Deprecated: mysql_connect(): The mysql extension is deprecated and will be removed in the future: use mysqli or PDO instead in /var/sites/g/golperjhuri.com/public_html/gj-con.php on line 6
ফুটবল ও আমি

সুপ্রিয় পাঠকগন আপনাদের অনেকে বিভিন্ন কিছু জানতে চেয়ে ম্যাসেজ দিয়েছেন কিন্তু আমরা আপনাদের ম্যাসেজের রিপ্লাই দিতে পারিনাই তার কারন আপনারা নিবন্ধন না করে ম্যাসেজ দিয়েছেন ... তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ কিছু বলার থাকলে প্রথমে নিবন্ধন করুন তারপর লগইন করে ম্যাসেজ দিন যাতে রিপ্লাই দেওয়া সম্ভব হয় ...

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান গন আপনারা শুধু মাত্র কৌতুক এবং হাদিস পোস্ট করবেন না.. যদি হাদিস /কৌতুক ঘটনা মুলক হয় এবং কৌতুক টি মজার গল্প শ্রেণি তে পরে তবে সমস্যা নেই অন্যথা পোস্ট টি পাবলিশ করা হবে না....আর ভিন্ন খবর শ্রেনিতে শুধুমাত্র সাধারন জ্ঞান গ্রহণযোগ্য নয়.. ভিন্ন ধরনের একটি বিশেষ খবর গ্রহণযোগ্যতা পাবে

ফুটবল ও আমি

"মজার গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান পুশপিতা (৬১৯ পয়েন্ট)



