)



MASH RAFE THE UNTOLD STORY???????? Writer-SaYeD CHy???????? ১৯৮৩ সালে৫ই অক্টোবর বাংলাদেশের দক্ষিণ পশ্চিমের জেলা নড়াইলে মাতা হামিদার পেট থেকে পিতা গোলাম মর্তুজার বাড়িতে জন্ম নেয় একটি ফুটফুটে বাচ্ছা(মাশরাফি)। কে জানতো সে ছিল বাংলাদেশের প্রত্যশা?? ছোটবেলা থেকেই তিনি ফুটবল আর ব্যাডমিন্টন খেলতেই বেশি পছন্দ করতেন,আর মাঝের মধ্য চিত্রা নদীতে সাতার কাটা। তারুণ্যের শুরুতে ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ জাগে। ব্যাট নিয়ে ছোটা ছুটি,কিন্তু কে জানতো তার হাতেই ছিল শক্তি সে জন্যেই তাকে" নড়াইল এক্সপ্রেস "বলা হয়। বাইকপ্রিয় হাসিখুশি ম্যাশকে উদারতা মানুষ হিসেবে সবাই জানে। প্রায়শই বাইক নিয়ে বের হন আর নড়াইল শহরের ব্রিজের এপার-ওপার চক্কর মারেন। নড়াইলের সবাই তাকে নড়াইলের প্রিন্স অব হার্ট বলে।এ শহরেরই সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজে তার সাথে পরিচয় হয় সুমনা হক সুমির সাথে। ২০০৬সালে দুইজনের পরিবারের সামনে দুইজনে বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হন।তারা দুই সন্তানের মা-বাবা হয়। এ বিয়ের আগে অনুর্ধ-১৯ দলে থাকতে কোচ অ্যান্ডি রর্বাটসনের নজর খাড়েন এবং তার পরামর্শে তাকে বাংলাদেশ এ দলে নেওয়া হয়। ৮ই নম্বেমর, ২০০১সালে ম্যাশের অভিষেক ঘটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কিন্তু বৃষ্টির বাগড়ায় পড়ে খেলা ভন্ড কিন্তু ম্যাশে সে ম্যাচে তার জাত চিনিয়ে দেন ১০৬ রানে ৪টি উইকেট নিয়ে।গ্র্যান্ট ফ্লায়ার ছিল তার প্রথম উইকেট। একই বছরের ২৩ই নভেম্বর ম্যাশের ওডিআই অভিষেক ঘটে, সে ম্যাচে ম্যাশ ২ ওভারে ২৬ রান দিলেও ২টি উইকেট তার ঝুলিতে বরেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাক্তিগত ৩য় টেস্টে তিনি হাটুতে আঘাত পান!!যার কারনে ২ বছর মাঠের বাইরে থাকেন!!! তার আবার ফিরে এসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৬০ রানে ৪ উইকেট নেন এবং এর পর তিনি আবার হাটুতে আঘাত পেয়ে বছর খানেক মাঠের বাইরে থাকেন। ২০০৭ সালে বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে অবিস্মরণীয় জয়ে ম্যাশ ভূমিকা রাখেন। তারপর ম্যাশ ভারতের বিপক্ষে ঢাকায় ১ ওভারে পরপর ৪বলে ছক্কা পেটান। সেইওভারে তিনি ২৬ রান সংগ্রহ করেন। ১৬ বছরের ক্যারিয়ারে ১১ বার চোটের কারনে তাকে মাঠের বাইরের থাকতে হয়। এ চোটের কারণে তাকে ছিনিয়ে নিয়েছিল দেশের মাটিতে হওয়া বিশ্বকাপ থেকে। ২০১৭ সালে ৬ই এপ্রিল শ্রীলংঙ্কার বিপক্ষে টি২০ তে অবসর নেন। বাংলাদেশের প্রথম খেলোয়াড় যে অধিনায়ক অবস্থায় অবসর নেন।ম্যাশের আরেক নাম না জানা হল (কৌশিক)


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২৫৮ জন


এ জাতীয় গল্প

→ Airbrushed the same way as the first half of fahad 3years I think the first time in bangladesh
→ The Adventure of All GJ's(3)
→ The Adventure of All GJ's(2)
→ The Adventure of All GJ's(1)
→ The king of darkness
→ The king of darkness 3
→ The king of darkness 4 & last
→ The vampire world 4
→ The king of darkness 1

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...