Deprecated: mysql_connect(): The mysql extension is deprecated and will be removed in the future: use mysqli or PDO instead in /var/sites/g/golperjhuri.com/public_html/gj-con.php on line 6
আনন্দময় দিনগুলো

গল্পেরঝুড়িতে লেখকদের জন্য ওয়েলকাম !! যারা সত্যকারের লেখক তারা আপনাদের নিজেদের নিজস্ব গল্প সাবমিট করুন... জিজেতে যারা নিজেদের লেখা গল্প সাবমিট করবেন তাদের গল্পেরঝুড়ির রাইটার পদবী দেওয়া হবে... এজন্য সম্পুর্ন নিজের লেখা অন্তত পাচটি গল্প সাবমিট করতে হবে... এবং গল্পে পর্যাপ্ত কন্টেন্ট থাকতে হবে ...

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান গন আপনারা শুধু মাত্র কৌতুক এবং হাদিস পোস্ট করবেন না.. যদি হাদিস /কৌতুক ঘটনা মুলক হয় এবং কৌতুক টি মজার গল্প শ্রেণি তে পরে তবে সমস্যা নেই অন্যথা পোস্ট টি পাবলিশ করা হবে না....আর ভিন্ন খবর শ্রেনিতে শুধুমাত্র সাধারন জ্ঞান গ্রহণযোগ্য নয়.. ভিন্ন ধরনের একটি বিশেষ খবর গ্রহণযোগ্যতা পাবে

আনন্দময় দিনগুলো

"মজার গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Eshrat Jahan (২৭৩ পয়েন্ট)



আমি ঐশীকে ডাকছি"এই ঐশী ঐশীইইইইইই এ ঐশীইইইই ।" "কি বলিস?এতো ডাকিস কিসের জন্য?" "এমনি।" "এমনি না বল।" "এতো রাগ কেন রে?ভালো কথায় তো বলছি।" "ঠিক আছে।" ইভা আসছে।ইভার সাথে দেখা হলেই প্রথমেই আমি একটা কথা বলি।আজকেও বললাম "হাই মিতা খাবু কি তিতা?" এইটা বললে ইভা একটা হাসি দেয়।আজও দিলো।আমি বললাম "এইযে প্রতিদিন বলি তিতা খাওয়ার কথা বলি একদিন সত্যিই খাওয়াবো।" "হুমম খাওয়াস।" আমি ঝিলিককে দেখেই বললাম "হেই ঝিলিক খালি জিলিক পারিস কিসের জন্য?" "কোথায়?" "কিছু না যা।ওহ হাই ছন্দা বন্দা (আমি ছন্দাকে দেখলেই এই কথা বলি) ছন্দা কাছে এসে বলল "হাই বুবলি।" "কিরে দিনকাল ভালো চলছে তোর?" "হুমম চলছে ভালো।তোরও তো ভালোই।" "হ্যা।" আমি রিফাহর কাছে এলাম।রিফাহ আমাকে দেখেই বলল "এই ইসরাত কোথায় থাকিস তুই?" আমি বললাম "এইতো স্কুলের ভেতরই ছিলাম।বাইরে তো যাইনি।" সুবর্ণা বলল"হুমম।তোর তো কাজ খালি স্কুলের ভেতর ঘুরে বেড়ানো।" ইশা বলল "ইসরাত তোর ব্যাগের ভেতর দেখতো।" আমি ক্লাসে ঢুকেই দেখতে লাগলাম ব্যাগে কি আছে।এইটা কি?চিঠি?সবার ওপরে লেখা আছে ইসরাত তোর চিঠি।আমি কাগজের ভাঁজ খুলে দেখলাম শূন্য শূন্য চিঠি।কিছুই নেই।আমি রিফাহর কাছে যেয়ে বললাম "চিঠিটা খুব সুন্দর।" রিফাহ বলল "কি লেখা আছে?" "লেখা আছে I love U।কে দিয়েছে এই চিঠি?" "দেখি ওই চিঠি।" আমি কাগজটা রিফাহরহাতে দিলাম।রিফাহ বলল "এখানে তো কিছুই লেখা নাই।" আমি বললাম"হ্যা তোরা এরকম চিঠি দিলে তো হবেই।" সুবর্ণা হেসে উঠলো।আমিও হাসতে থাকলাম।আমি মাঠে বসে পড়লাম।রিফাহ, সুবর্ণা,ইশাও বসলো।আমরা মাঠে বসেই গল্প করি। অনেক হাসাহাসি গল্প করলাম।আমি জুতা খুলে মাঠে বসে আছি।এখন গল্প শেষ।জুতা খুঁজছি।আমি খুঁজে পাচ্ছি না।কে লুকিয়ে রাখলো?ইস ভালো লাগে না।অনেক খুজলাম।তারপর ইভা এসে বলল "তোর জুতা ঐযে ওখানে।" আমি ইভাকে তিনচারটা মারলাম আমার জুতা লুকিয়ে রাখার জন্য।আরেকটু পর স্কুল ছুটি দিবে।সাবার কাছে যেয়ে বললাম"সাবা শোন?" "কি?" "কিছু না।" "কিছু না যা।" "কোথায় যাবো না?আর একটু পর তো স্কুল ছুটিই দিবে তখন চলে যাবো।" "ঠিক আছে।" একটু পর আমাদের স্কুল ছুটি দিলো।আমরা সবাই নিজ নিজ জায়গায় ফিরে গেলাম।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২৯৫ জন


এ জাতীয় গল্প

→ সেই দিনগুলো স্মৃতি হয়ে থাকবে
→ ফেলে আসা দিনগুলো
→ আমার সেই দিনগুলো........
→ **মজার দিনগুলো**
→ **স্মৃতিময় সেই দিনগুলো**
→ ফেলে আসা দিনগুলো
→ বয়ে যাওয়া দিনগুলো......
→ বৃষ্টির দিনগুলোতে
→ বলিরেখার দিনগুলোয় প্রেম

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...