সেই দিন ছিল ৫ই ফ্রেব্রুয়ারি। ঘুম থেকে উঠে ঘড়ির দিকে তাঁকিয়ে দেখি ৭:২৭ বেজে গিয়েছে।:0 তখন মনে হয় আমি আকাশ থেকে মাটিতে পড়লাম:D গেলো রে আমার আজকে ১২ টা বেজে গিয়েছে। আমি: মাআআআআআ আমাকে আজকে ডেকে দেওনি কেন? angry মা: তোকে তো ডেকেছি। তুই বললি তোর প্রাইভেট নাকি বন্ধ। তাই আর না ডেকে চলে আসলাম। একে তো সময় কম তাই আর কথা না বাড়িয়ে দাঁত ব্রাশ, স্নান করে রেডি হয়ে হালকা ব্রেকফাস্ট করে ব্যাগ গুছিয়ে টাকা নিয়ে চলে আসলাম। হাতে ঘড়ির দিকে তাকিয়ে দেখি ৭:৫২ বেজেছে। প্রাইভেটের পথ ১০ মিনিটের। তাই দ্রুত হাঁটা শুরু করলাম। প্রাইভেটে এসে দেখি মাত্র রুহি, স্বর্না এসেছে। :D আর গুলো এখনো আসে নাই। এরপর একে একে সবাই আসলো। প্রাইভেট পড়া শেষ করে সবাই মজা করতে করতে স্কুলে চলে আসলাম। স্কুলে গিয়ে ব্যাগটা রাখার কিছুক্ষন পরেই স্যার বাশিঁ দিলো। কি আর করা যায় :( নিচে এসে লাইন ঠিক করালাম। কোরআন তেলওয়াতের পর শপথ করালাম, জাতীয় সংগীত গাইলাম। এরপর লাইন ধরে সোজা উপরে ক্লাসে চলে আসলাম। একের পর এক স্যার/ম্যাম এসে ক্লাস করে চলে গেল। এরপর টিপিন পিরিয়ডের সময়। টিপিন নিয়ে যাই নাই। তাই সবাই যে যা এনেছে তাই খাইয়ে দিলো:D তাই আর দোকানে না গিয়ে বসে বসে গল্পের বই পড়তে লাগলাম। ছেলেরা চলে গিয়েছে মসজিদে নামাজ পড়তে আর মেয়েদের জন্য স্কুলে আলাদা কক্ষ আছে তারা সেখানে চলে গেল নামাজ পড়তে। কয়েকজনে যায় নাই। তারা কেউ দোকানে গিয়েছে , কেউ লাইব্রেরিতে মুখের সামনে গল্পের বই নিয়ে বসে আছে। আমি ক্লাসে একা। ভালো লাগছিলো না। তাই ভাবলাম একটা লটারি ধরে আসি :D দেখি আমার কপালে কি আছে। দোকানে গিয়ে একটা লটারি কিনে তা ঘষে দেখালাম একটা ফুটবল:D ফুটবলটা নিয়ে সোজা ক্লাসে। একা একা খেলতে লাগলাম। হঠাৎ মীম আসলো। আমি: কিরে নামাজ শেষ? মীম: হুমম। কিন্তু ঝড়না এই ফুটবল তুই কোথায় পেয়েছিস? আমি: তোর......:D মীম: আমার কী?:s আমি : তোর বর দিয়েছে :D মীম: ঝড়নাআআআআআ angry এরপর আমি আর ঐ জায়গায় নেই। মীম আমাকে খুজতে লাগলো। এরপর অনেকেই জিজ্ঞাসা করল। প্রতি উত্তরে ফুটবল দিয়ে কারো নাক পাটিয়েছি আবার কারো মাথা :D কাউকে বলেছি তোর বর/বউ দিয়েছে :D কয়েকজন আমার বোনের কাছে গিয়ে বলল। কয়েকজন দৌড়াতে শুরু করলো পুরো স্কুল দৌড়াতে দৌড়াতে হাঁপিয়ে গিয়েছিলাম। কি করা এখন ওরা যদি এখন ধরতে পারে তাহলে আমাকে মনে হয় মাটি চাপা দেবে। কোনো উপায় খুঁজে না পেয়ে ছাদে চলে গেলাম। কারন সেখানে কেউ তেমন যায় না। সেখানে একটা চেয়ার সবসময় থাকে। আমি সেখানে বসে পকেট থেকে চকলেট বের করে চকলেট খেতে লাগলাম:D আর ঐদিকে ওরা আমায় পুরো স্কুল খুজে বেড়াচ্ছিল :D এরপর টিপিন পিরিয়ড শেষ হলো ৫ম ঘন্টা শুরু হলো। ক্লাসে এসে দেখি স্যার চলে আসল। আমি: May l come in sir? স্যার: Yes come in. ক্লাসে গিয়ে সবার দিকে তাকিয়ে দেখি সবাই অগ্নিদৃষ্টিতে আমার দিকে তাকিয়ে আছে :D এবং ইশারা করছে যে ছুটির পরে আমাকে ধরবে। ছুটি দেওয়া মাত্রই দেওয়া মাত্রই ভিড়ের মধ্য দিলাম দৌড়। আমাকে আর পাবে কোথায়। কারন ওদের বাড়ি পশ্চিমে আর আমার বাড়ি পূর্বে। কয়েকজনের পূর্বে আছে। তাই আমি রাস্তা দিয়ে না এসে বাড়ি ভেতর দিয়ে বাড়িতে চলে আসলাম। বাড়িতে এসে বড় দিদি ও মা- বাবা তাদের ভাষণ শুনতে হয়েছে। তারা বলে আমি নাকি আদরে আদরে বাদর হয়ে যাচ্ছি :D পরের দিন স্কুলে গেলে সবাই আমাকে ঘিরে ধরে। আমি কোনো উপায় না পেয়ে প্রান বাচাঁনোর জন্য সবাইকে বললাম তোমরা যে যা খেতে চাও আমি তাই খাওয়াবো কিন্তু একটি শর্তে। নিহা: কি শর্ত? আমি: কেউ আমাকে কালকের ঘটনার জন্য কিছু করতে পারবে না। তোমরা রাজি? সবাই বলল: হুমমমম একটা ফুটবলের জন্য আমার ১০০টাকা শেষ। একেই বলে কপাল। --------- সমাপ্ত ----------


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৪৯৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ তবুও...ভালোবাসি...
→ উপকারী মিথ্যা ও ক্ষমা
→ তোকে পাওয়া হলো না ৩ পাট
→ ওঝা
→ পিঁপড়ে ও হাতির প্রেম (শুভ সূচনা)
→ ভালোবাসা দিবস ও ইসলাম
→ তোকে পাওয়া হলো না ২ পাট
→ তোকে পাওয়া হলো না ১ পাঠ
→ 14 ফেব্রুয়ারী ও ভালোবাসা

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...