গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় পাঠকগন আপনাদের অনেকে বিভিন্ন কিছু জানতে চেয়ে ম্যাসেজ দিয়েছেন কিন্তু আমরা আপনাদের ম্যাসেজের রিপ্লাই দিতে পারিনাই তার কারন আপনারা নিবন্ধন না করে ম্যাসেজ দিয়েছেন ... তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ কিছু বলার থাকলে প্রথমে নিবন্ধন করুন তারপর লগইন করে ম্যাসেজ দিন যাতে রিপ্লাই দেওয়া সম্ভব হয় ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

বিজয় চিঠি

"যুদ্ধের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান ARFA (০ পয়েন্ট)



#ছেলেটর নাম জয়। ওর বাবা নেই। ছেলেটি ওর মায়ের চোখের মনি যাকে বলে অন্ধের যষ্ঠি। জয়ও ওর মাকে খুব ভালোবাসে। ও..ও বলাই ত হয় নি যে ও কোন শ্রেণিতে পড়ে..!!!জয় ওদের গ্রামেরই এক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতো।ওর পড়াশোনা করতে খুব ভালোলাগত।...তবে এর চেয়েও বেশি ভালোলাগত গবেষণা করতে!! কিন্তু ওর গবেষণা আইনস্টাই,নিউটনের মতো ল্যাবে বা গবেষণাগারে হতো না...জয় গবেষণা করতো ওর আশেপাশের প্রকৃতি নিয়ে। ✴✴✴✴✴✴✴✴✴✴✴✴✴ যাই হোক জয় ওর মা, পড়াশোনা আর প্রকৃতি নিয়ে খুব ভালোই ছিলো.. তবে হঠাৎ করেই তার শরতের আকাশে কালো মেঘের ছায়া দেখা দিলো।...তার প্রকৃতিও কেপে উঠল এক অজানা আশংকায়||| চারদিকে মানুষের কান্নায় প্রকৃতি হয়ে গেল নিস্তব্ধ। জয় গ্রামের মানুষের কাছে জানতে পারলো যে হানাদার বাহিনী এসে বাংলার মানুষের ওপর অত্যাচার করছে,,অন্যায় অত্যাচার করছে..!!! তখন জয় বললো,," মামার বাড়ির আবদার নাকি,,ঊড়ে এসে জুরে বসে আমার দেশের মানুষের ওপর অত্যাচার করবে আর আমি সেটা মেনে নেবো নাকি..!!!!!!? দাড়াও হনু বাহিনী,তোমাদের দেখাচ্ছি মজা..!"" তারপর জয় বাড়ি চলে এলো কারণ দুপুর হয়ে গিয়েছিলো..তার মা তার জন্য ভাত বেড়ে দাওয়ায় বসে থাকবেন। জয় না খেলে ত আর তা মা খায় না...!! জয় বাড়ি ফিরা মাকে সব খুলে বলল..মা শুনে প্রথমে একটু ভয় পেয়েছিলেন.. ***************************** একদিন শহর থেকে এক দল লোক এলো। তারা নাকি গ্রাম থেকে সাহসী যুবকদের শহরে নিয়ে গিয়ে যুদ্ধের জন্য ট্রেনিং দেবে। জয় তাদের সাথে যাওয়ার জন্য এক লাফেই রাজি হয়ে গেল.. এবার শহরে যাওয়ার পালা..!! জয় সবার কাছে থেকে বিদায় নিলো তবে শহরে যাওয়ায় আগে মা জয় কে একবারও বলে নি,," যাস নে খোকা,,আমাকে ছেড়ে যাস নে..হানাদার বাহিনী তোকে মেরে ফেলবে!!" এটা দেখে জয় একটু অবাকও হলো কিন্তু সে বেশ খুশিও হলো..! তবে তার মা তাকে একটি কথাই বলেছিলো,," খোকা দেশ স্বাধীন হলে মাকে একটি চিঠি দিও,,আমি চিঠির অপেক্ষায় থাকবো।" জয় শহরে চলে এলো ..দেখতে দেখতে চলে গেলো আনেক দিন। মা জানালা দিয়ে উদাস হয়ে তাকিয়ে থাকে। যখন আসে পাশে কোনো পায়রা উড়ে যায় তখন মা ঘরে থেকে বের হয়ে উঠোনে খাবার ছড়িয়ে দেয়,,যদি তার ছেলে পায়রার পায়ে চিঠি বেধে পাঠায়। যখন কোনো সাইকেলের টুংটাং শব্দ শুনত,,সবার আগে দৌড়ে যেত। তবে একদিন রানারের সাইকেল টুংটাং করতে করতে তার বাড়ির দিকে আসল....সেদিন আর তাকে সাইকেলের পেছনে দৌড়াতে হলো না..রানার বলল তোমার ছেলে শহর থেকে চিঠি পাঠিয়েছে.. মা বলে,"",খোকা তুই কবে ফিরবি,,কবে ছুটি?? "" মাগো ওরা বলে,তোমার কোলে শুয়ে আর গল্প শুনতে দিবে না..তোমার শেখানো ভাষায় নাকি মা বলে ডাকতে দেবে না...তুমিই বলো মা তাই কখনো হয়,,তাইতো দেরি হচ্ছে... চলবে.......


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৭৬৬ জন


এ জাতীয় গল্প

→ মেয়ের কাছে বাবার চিঠি
→ কুস্তুন্তুনিয়া ও কনস্টান্টিনোপল বিজয়!
→ হিমুর কাছে রুপার চিঠি
→ হঠাৎ কেন এ চিঠি!!! আরবিতে লিখা ছিল ঐ চিঠিখানা
→ এক "বিজয়ী" র উদ্দেশ্যে.........
→ নারীদের প্রতি খোলা চিঠি
→ চিঠি
→ কন্সটানটিপল বিজয়ের ইতিহাস
→ সমস্ত মুসলমানদেরকে যদি হত্যা করা হয়, তবুও বিজয় ইসলামেরই হবে

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...